এমসি কলেজের ধর্ষকদের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচার দাবি – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

এমসি কলেজের ধর্ষকদের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচার দাবি

প্রকাশিত: ১১:৪৬ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০

এমসি কলেজের ধর্ষকদের দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচার দাবি

অনলাইন ডেস্ক :

সিলেটের ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠ এমসিতে গৃহবধূকে গণধর্ষণের সাথে জড়িত সকল আসামিকে গ্রেপ্তার ও মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে বিচারের দাবি জানিয়েছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট। সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টায় নগরের কোর্ট পয়েন্টে সংগঠনটির সমাবেশ থেকে এ দাবি জানানো হয়। এরআগে শহীদ মিনার থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভ মিছিল শহর প্রদক্ষিণ করে।

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ছাত্র ফ্রন্টের নগর শাখার সভাপতি সঞ্জয় কান্ত দাস। সাধারণ সম্পাদক সাদিয়া নোশিন তাসনিমের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন নগর শাখার দপ্তর সম্পাদক পলাশ কান্ত দাশ, প্রচার সম্পাদক নিশাত কর সানি, মদনমোহন কলেজ শাখার সংগঠক সাকিব রানা প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের ঘটনায় আমরা নিন্দা জানাচ্ছি। ঐতিহ্যবাহী ক্যাম্পাসের মতো স্থানে এই ধরণের ঘটনা গোটা জাতিকে স্তম্ভিত করেছে। এই গণধর্ষণের ঘটনায় সারাদেশের মতো আমরাও মর্মাহত। কলেজ প্রশাসনের দায়হীন মন্তব্যেও আমরা ক্ষুব্ধ। দীর্ঘদিন থেকেই এমসি কলেজে ক্যাস্পাসে ও ছাত্রাবাসে ক্ষমতাসীদের ছত্র ছায়ায় দখলদারিত্ব চলছে। এসব বিষয়ে কলেজ প্রশাসনও দায় এড়াতে পারে না।

বক্তারা আরও বলেন, বিগত সময়ের দিকে তাকলেও আমরা দেখতে পাই যে এমসি কলেজে দলীয় কোন্দলে বহুসংখ্যক হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে, ছাত্রাবাস পুড়নোর, খদিজাকে কুপিয়ে আহত করা ইত্যাদি ঘটনায় যুক্ত থাকার ব্যপারে যাদের নাম এসেছে, তারা প্রায় প্রত্যেকেই বাংলাদেশ ছাত্রলীগের রাজনীতির সাথে ছিলেন। কিন্তু কোনো ঘটনারই সুষ্ঠু বিচার হয় নি। এসব কোনো ঘটনার বিচার না হওয়াই এসব সন্ত্রাসীদের গণধর্ষণের মত পৈশাচিক ঘটনা ঘটানোর সাহস যুগিয়েছে। আবার তুমুল প্রতিবাদ হলে খুন-ধর্ষণ-নিপীড়নের মত অনেক ঘটনায় জড়িতদের গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর বড়জোর কিন্তু বিচার হওয়া বা শাস্তি পাওয়ার মত কোনো উদাহরণ আমরা দেখি না। তাই এমসিতে ঘটে যাওয়া এই ঘৃণ্য ঘটনায়ও চিহ্নিত আসামিদের গ্রেপ্তার করা হলেও বিচার হওয়া নিয়ে আমরা উদ্বিগ্ন। আমরা ঘটনার সাথে সকল জড়িতদের গ্রেপ্তার ও দ্রুতবিচার ট্রাইবুনালে বিচার দাবি করছি।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গিয়ে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হন এক গৃহবধূ। রাত সাড়ে ৮টার দিকে এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে বেঁধে রেখে ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় কলেজের সামনে তার স্বামীকে আটকে রাখে দুজন। এ ঘটনায় সেদিন রাতেই ধর্ষণের শিকার গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে সিলেটের শাহ পরান থানায় ছয় জনের নাম উল্লেখ করে এবং অজ্ঞাত তিন জনকে সহযোগী হিসেবে উল্লেখ করে একটি মামলা দায়ের করেন। এই ঘটনায় সোমবার পর্যন্ত ৬জনকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল