অপার মুগ্ধতা ঘেরা পাঠানটুলা গোয়াবাড়ি স্পোর্টস গ্রাউন্ড – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

অপার মুগ্ধতা ঘেরা পাঠানটুলা গোয়াবাড়ি স্পোর্টস গ্রাউন্ড

প্রকাশিত: ৯:২৪ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ৮, ২০২২

অপার মুগ্ধতা ঘেরা পাঠানটুলা গোয়াবাড়ি স্পোর্টস গ্রাউন্ড

অনলাইন ডেস্ক

হিম হিম কুয়াশার আবরণে ষড়ঋতুর পরম্পরায় বাংলার প্রকৃতিতে আজ ফিরে আসে পিঠা পার্বণের উৎসব। বাঙালির ঘরে ঘরে পিঠা উৎসব শুরু হয় অগ্রহায়নের শুরু হতে। অগ্রহায়ন মানেই কৃষকের গোলায় নতুন ধান। কৃষাণির ব্যস্ততা দিনভর।নতুন চালের পিঠার ঘ্রাণে আমোদিত চারদিক। গ্রামজুড়ে উৎসবের আমেজ। পিঠা উৎসবের সঙ্গে মিশে আছে বাঙালির হাজার বছরের ইতিহাস, ঐহিত্য ও সংস্কৃতি। বাংলার কৃষিজীবী সমাজের সবচেয়ে ঐতিহ্যবাহী শস্যোৎসব নবান্ন। অনাদিকাল থেকে কৃষিসভ্যতার ক্রমবিকাশের সঙ্গে সঙ্গে গ্রাম বাংলায় পালিত হয়ে আসছে এ উৎসব। পূর্বে অত্যন্ত সাড়ম্বরে উদযাপিত হতো নবান্ন উৎসব। সকল মানুষের সবচেয়ে অসাম্প্রদায়িক উৎসব হিসেবে নবান্ন উৎসব সমাদৃত ছিলো। অগ্রহায়ণের শুরু থেকেই আমাদের গ্রামবাংলায় চলে নানা উৎসব-আয়োজন। বাঙালির বারো মাসে তেরো পার্বণ। এ যেন সত্যি হৃদয়ের বন্ধনকে আরো গাঢ় করার উৎসব। এবছর শীত শেষে ঋতুরাজ বসন্তের আগমন।

যেদিকে চোখ যায় কেবল সবুজ আর সবুজ। চা বাগান আর ছায়া বৃক্ষের সবুজে নয়ন জুড়িয়ে যায়, পাওয়া যায় মানসিক প্রশান্তিও। সিলেটের অদূরেই উত্তর পশ্চিমে চা বাগান। ছায়া নিবিড় গাছেদের সাথে খেলা করে করে দেখে আসতে টারে দৃষ্টিননদন স্পোর্টস গ্রাউন্ড। অতি মনোরম পরিবেশে এ গ্রাউন্ড টি তেরী করা হয়েছে শহরের মানুষদের জন্য। বিশেথষ করে সারাদিন বাচ্চারা এখন মোবাইলে গেমস খেলায় মত্ত থাকে।

সিসিকের ৮ নং ওয়ার্ডে এলাকায় অন্যতম সম্ভাবনাময়ী এলাকা। পাহাড়-ঝর্ণা মিতালী চিরসবুজের বিশাল বিচরণ ক্ষেত্র। এরই গাঁ ঘেসে তৈরী করা হয়েছে সাড়ে ৫ হাজার স্কয়ার ফিটের মিনি স্পোর্টস গ্রাউন্ড যার ঘাসের কার্পেট আনা হয়েছে দবাই থেকে। জানতে পারলাম খুব শ্রীগ্রই খেলার মাঠটি শুভ উদ্ভোধন করা হবে।

সিলেট শহরতলীর পাঠানটুলা এলাকায় অবস্থিত তারাপুর চা বাগান। ঘুরতে ঘুরতে রাস্তা ছেড়ে বাগানের ভেতরে প্রবেশ ওয়াকওয়ে তে আয়েশ করে হাঁঠতে পারেন।শুক্রবার হলেই ধুম পরে মানুষের। দেখবেন চা-কন্যারা পিঠে চমৎকার ঝুড়ি নিয়ে সারি বেঁধে হয় কারখানার দিকে, নয় পাতা কুড়াতে বাগানের সরু পথে ধীরপদক্ষেপে এগিয়ে যাচ্ছে। তাদের কারো কারো পিঠের ঝোলায় শিশুসন্তান বহনের দৃশ্যটিও আপনাকে মুগ্ধ করবে। তাছাড়া নতুন তৈরী কৃত্তিম দৃষ্টিননদন স্পোর্টস গ্রাউন্ড অপার মুগ্ধতা দিবে।

দৃষ্টিননদন স্পোর্টস গ্রাউন্ড ঘুরতে আসছিলেন বাংলাদেশ পুলিশের কর্মকমর্তা সাজিদ খান তিনি বলেন, খেলাধুলার মাধ্যমে শরীর সুস্থ থাকে, মন প্রফুল্ল হয়। এজন্য নিয়মিত খেলাধুলা, শরীরচর্চা এবং সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে অংশগ্রহণ করতে হবে। পুলিশের মতো চ্যালেঞ্জিং পেশায় দায়িত্ব পালনের ক্ষেত্রে দৈহিক ও মানসিক সুস্থতা অত্যন্ত প্রয়োজন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল