ঐতিহাসিক ৮ ফেব্রুয়ারীর মামলায় জামিন পেলেন… – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

ঐতিহাসিক ৮ ফেব্রুয়ারীর মামলায় জামিন পেলেন…

প্রকাশিত: ৩:৩৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০১৮

ঐতিহাসিক ৮ ফেব্রুয়ারীর মামলায় জামিন পেলেন…

ঐতিহাসিক ৮ ফেব্রুয়ারী দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী ও দেশমাতা খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছরের কারান্ড দিয়েছে ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫ এর বিচারক ড. আখতারুজ্জামান। ঐদিন সিলেটে তান্ডবে মেতে উঠে ক্ষমতাসীন দলের নেতাকর্মীরা তারা বিদেশী ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বিএনপি ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ধাওয়া করে যা সিলেটবাসী প্রকাশ্যে অবলোকন করেন এবং বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়। দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার সাজা হওয়ার পর সিলেটের বন্দর বাজারে সংঘর্ষের ঘটনায় বিএনপি-ছাত্রদলের প্রায় ২০০ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পরের দিন শুক্রবার (৯ ফেব্রুয়ারী) সকালে উপ-পরিদর্শক (এসআই) অনুপ চৌধুরী বাদী হয়ে সিলেট কোতোয়ালী মডেল থানায় এ মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় ৫৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরো ১৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সংঘর্ষে পরই আটক হওয়া জাহিদুল ইসলাম, আল আমিনকে এই মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে।
আজ রবিবার (১৮ফেব্রুয়ারী) হাইকোর্টের বিচারক এম এনায়েতুর রহমান ও শহীদুল করিমকে নিয়ে গঠিত বেঞ্চ আসামীদের পক্ষে জামিন আবেদন করেন এডভোকেট কামরুজ্জামান সেলিম।
এসময় আদালত আসামীদের ৬ সাপ্তাহের আন্তবর্তীকালিন জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। জামিন পেয়েছেন সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম, সিনিয়র সহ-সভাপতি আব্দুল কাইয়ুম জালালী পংকী, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, সহ-সভাপতি শেখ মখন মিয়া, সহ-সভাপতি, শাহ জামাল নুরুল হুদা, মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি আরেফিন গনি জিল্লুর, আবুল ফাতাহ বকশী, মহানগর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ইমদাদ হোসেন চৌধুরী, মাহবুব কাদির শাহী, হুমায়ুন আহমদ মাসুক, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুব চৌধুরী, জেলা বিএনপির ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক শাকিল মোর্শেদ, রুমেল সাহা, আক্তার আহমদ, এমদাদুল হক স্বপন, সৈয়দ সারওয়ার রেজা, আফসর খান, আনোয়ার হোসেন রাজু, মাসুদ গাজী, মুহিত, সজিব, রাসেল।
প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার (৮ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় খালেদা জিয়ার সাজার রায় ঘোষণার পর বিকালে বিএনপি নেতাকর্মীরা আদালত এলাকা থেকে মিছিল বের করলে পুলিশ বাধা দেয়। এসময় বিএনপি-আওয়ামী লীগ ও পুলিশের ত্রিমুখী সংঘর্ষ এবং ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে অন্তত ১৫ জন আহত হন। এসময় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ১৫৫ রাউন্ড গুলি ছুঁড়েছে পুলিশ। আটক করা হয় বিএনপির ৪ জন নেতা-কর্মীকে। এ সময় পুলিশের একটি পিকআপ ভ্যানসহ বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাংচুরও করা হয়।