আতাউর রহমান আতা’র আলোচিত ছবি এবং আমি অজয় পাল – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

আতাউর রহমান আতা’র আলোচিত ছবি এবং আমি অজয় পাল

প্রকাশিত: ১০:৩২ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৮, ২০২০

আতাউর রহমান আতা’র আলোচিত ছবি এবং আমি অজয় পাল
আতাউর রহমান আতা’র আলোচিত ছবি এবং আমি
দীর্ঘ চৌদ্দ বছরেরও বেশি সময় হবে , সিলেটের নন্দিত এবং প্রবীণ চিত্রগ্রাহক , আমার অত্যন্ত প্রিয়ভাজন আতাউর রহমান আতার সাথে আমার কোনো যোগাযোগ নেই । অথচ এই আতাই ছিলো আমার সাংবাদিকতা জীবনে একসময় সার্বক্ষণিক ছায়াসঙ্গী । যেখানে আমি , আতা ছিলেন সেখানেই । অনেকেই বলতেন , আমরা না কি সাংবাদিকতার মানিকজোড় । অথচ এই আমার সাথেই তার দীর্ঘদিন যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন ! তবে কি আমার উপর অভিমান করে আছে আতা? অভিমান করতেই পারে। কারণ , সে আমাকে কতটুকু আস্থায় রাখে , সে প্রমাণ আমি অতীতে বহুবার পেয়েছি । আমার স্পষ্ট মনে আছে , এই দীর্ঘ সময়ের মাঝপথে একবার কিছু তথ্য জানতে চেয়ে তাকে চিঠি লিখেছিলাম । সে নিষ্ঠার সাথে তার দায়িত্ব পালন করেছে । অথচ তার সাথে যোগাযোগ রাখতে ভুল করেছি আমিই ।
সেই সাদা কালো ছবির আমল থেকে রঙিন ছবির সময় পর্যন্ত আমার নির্ভর করার মতো চিত্রগ্রাহক আতাউর রহমান আতা । সংবাদপত্রের ফটো সাংবাদিকতায় আমি প্রায় জোর করেই তাকে নিয়ে এসেছিলাম । আতা সেই সত্যটি এখনো অকপটে স্বীকার করে । সিলেটের যুগভেরী , সিলেট সমাচার , সিলেট বাণী ও দেশবার্তা সহ জাতীয় দৈনিক বাংলার বাণী , সংবাদ ও দৈনিক বাংলাবাজার ছাড়াও লন্ডন ও কানাডার বিভিন্ন পত্রিকায় আমার রিপোর্ট – এর সাথে অজস্র ছবি সরবরাহ করেছে আতা । সেই সংখ্যা হাজারের কম হবে না । সর্বাধিক ছবি ছাপা হয়েছে বাংলাবাজার পত্রিকায় । প্রতিদিন এই পত্রিকার বিভিন্ন পাতায় কমপক্ষে সাত / আটটি ছবি ছাপা হতো ।
আতা তার ফটো সাংবাদিকতা জীবনে অনেক আলোচিত ছবি তুলেছে । ছবিগুলো পাঠক মহলে বেশ প্রশংসাও অর্জন করে । আমি এখানে তার তোলা তিনটি উল্লেখযোগ্য ছবির কথা নিয়ে আলোচনা করব , কারণ এই ছবিগুলোর সাথে আমারও কিছু সংশ্লিষ্টতা ছিল। তবে এই তিনটি ছবির একটি এখন আর আমার সংগ্রহে নেই ।
‘৯৬ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রাক্কালে বঙ্গবন্ধু তনয়া শেখ হাসিনা সিলেটে হযরত শাহজালাল (রা:)-এর মাজার জিয়ারতের মাধ্যমে নির্বাচনী কার্যক্রম শুরু করতে আসেন ১৪মে । মাজারে জিয়ারত করছেন শেখ হাসিনা , এমন কয়েকটি ছবি ধারণ করেন আতাউর রহমান আতা । আমি এসব ছবি থেকে বাছাই করে একটি ছবি বাংলাবাজার পত্রিকায় পাঠাই । পরদিন প্রথম পৃষ্ঠায় এই ছবিটি ছাপা হয় । আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নির্বাচন পরিচালনা কমিটির নজরে পড়ে ছবিটি । তারা এই ছবিটি সংগ্রহ করে কেন্দ্র থেকে প্রকাশিত পোস্টারে সংযোজন করে । ছবিটি গোটা দেশে তখন শেখ হাসিনা এবং আওয়ামী লীগের অনুকূলে একটি ইতিবাচক প্রভাব ফেলে । নির্বাচনে আওয়ামী লীগ নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে । নির্বাচন পরবর্তীকালে একবার শেখ হাসিনা সিলেট সফরে এলে সেই ছবির সূত্র ধরে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতারা আতাউর রহমান আতা -কে শেখ হাসিনার সামনে নিয়ে আসেন । ছবিটির একটি বড়সড়ো কপি আতা ফ্রেমবন্দি করে জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতে তুলে দেন । শেখ হাসিনা সেদিন মাথায় হাত রেখে আতাকে আশীর্বাদ করেন ।
‘৯৩ সালের ঘটনা। তৎকালীন ইনকিলাব পত্রিকার সিলেট অফিসে বসে আছি । এমন সময় বেতার শিল্পী রুমেল জানালো , নগরীর কুয়ারপাড়ে তাদের ভাড়া বাসায় একটি বিড়াল সন্তান প্রসবের পর মারা যায় । তিনটি বাচ্চা , তাদের দেখা – শোনার কেউ নেই । এই বাড়িতেই একটি গাছে একটি বানর থাকতো। বানরটি রোজ সকালে গাছ থেকে নেমে এসে বিড়াল ছানাদের কোলে তুলে নিয়ে দীর্ঘ সময় ধরে আদর করে । খবরটি শোনার পর আমি আতার সহকর্মী দুলালকে ছবি তুলতে পাঠাই । দুলাল ছবি আনলেও সেটা ছিলো ডার্ক । পরদিন সকালে গিয়ে ছবি তুললো আতা । চমৎকার ছবি । এরই মধ্যে বাংলাদেশ ফটোগ্রাফিক সোসাইটি ” মাতৃত্ব ” শিরোনামে একটি জাতীয় ভিত্তিক সাদাকালো ছবির প্রতিযোগিতা আহ্বান করে বসে । আতা আমার অনুরোধে এই ছবিটি প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণের উদ্দেশ্যে প্রেরণ করে । প্রতিযোগিতায় দেশের খ্যাতনামা বহু আলোকচিত্রী অংশ নেন । কিন্তু আতার ছবিটিই শ্রেষ্ঠ ছবির মর্যাদা লাভ করে । পুরস্কার ঘোষণার পরদিন বাংলাবাজার পত্রিকার প্রথম পৃষ্ঠায় ছাপা হয়েছিল ছবিটি ।
আরো একটি ছবি । সালটা মনে পড়ছে না । সিলেটের বিভিন্ন উপজেলা বন্যাকবলিত । আতাকে নিয়ে রিপোর্টিংয়ে বেরোলাম । হঠাৎ লক্ষ্য করলাম ,সদর উপজেলার সিলামের কাছে ডুবন্ত একটি বসতবাড়ির কেবল চালাটুকুই দেখা যাচ্ছে । আর চালার উপর বসে মধ্যবয়সী একজন মানুষ নামাজ পড়ছেন । আতাকে বললাম ঝটপট ছবিটি তুলে ফেলতে । আতা তাই করলেন । পরদিন ছবিটি বাংলাবাজার পত্রিকার প্রথম পৃষ্ঠায় চার কলামে ছাপা হয়েছিল । প্রশংসিত হয়েছিল ছবিটি ।
এমন বহু প্রশংসিত ছবি তুলেছে আতা । তার কোনো ছবিকেই আমি খাটো করে দেখছি না । আমি চাই , আতা এখনো ছবি তুলবে । আগের মতোই তার ছবি আরো প্রশংসিত হবে । অনুপ্রাণিত হবে বর্তমান প্রজন্মের ফটো সাংবাদিকরা । এটাই আমার কাম্য।
সিলেটের মাজারে মোনাজাত করছেন শেখ হাসিনা । বানরের কোলে মাতৃহীন বিড়াল ছানা এবং আমার সাথে সেই আতাউর রহমান আতা ।
সংগৃহিত : অজয় পালের ব্যবহারিত ফেইসবুক থেকে।