আজ বিশ্ব ভালবাসা দিবস – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

আজ বিশ্ব ভালবাসা দিবস

প্রকাশিত: ১২:৩২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০২০

আজ বিশ্ব ভালবাসা দিবস
  • ফুলের বাজারে ‘আগুন’

নিজস্ব প্রতিবেদক:

বাংলা বর্ষপঞ্জিতে সংশোধনের কারণে এখন থেকে বাংলা ফাল্গুন মাসের প্রথম দিন ও আজ বিশ্ব ভালবাসা দিবস। এতোদিন ফেব্রুয়ারি মাসের ১৩ তারিখে ফাল্গুন মাসের প্রথম দিন পালিত হতো, আর ১৪ ফেব্রুয়ারি বিশ্বজুড়ে পালন হতো ভালবাসা দিবস। তবে এখন থেকে দুটি দিবসই বাংলাদেশে একই দিনে পড়বে। গত বছর ২৮ অক্টোবর মন্ত্রিপরিষদের এক বৈঠকে ২০২০ সালের সরকারি ছুটির তালিকার অনুমোদন দেওয়া হয়।

এরপর ৩০ অক্টোবর জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় ছুটির তালিকা প্রজ্ঞাপন আকারে প্রকাশ করে। বাংলা একাডেমির গবেষণা, সংকলন এবং অভিধান ও বিশ্বকোষ বিভাগের পরিচালক মোবারক হোসেন জানান, ১৯৫২ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি, ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ ও ১৬ ডিসেম্বরের মতো ঐতিহাসিক দিবসগুলোর সঙ্গে সঙ্গতি রেখে বাংলা বর্ষপঞ্জিতে সংশোধন আনা হয়েছে।

এ ক্ষেত্রে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম ও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জন্মজয়ন্তীও বিবেচনায় আনা হয়েছে জানান তিনি। সংশোধিত বর্ষপঞ্জি অনুযায়ী, বাংলা বৈশাখ থেকে আশ্বিন পর্যন্ত প্রথম ছয় মাস ৩১ দিন, কার্তিক থেকে মাঘ মাস ৩০ দিন এবং ফাল্গুন মাস ২৯ দিন ধরে গণনা করা হবে। তবে গ্রেগরীয় পঞ্জিকার অধিবর্ষে ফাল্গুন মাস ২৯ দিনের পরিবর্তে ৩০ দিন গণনা করা হবে। সে হিসেবে পহেলা বৈশাখ আগের মতোই ১৪ এপ্রিল থাকবে।

মাঘ মাসের বিদায়। আজ ১৪ ফেব্রুয়ারি শুক্রবার ফাল্গুন মাসের প্রথম দিন। বসন্তের এ আগমনী দিনেই এবার পালিত হচ্ছে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। এ অবস্থায় লাল ও হলুদিয়াসহ নানা রঙের ফুলে সেজেছে নগরের ফুলের দোকান। ফুল কিনতে ভিড়ও শুরু হয়ে গেছে। চাপ বেশি হওয়ায় বিক্রেতারা ফুলের দামও বাড়িয়ে দিয়েছেন তিনগুণ, অভিযোগ ক্রেতাদের।

বৃহস্পতিবার নগরীর চৌহাট্ট ও জিন্দাবাজার ফুলের আড়ত ও দোকান ঘুরে দেখা যায়, খুচরা বিক্রেতারা ফুলের মালা তৈরি করছেন। তৈরি মালা ও গোলাপসহ বিভিন্ন জাতের ফুল বিক্রি করছেন। অনেকে আজকেই বাসন্তী রঙের শাড়ি পড়ে ফুলের দোকানে আসছেন, ফুল কিনছেন। এক ক্রেতা বলেন, ভালবাসা দিবস ও বাড়িতে বিয়ে উপলক্ষে ফুল কিনতে এসেছিলাম। আগে ফুলের যে দাম ছিল, তারচেয়ে দুই থেকে তিনগুণ বেমি দাম চাচ্ছেন দোকানদাররা। সেজন্য একটু হিমশিম খাচ্ছি, ফুল কীভাবে কিনব। কারণ, যে বাজেট ছিল, তাতে কুলাচ্ছে না। তারপরও কিছু করার নেই। অল্প হলেও ফুল নিতে হবে। ফুলের দোকানদার বলছেন, শুক্রবার বসন্তবরণ ও ভ্যালেন্টাইনস ডে। এদিন অনেক কিছুর প্রয়োজন হবে।

তবে স্বাভাবিকের চেয়ে ফুলের দাম আজকে অনেক বেশি। কোনো কোনো সময় ১০০টি লাল গোলাপ পাইকারিতে ৩০০ থেকে ৪০০ টাকায় পাওয়া যায়। আজকে ১০০টি গোলাপ মানভেদে ৮০০, ১০০০, ১,২০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আগামীকাল পর্যন্ত এরকম চড়া দাম থাকবে। তারপর আবার স্বাভাবিক হয়ে যাবে। ফুলের দাম বেশি হলেও তেমন ক্রেতা মিলছে না বলে দাবি করেন এক খুচরা বিক্রেতা। তিনি বলেন, গত বছরের তুলনায় এবার ফুল কম বিক্রি হচ্ছে। তবে ফুল বিক্রির প্রকৃত পরিস্থিতি বোঝা যাবে শুক্রবার।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল