এদেশের মানুষ না খেয়ে থাকবে না : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

এদেশের মানুষ না খেয়ে থাকবে না : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

প্রকাশিত: ১১:২৫ পূর্বাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৭, ২০১৬

এদেশের মানুষ না খেয়ে থাকবে না : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

3প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর দেখানো পথেই দেশ থেকে দারিদ্র দূর করতে কাজ করছে তার সরকার। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে এ দেশের মানুষ না খেয়ে থাকবে না।

বুধবার কুড়িগ্রামে ‘খাদ্য বান্ধব’ কর্মসূচির উদ্বোধন করার আগে এক সমাবেশে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। এরপর হতদরিদ্রদের মাঝে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ করে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন তিনি।

খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির উদ্বোধনকে ঘিরে সকাল থেকেই চিলমারীর থানাহাট, এইউআই ও পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ভিড় করেন স্থানীয়রা। কর্মসূচির আওতায় হতদরিদ্রদের মাঝে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

উদ্বোধনী বক্তব্য প্রধানমন্ত্রী তার সরকারের নেয়া বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরেন। তিনি বলেন, এদেশে আর কেউ না খেয়ে থাকবে না।

মানুষের জন্য কাজ করার অঙ্গীকার জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘রাজনীতি করি কাদের জন্য? আপনাদের জন্য। দেশের মানুষ যেন কষ্টে না থাকে সেজন্য।’1

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমার একটা প্রতিজ্ঞা ছিল… সুযোগ পেলে বাংলাদেশের মানুষের ক্ষুধা-দারিদ্র দূর করার জন্য কাজ করব। তাতে জাতির পিতার আত্মা শান্তি পাবে। আমরা দুঃস্থদের সাহায্য দিচ্ছি। কিন্তু দুঃস্থ মানুষ, দুঃস্থ থাকুন সেটা আমরা আর চাই না। সেটা থেকে মুক্ত মিলছে এখন।’

কুড়িগ্রামসহ বৃহত্তর রংপুর এলাকায় উন্নয়নের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা বলতে চাই, এ অঞ্চলে আর কোনো দুর্ভিক্ষ হবে না, মঙ্গা হবে না কেউ না খেয়ে দুঃখে কষ্টে থাকবে না। পাশাপাশি মানুষের স্বাস্থ্যসম্মত শৌচাগার, বিশুদ্ধ পানির ব্যবস্থার জন্য সব ধরনের পদক্ষেপ নিয়েছি।’

প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের ভাবমূর্তি নষ্ট করতে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদে উস্কানি দিচ্ছে বিএনপি- জামায়াত। জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে সবাইকে সজাগ থাকার আহ্বান জানান তিনি।

সন্তানরা কোথায় যায়, কি করে, কার সঙ্গে মেলামেশা করে সেদিকে বাবা-মা, স্কুল-কলেজের শিক্ষকসহ সবাইকে খোঁজ খবর রাখার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী।

তিনি বলেন, আপনারা দেখেছেন, আগে সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, মাদক ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছিল। বিএনপি-জামায়াতের সরকার মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ সৃষ্টি করছিল। আমরা সরকার গঠন করে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ কঠোর হাতে দমন করি। কিন্তু কয়েকটি ঘটনা পর পর ঘটে যায়, যা বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ করে। সঙ্গে সঙ্গে আমরা ব্যবস্থা নেই। বাংলাদেশ বিশ্বের একমাত্র দেশ যেখানে মাত্র ১০ ঘণ্টার মধ্যে আমরা জঙ্গি দমন করে জিম্মিদের উদ্ধার করেছি।

2আমাদের ছেলে-মেয়েরা কম্পিউটার শিখবে। সবাইকে ভালোভাবে পড়াশুনা করে মানুষের মতো মানুষ হতে হবে, যোগ করেন প্রধানমন্ত্রী।

২০২১ সালের মধ্যে এদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করার প্রতিশ্রুতি আবারো পুর্নব্যক্ত করেন প্রধানমন্ত্রী।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘বাংলাদেশে কোনো মানুষ যেন দরিদ্র না থাকে… বাংলাদেশ উন্নত হবে, সমৃদ্ধ হবে- সে লক্ষ্যে আমরা এই কর্মসূচি চালু করেছি।’

অনুষ্ঠানে আরো বক্তৃতা করেন পংকজ দেবনাথ এমপি, রুহুল আমিন এমপি, এটিএম মাইদুল ইসলাম এমিপি, কুড়িগ্রাম জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি আমিনুল ইসলাম মঞ্জু, সাধারন সম্পাদক এম জাফর আলম, চিলমারী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আবদুস কুদ্দুস সরকার।

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল