আখালিয়া নয়াবাজারের সন্ত্রাসী ফেন্সী জুয়েলের বিরুদ্ধে জমি দখল ও লুটপাটের মামলা – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

আখালিয়া নয়াবাজারের সন্ত্রাসী ফেন্সী জুয়েলের বিরুদ্ধে জমি দখল ও লুটপাটের মামলা

প্রকাশিত: ১:০২ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২২, ২০১৭

আখালিয়া নয়াবাজারের সন্ত্রাসী ফেন্সী জুয়েলের বিরুদ্ধে জমি দখল ও লুটপাটের মামলা

আখালিয়া নয়াবাজারের সন্ত্রাসী ফেন্সী জুয়েল আহমদের বিরুদ্ধে জমি দখল ও লুটপাটের অভিযোগে মামলা হয়েছে। রোববার রাতে জালালাবাদ থানায় এ মামলা করেন আখালিয়া নয়াবাজারের মোহাম্মদিয়া আবাসিক এলাকার বাসিন্দা শামসুর রহমান জাবেদ। জাবেদ অভিযোগ করেছেন, মামলা রেকর্ডের পরদিন সোমবার রাতেও তাদের বাসায় জুয়েল ও তার লোকজন হামলা চালায়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছলে তারা পালিয়ে যায়। এ ঘটনার পর জাবেদ ও তার পরিবারের সদস্যরা নিরাপত্তাহীন অবস্থায় রয়েছেন বলে দাবি করেন তিনি। মামলায় বলা হয়েছে আখালিয়ার নয়াবাজারে জগন্নাথপুরের লন্ডন প্রবাসী দুদু মিয়ার ১৪ শতক ভূমির কেয়ারটেকার হলেন একই এলাকার শামসুর রহমান জাবেদ।

কয়েক মাস ধরে ওই এলাকার ভূমিখেকো চক্রের সদস্যরা নানাভাবে ওই ভূমি দখলে নেয়ার পাঁয়তারা করছিল। এ নিয়ে বেশ কয়েকবার শামসুর রহমান জাবেদকে জমি ছেড়ে দেয়ার হুমকিও দেয়া হয়। এ নিয়ে জাবেদ থানায় একাধিকবার জিডিও করেন। কিন্তু ওই জিডির পরও ১৬ই নভেম্বর রাতে জাবেদের বাসায় হামলা চালায় নয়াবাজার এলাকার আব্দুর রহিম চুনু মিয়ার পুত্র জুয়েল আহমদসহ কয়েকজন। এ সময় তারা জাবেদকে রশি দিয়ে বেঁধে একটি ঘরে বন্দি রাখে। এরপর তারা বাসা লুট করে এবং ভাড়াটিয়াদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে বাসা ছেড়ে চলে যাওয়ার হুমকি দেয়। এদিকে এ ঘটনার পর দুদু মিয়াকে বিষয়টি অবগত করেন জাবেদ। পরে দুদু মিয়ার নির্দেশে রোববার রাতে সিলেটের জালালাবাদ থানায় মামলা করেন জাবেদ। ওই মামলায় জুয়েল ছাড়াও আসামি করা হয়েছে স্থানীয় হাওলাদারপাড়ার নরেন্দ্র হাওলাদারের ছেলে বিপ্লব সুধাংশু হাওলাদারকে। এছাড়া আরো কয়েকজনকে অজ্ঞাত রাখা হয়েছে। এদিকে মামলার পর আরও বেশি ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন জুয়েল আহমদ ও তার লোকজন। তারা সোমবার প্রথমে নগরীর মদিনা মার্কেট এলাকায় জাবেদকে খুঁজতে থাকে। পরে তারা তার নয়াবাজারস্থ বাসায় হামলা চালায়। খবর পেয়ে জালালাবাদ থানার এসআই সুজন তালুকদার ঘটনাস্থলে গেলে তারা পালিয়ে যায়। এসআই সুজন তালুকদার গতকাল জানিয়েছেন, খবর পেয়ে তিনি ওই এলাকায় যান। এ সময় তাকে দেখে সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায়। তিনি বলেন, আসামিদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা করা হচ্ছে। তারা নানাভাবে বাদীকে ভয়ভীতি দেখাচ্ছে বলেও জানান তিনি। এদিকে মামলার আসামি জুয়েল আহমদ গতকাল জানিয়েছেন, ওই ১৪ শতক জমি নিয়ে লন্ডনী দুদুর সঙ্গে তার শ্যালকের দ্বন্দ্ব রয়েছে। ১৫ দিন আগে রাতে ওই জমি দখল পাল্টা দখলের ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে তিনি গিয়ে এতে হস্তক্ষেপ করেন। এখন বিষয়টি সামাজিকভাবে শেষ করার চেষ্টা চলছে। কিন্তু তার আগেই জাবেদ মামলা করায় এলাকায় ক্ষোভ বিরাজ করছে।