অবশেষে উইকেটের দেখা পেল বাংলাদেশ – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

অবশেষে উইকেটের দেখা পেল বাংলাদেশ

প্রকাশিত: ৭:১৯ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৬, ২০১৭

অবশেষে উইকেটের দেখা পেল বাংলাদেশ

ব্লুমফন্টেইনের ঘাসের পিচে ব্যাটসম্যানদের শুরুতেই পরীক্ষায় পড়তে দিতে চাননি মুশফিক। পেসাররা যেন বাড়তি সুবিধা পায় সেটি মাথায় রেখেই ফিল্ডিং বেছে নেন টাইগার দলনায়ক। এর আগে দুই ম্যাচ টেস্টের প্রথম টেস্টে টসে জিতে সমালোচনার মুখে পড়েছিলেন মুশফিক। দক্ষিণ আফ্রিকার দুই ওপেনারের সাবধানী ব্যাটিং ফের বাংলাদেশ অধিনায়ককে সমালোচনার মুখে ফেলে দিল।

টসে জিতে মুশফিক নির্ভাবনায় ফিল্ডিং বেছে নিলেও চমকে দেয়া কথাই বলেন দক্ষিণ আফ্রিকান অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস। টসের সময় উপস্থাপককে তিনি বলেছিলেন, এমন পিচে টসে জিতলে দশবারের মধ্যে নয়বারই তিনি ব্যাটিং নিতেন। ডু প্লেসিসের বক্তব্যের সত্যতাই যেন ফুঠে উঠল দুই প্রোটিয়া ওপেনারের ব্যাটে।

অসাধারণ ব্যাটিংয়ের পসরা সাজিয়ে সেঞ্চুরি তুলে নিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার দুই ওপেনার ডিন এলগার ও এইডেন মার্করাম। দ্বিতীয় সেশনের শেষদিকে অবশেষে সাফল্য পেল বাংলাদেশ। শুভাশিষ রায়ের বলে মোস্তাফিজুর রহমানের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন এলগার। তবে দক্ষিণ আফ্রিকা ঠিকই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে রেখেছে।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত দক্ষিণ আফ্রিকার সংগ্রহ ১ উইকেটে ২৪৭ রান। হাশিম আমলা ০ ও মার্করাম ১২৭ রান নিয়ে ব্যাট করছেন। এলগার আউট হয়েছেন ১১৩ রান করে।

টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে মুশফিককে ভুল প্রমাণ করেন দক্ষিণ আফ্রিকার দুই ওপেনার এলগার ও মার্করাম। প্রথম সেশনে ২৯ ওভার ব্যাটিং করে এই দুজন ১২৬ রান তোলেন। বিরতির পরও দুর্দান্ত খেলছিলেন এই দুজন। চা বিরতির আগে শুভাশিষের বলে বিগ শট হাঁকাতে গিয়ে ফাইন লেগে মোস্তাফিজের হাতে ধরা পড়েন এলগার।

বাংলাদেশের একাদশে চারটি পরিবর্তন এসেছে। ইনজুরির কারণে ছিটকে পড়া তামিম ইকবালের জায়গায় একাদশে ঢুকেছেন সৌম্য সরকার। অন্যদিকে মেহেদী হাসান মিরাজ, তাসনিক আহমেদ এবং শফিউল ইসলামকে বসিয়ে তাইজুল ইসলাম, রুবেল হোসেন ও শুভাশিষ রায়কে একাদশে নিয়েছে বাংলাদেশ।

দক্ষিণ আফ্রিকার একাদশে একটি পরিবর্তন এসেছে। ইনজুরির কারণে ছিটকে পড়া মরনে মরকেলের জায়গায় একাদশে ঢুকেছেন ওয়াইন পারনেল। ২০০৭ সালের পর প্রথমবারের মতো ডেল স্টেইন, ভারনন ফিল্যান্ডার কিংবা মরকেলের মধ্য হতে যেকোনো একজনকে ছাড়া টেস্ট খেলতে নামল প্রোটিয়ারা।

বাংলাদেশ একাদশ: ইমরুল কায়েস, সৌম্য সরকার, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক), সাব্বির রহমান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, লিটন দাস (উইকেটরক্ষক), তাইজুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন ও শুভাশিস রায়।

দক্ষিণ আফ্রিকা একাদশ: ডিন এলগার, এইডেন মার্করাম, টেম্বা বাভুমা, হাশিম আমলা, ফাফ ডু প্লেসিস (অধিনায়ক), কুইন্টন ডি কক (উইকেটরক্ষক), অ্যান্ডিলে ফেলুকওয়ায়ো, কেশব মহারাজ, ক্যাগিসো রাবাদা, ওয়েইন পারনেল ও ডোয়াইন অলিভিয়ে।