একজন মানবিক ছাত্রনেতা ফারহান সাদিক’র গল্প : রুপক – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

একজন মানবিক ছাত্রনেতা ফারহান সাদিক’র গল্প : রুপক

প্রকাশিত: ৫:১৫ অপরাহ্ণ, জুন ৮, ২০২০

একজন মানবিক ছাত্রনেতা ফারহান সাদিক’র গল্প : রুপক
রুপক আহমদ
আজ যার গল্প বলতে যাচ্ছি তিনি আমার রাজনৈতিক আইডল এ.এম. ফারহান সাদিক ভাই। শিক্ষা, শান্তি ও প্রগতির পতাকাবাহী সংগঠন, জাতির মুক্তির স্বপ্নদ্রষ্টা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হাতে গড়া, জীবন ও যৌবনের উত্তাপে শুদ্ধ সংগঠন, সোনার বাংলা বিনির্মাণের কর্মী গড়ার পাঠশালা বাংলাদেশ ছাত্রলীগের একজন সফল ছাত্রনেতা। বিদ্যার সঙ্গে বিনয়, শিক্ষার সঙ্গে দীক্ষা, কর্মের সঙ্গে নিষ্ঠা, জীবনের সঙ্গে দেশপ্রেম এবং মানবীয় গুণাবলির সংমিশ্রণ ঘটিয়ে এগিয়ে চলেছেন দুর্বার গতিতে।
তিনি শুধু একজন দক্ষ সংগঠক এটা মূল পরিচয় নয়। একজন মানবিক ছাত্রনেতার হিসেবে সিলেটের রাজনীতিতে সর্বমহলে সমাদৃত । ২০০৭ সালে শেখ রাসেল শিশু কিশোর পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হয়ে যাত্রা শুরু করে একে একে হাটি হাটি পা পা করে আজ ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক।
দায়িত্ব পালন করেছেন সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সদস্য, ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহবায়ক, ফেঞ্চুগঞ্জ সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সহ বিভিন্ন মেয়াদে বিভিন্ন সময়।বর্তমানে যার সৃজনশীল নেতৃত্ব গুনে সিলেট বিভাগের মধ্যে সবচেয়ে সচল ও সফল ইউনিটে পরিনত হয়েছে ফেঞ্চুগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগ ।ফেঞ্চুগঞ্জ ছাত্র সমাজের অহংকার তিনি।
একজন ক্লিন ইমেজের ছাত্রনেতা হিসেবে ফেঞ্চুগঞ্জের সর্ব মহলে পরিচিত তিনি। সাংগঠনিক দক্ষতায় নিজেকে নিজেই ছাড়িয়ে গেছেন বহুবার।
কর্মীদের ইতিবাচক রাজনীতিতে অনুপ্রেরণা যুগিয়েছেন, সম্ভাবনাময় আগামীর স্বপ্ন দেখিয়ে যাচ্ছেন। ছাত্রলীগের হারানো গৌরব পুনরুদ্ধার করতে ও দেশ-জাতির প্রভূত কল্যাণে যার শরীরের শেষ রক্ত টুকু দিতেও বিন্দু মাত্র সংকোচ বোধ নেই তিনিই হলেন ফারহান সাদিক।ফেঞ্চুগঞ্জ তথা সিলেটের পথে প্রান্তরে যাকে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন পরিচয়ে মানুষের কাছে যেতে দেখেছি।রাজপথে জয় বাংলার হুংকারে সকল অপশক্তির বিরুদ্ধে তার অবস্থান ছিলো সব সময়। সংগঠনের প্রয়োজনে রাত দিনের পার্থক্যকে উপেক্ষা করে কাজ করে যাচ্ছেন। জাতীয় নির্বাচন থেকে স্থানীয় নির্বাচন সব সময়ে নৌকার প্রার্থীর পক্ষে দিন রাত কাজ করে গেছেন। একজন বিনয়ী ছাত্রনেতা ফারহান সাদিক ভাইয়ের আচার ব্যবহারে আকৃষ্ট হয়ে শত শত সাধারণ ছাত্র নিজ ইচ্ছায় ছাত্রলীগে যোগ দিচ্ছে।প্রত্যেকটা কর্মীর বিপদ আপদে সবার আগে পাশে পায় উনাকে। তাই তো প্রত্যেকটা পরিবারের অভিভাবক নিজের সন্তানকে একজন ফারহান সাদিকের সাথে রাজনৈতিক কিংবা সামাজিক কাজে যেতে বাধা প্রদান করেন না।
আপনি যদি এই সিলেট বিভাগের মধ্যে সবচেয়ে পরিশ্রমী ছাত্রনেতা খুঁজেন তাহলে এই ফারহান সাদিকের নাম সবার উপরে পাবেন।
আজ বিশ্ববাসী মরনব্যধি করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। সবাই যখন নিজেকে নিরাপদ রাখার জন্য ঘরবন্দী থাকছে, তখন তিনি জীবনের মায়া ত্যাগ করে ঘর ছেড়ে মানুষের সেবায় নিজেকে উজার করে দিয়ে যাচ্ছেন।কখনও ভাইরাস প্রতিরোধক কিটনাশক ছিটিয়ে গেছেন ফেঞ্চুগঞ্জের হাটবাজার, রাস্তাঘাটে।কখনো সাধ্যমত খাবার নিয়ে এগিয়ে গিয়েছেন গরীব ও অসহায় মানুষের দ্বারে দ্বারে,
কখনো করোনা প্রাদুর্ভাবে শ্রমিক সংকটে থাকা কৃষকের ধান কেটে দিয়ে বাড়িতে পৌছে দিয়েছেন।
কখনো সামনে থাকা ক্ষুদার্তকে ক্ষুদা নিবারনের চেষ্টা করেছেন।
কখনো সাধ্যমতো বস্ত্রহীন মানুষকে বস্ত্রের যোগান দিয়েছেন।
একদিন করোনার আধার কেটে গিয়ে নতুন সূর্যদয় হবে। একজন ফারহান সাদিকের নাম মানুষের হৃদয়ে লিখা থাকবে স্বর্নাক্ষরে।
এমন একজন ছাত্রনেতার সংস্পর্শ পাওয়া সত্যিই ভাগ্যের ব্যাপার। আপনার সুসাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করি প্রিয় নেতা।
শুভ কামনায়-
রুপক আহমেদ
সাধারণ সম্পাদক
ফেঞ্চুগঞ্জ সদর ইউনিয়ন ছাত্রলীগ।
[ একটি লেখনি]
বার্তা যোগাযোগ মুহাম্মদ হাবিলুর রহমান জুয়েল ]

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল