কথা রাখলেন বেগম খালেদা জিয়া – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

কথা রাখলেন বেগম খালেদা জিয়া

প্রকাশিত: ১:৩৮ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২১, ২০১৭

কথা রাখলেন বেগম খালেদা জিয়া

নব্বইয়ের উত্তাল আন্দোলনের বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সেই বিপ্লবী রূপ আরেকবার দেখা গেল রাজধানীর রাজপথে।আজ বুধবার (২০ ডিসেম্বর) হাইকোর্টের মাজার গেট এলাকায় পুলিশ যখন নির্মম কায়দায় দলটির কর্মী ও সমর্থকদের ধড়পাকড় এবং হাইকোর্টের ভেতরে পরিকল্পিতভাবে আটকিয়ে রেখে গেটে তালা মেরে রাখছিল তা দেখে খালেদা জিয়া গাড়ি নেমে পড়েন। তিনি পুলিশকে সাফ জানিয়ে দেন কর্মীদের ছাড়া না হলে তিনি সেখান থেকে এক পা’ও নড়বেন না।

এসময় নেতাকর্মীরা মহুর্মুহু স্লোগান দেন। বাধ্য হয়ে পুলিশ নেতাকর্মীদের ছেড়ে দেন। নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়েই বেগম খালেদা জিয়া গুলশানের বাসার উদ্দেশ্যে রওনা হোন। এর আগে খালেদা জিয়ার দুই মামলার বিচার কাজ চলা ঢাকার বকশীবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত ঢাকার ৫নং বিশেষ জজ আদালত এবং হাইকোর্টের মাজার গেট এলাকায় ব্যাপক ধরপাকড় চালায় পুলিশ। সেখান থেকে বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের প্রায় ৩০ জনের অধিক নেতাকর্মীকে আটকের খবর পাওয়া গেছে।

এর আগে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে দুই মামলায় হাজিরা দিতে আদালতে যাচ্ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। এসময় তাঁর গাড়িবহরে বিএনপি ও এর অঙ্গ সংগঠনের বিপুল নেতাকর্মী সঙ্গে ছিলেন। সকাল পৌনে ১১টার দিকে খালেদা জিয়ার গাড়িবহর হাইকোর্টের মাজার গেট অতিক্রমকালে ১২ জন নেতাকর্মীকে আটক করে পুলিশ। এরপর কয়েক দফা অভিযান চালায় পুলিশ।

নেতাকর্মীদের মুক্ত করে বাসায় ফিরলেন খালেদা

পুরান ঢাকার বকশীবাজারের বিশেষ আদালত থেকে গুলশানের বাসভবনে ফেরার পথে হাইকোর্টের ভেতরে আটকে পড়া নেতাকর্মীদের মুক্ত করে বাসায় ফিরলেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। বুধবার দুপুর পৌনে ২টায় দিকে ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, আদালত থেকে রওয়ানা করার সময় সকাল থেকে হাইকোর্টের ভেতরে অবস্থানরত দলটির হাজারও নেতাকর্মীকে পুলিশ আটকে দেয়। ভেতরে অবস্থানরত নেতাকর্মীরা যাতে রাস্তায় বের হয়ে কোনো বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে না পারে -এ জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা হাইকোর্টের গেটে তালা মেরে দেয়।

তবে হাইকোর্টের ভেতরে দলের নেতাকর্মীরা আটকা পড়েছেন এ সংবাদ পেয়ে মাজার গেটের সামনে এসে অবস্থান নেন খালেদা জিয়া। এ সময় নেতাকর্মীদের জন্য প্রায় ১২ মিনিট গাড়িতে অবস্থান করেন তিনি। পরে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর বাধার মুখেই এক পর্যায়ে গেট দিয়ে রাস্তায় বেরিয়ে আসেন নেতাকর্মীরা।

মাজার গেট থেকে হাইকোর্টের সামনে কদম ফোয়ারা পর্যন্ত আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বিএনপি নেতাকর্মীদের গতিরোধ করার চেষ্টা করে। তবে এ সময় কোনো হতাহত বা অপ্রতিকর ঘটনা ঘটেনি। এছাড়া নেতাকর্মীদের প্রতিরোধের মুখে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী খালেদা জিয়ার গাড়ি বহর সামনে অগ্রসর হতে সহযোগিতা করেন।

এর আগে বকশীবাজারের আদালত থেকে বেরিয়ে দলের নেতাকর্মীদেরকে সঙ্গে নিয়ে এক ঘণ্টায় কাকরাইল মোড়ে পৌঁছান বেগম জিয়া। দলের নেতাকর্মীরা খালেদা জিয়া গাড়ি বহরের সঙ্গে রুপসী বাংলা হোটেল পর্যন্ত অগ্রসর হন। পরে নেতাকর্মীদেরকে বিদায় জানিয়ে গুলশানের বাসভবন ফিরোজার উদ্দেশে রওয়ানা দেন সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী।

এদিকে সকালে খালেদা জিয়ার জন্য অপেক্ষমান নেতাকর্মীদের মধ্যে ২৫ জনকে শাহবাগ থানা পুলিশ আটক করেছে। তাদেরকে অন্য মামলায় গ্রেফতার দেখানো হতে পারে বলে থানা সূত্রে জানা গেছে।

প্রধানমন্ত্রীকে খালেদার আইনি নোটিশ

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। বুধবার বেলা ১১টার দিকে নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, সম্প্রতি জিয়া পরিবার নিয়ে প্রধানমন্ত্রী যেসব অভিযোগ উত্থাপন করেছেন এসব অভিযোগ প্রমাণ করতে না পারলে আমরা আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেছিলাম।

কিন্তু দু:খজনকভাবে তারা মুখে নানা কথা বললেও অভিযোগ প্রমাণে কোনো তথ্য উপস্থাপন করতে পারেননি। তাই আমরা আমাদের অঙ্গীকার অনুযায়ী খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছি।

সুপ্রীম কোর্ট বারের সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন গতকাল (মঙ্গলবার) খালেদা জিয়ার পক্ষে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন বলেও জানান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।