আ.লীগ নয়, জাতির সঙ্গে ঐক্য গড়ুন: বিএনপি – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

আ.লীগ নয়, জাতির সঙ্গে ঐক্য গড়ুন: বিএনপি

প্রকাশিত: ৪:৫২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৬, ২০১৭

আ.লীগ নয়, জাতির সঙ্গে ঐক্য গড়ুন: বিএনপি

আওয়ামী লীগের সঙ্গে ঐক্য গড়ে চলমান রোহিঙ্গা সংকটের সমাধান হবে না জানিয়ে সংকট উত্তরণে জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে দলের নেতাকর্মী তথা দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে বিএনপি। দলটির ভাইস-চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান বিএরপির পক্ষ থেকে এ আহ্বান জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা আগেই বলেছি রোহিঙ্গা সংকট ত্রিমুখী সমস্যা। এ সমস্যা সমাধানে আওয়ামী লীগের সঙ্গে ঐক্য করে কোনও লাভ নেই। এজন্য জাতীয় ঐক্য গড়ে তুলতে হবে। দেশবাসীকে একবিন্দুতে মিলিত হতে হবে।’

মঙ্গলবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবের হলরুমে বাংলাদেশ ইয়ূথ ফোরাম আয়োজিত ‘বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া ও সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান তারেক রহমানের দশম কারামুক্তি দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

সরকারের উদ্দেশ্যে নোমান বলেন, ‘আমরা সরকারকে স্পষ্ট করে বলে দিতে চাই বিএনপি তাদের (আওয়ামী লীগ) সঙ্গে আলোচনা করতে চায় না। রোহিঙ্গা সংকট নিয়ে জাতির সঙ্গে ঐক্য করতে চায় বিএনপি। সেই ঐক্যে আওয়ামী লীগ আসুক বা না আসুক।’

তিনি আরও বলেন, ‘রোহিঙ্গা সমস্যা সহজে সমাধান হবে না। এই সমস্যার সমাধান আন্তর্জাতিক পর্যায়ে হতে হবে। দ্বিপক্ষীয়ভাবে এটি সম্ভব নয়। কিন্তু সরকার বিশ্ববাসীর কাছে রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের অবস্থান তুলে ধরতে ব্যর্থ হয়েছে। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে কোনও প্রস্তাব গ্রহণ করা হয়নি।’

নির্যাতিত রোহিঙ্গাদেরকে সরকার প্রথম দিকে বাংলাদেশ সীমান্তে ঢুকতে দেয়নি এমন অভিযোগ করে বিএনপির সিনিয়র এই নেতা বলেন, ‘মিয়ানমার সরকার একদিকে অসহায় মুসলমান রোহিঙ্গাদেরকে গুলি করে তাদের দেশ থেকে তাড়িয়ে দিচ্ছে, অপরদিকে বাংলাদেশ সরকার প্রথম দিকে তাদেরকে পুশব্যাক করেছে। ফলে অনেক রোহিঙ্গাকে সাগরেই জীবন দিতে হয়েছে। এর দায়ভার কোনও একদিন এই সরকারকেই নিতে হবে।’

দেশে নীরব দুর্ভিক্ষ চলছে দাবি করে সাবেক এই খাদ্যমন্ত্রী আরও বলেন, ‘চালের দাম অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। এটি এখন আর জনগণের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে নেই। বিএনপি যখন ক্ষমতায় ছিল চালের দাম প্রতি কেজি মাত্র ১৬ টাকা হওয়ার পরও তারা (আওয়ামী লীগ) আন্দোলন করেছে। কিন্তু এখন জনগণ কোনও কথা বলতে পারে না। কারণ দেশে একটি অব্যাহত অরাজক পরিস্থিতি চলছে।’

একটি গণতান্ত্রিক সরকারই কেবলমাত্র এই পরিস্থিতি থেকে দেশকে রক্ষা করতে পারে বলেও দাবি করেন তিনি।

প্রধান আলোচকের বক্তব্যে বিএনপির আরেক ভাইস-চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন ১০ টাকা সের চাউল খাওয়ানোর কথা বলেছিলেন তখন বিএনপির আমলে ১৬ টাকা চালের মূল্য ছিলো। তিনি সেখান থেকে ৬ টাকা কমিয়ে ১০ টাকা করার কথা বলেছিলেন। কিন্তু এখনতো ৭০-৮০ টাকা কেজি। বিএনপি সরকারে থাকাকালে বর্তমান প্রধানমন্ত্রী খাদ্য নিরাপত্তার কথা বলেছিলেন। সমস্যা হচ্ছে- প্রধানমন্ত্রী যা বলেন তা তিনি করেন না, আর তিনি যা করেন তা কখনও বলেন না।’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বাংলাদেশে চলমান অপশাসনের একমাত্র দায়ি ব্যক্তি ও সমস্ত সংকটের মূল কারণ আখ্যা দিয়ে দুদু আরও বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী যদি সরে যান, পদত্যাগ করেন তিনি যদি ছুটি নেন তাহলে দেশে একটি ভালো নির্বাচন সম্ভব। তিনি যদি সত্য বলতেন তাহলে দেশে গুম, খুন এতো হতো না।’

সরকার পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে অবস্থার পরিবর্তনের ইঙ্গিত দিয়ে দলের এই শীর্ষ নেতা বলেন, ‘সকল কিছুর মুক্তি আসবে যদি বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে দেশে আবারও গণতান্ত্রিক সরকার প্রতিষ্ঠা করা যায়। দেশনেত্রী বেগম জিয়া কখনও প্রতিহিংসার রাজনীতি করেননি, করবেনও না। তারেক রহমানকে দেশে আসতে দিন। সে যদি খারাপ করে জনগণই তার বিচার করবে। আওয়ামী লীগ যদি খারাপ করে জনগণ তারও বিচার করবে। কিন্তু আপনি আইনের মারপ্যাঁচে যেটা করছেন সেটা কিন্তু ঠিক না। এ দেশের স্বৈরাচারের আলটিমেট টিকে থাকার কোনও রেকর্ড নেই। ফ্যাসিবাদের পতন অনিবার্য।’

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংগঠনের উপদেষ্টা ও কেন্দ্রীয় কৃষক দল নেতা মো.মাইনুল ইসলাম। তিনি তার বক্তব্যে চলমান রোহিঙ্গা সংকট উত্তরণে দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানানোর পাশাপাশি বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশকে গণতান্ত্রিক ধারায় পরিচালিত করতে সরকারকে জনবান্ধব-গণতন্ত্রমুখী নীতি গ্রহণেরও পরামর্শ দেন।

সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মাদ সাইদুর রহমানের সঞ্চালনায় সভায় আরও বক্তব্য দেন- বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মো: রহমত উল্লাহ, জাসাসের সহ-সভাপতি শাহরিয়ার ইসলাম শায়লা, বংশাল থানা কৃষক দলের সভাপতি আব্দুর রাজী ও কোতয়ালি থানা কৃষক দলের সভাপতি মো: মোফাজ্জল হোসেন হৃদয় প্রমুখ।