করোনার প্রভাবে দুই মাস পর : সিলেটের সাথে ঢাকা ও চট্রগ্রামের দুটি আন্তনগর টেন চলাচল শুরু

প্রকাশিত: ১১:১৭ অপরাহ্ণ, মে ৩১, ২০২০

করোনার প্রভাবে দুই মাস পর : সিলেটের সাথে ঢাকা ও চট্রগ্রামের দুটি আন্তনগর টেন চলাচল শুরু

কমলগঞ্জ প্রতিনিধি
করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশনায় গত ১৬ মার্চ থেকে সারা দেশে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ রয়েছে। টানা দুই পর রোববার (৩১ মে) সকালে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী আন্তনগর কালনী এক্সপ্রেস ট্রেন ও দুপুরে সিলেট থেকে ছেড়ে আসা চট্রগ্রামগামী আন্তনগর পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচলের মাধ্যমে সিলেটের সাথে ঢাকা ও চট্রগ্রামের দুটি আন্তনগর ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। স্বাস্থ্য বিধি মেনে ট্রেনে নির্ধারিত আসনের অর্ধেক টিকেট অন লাইনে বিক্রি হলেও স্টেশনগুলো যাত্রীরা কোন সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখেননি।
রোববার(৩ মে) সকাল সোয়া ৮টায় শমশেরনগর রেলওয়ে স্টেশন দেখা যায় অধিকাংশ যাত্রী মুখে মাস্ক পরেননি। এমনকি সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে দাঁড়াননি। কালনি এক্সপ্রেস ট্রেন স্টেশনে প্রবেশের পর যাত্রীরা নির্ধারিত বগিতে উঠে নিজ আসনে বসলেও ট্রেনের বগির এ্যাটেনডেন্টরা তাদের হাতে জীবানু নামক কোন স্প্রে করেননি। কালনি এক্সপ্রেস ট্রেনের ৮টি যাত্রীর বগির মাঝে সব মিলিয়ে ১২০ থেকে ১৩০ জন যাত্রী থাকতে দেখা গেছে।
সরকারি নির্দেশনায় রোববার থেকে ঢাকার সাথে সারা দেশের ৮ জোড়া আন্তনগর ট্রেন চলাচল শুরু হয়েছে। এ লক্ষ্যে রোববার ভোর ৬টা ১৫ মিনিটে সিলেট থেকে ঢাকাগামী আন্তনগর কালনি এক্সপ্রেস ট্রেন ছেড়ে আসে। যাত্রীরা অন লাইনে টিকেট ক্রয় করছেন। স্টেশন কাউন্টার থেকে কোন টিকিট বিক্রি হয়নি। একটি বগিতে ৬৮টি আসন থাকলে যাত্রী বসবেন ৩৪ জন। তার আগে যেসব স্টেশনে এসব ট্রেনের যাত্রা বিরতি রয়েছে সে সব স্টেশনে স্বাস্থ্য বিধি মেনে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। ট্রেনের বগিতে উঠার সময় যাত্রীরা মুখে মাস্ক পরে হ্যান্ড স্যানিটাইজর ব্যবহার করতে হবে।
শমশেরনগর স্টেশন মাস্টার জামাল উদ্দীন বলেন,করোনার কারণে দুই মাসেরও বেশী সময় ধরে যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল বন্ধ ছিল। শুধুমাত্র জরুরী প্রয়োজনে মাঝে মাঝে খাদ্যবাহী ট্রেন চলাচল করেছে। রোববার থেকে সরকারি নির্দেশনায় সিলেটের সাথে ঢাকা ও চট্রগ্রামের দুটি আন্তনগর ট্রেন কালনি এক্সপ্রেস ও পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ট্রেন চলাচল করছে। এ দুটি ট্রেনই আবার রাতে ফিরবে।
স্টেশনে স্বাস্থ্য বিধি মানা সম্পর্কে তিনি আরও বলেন, স্টেশনে যাত্রীরা নিজ দায়িত্বে তা মানতে হবে। আর ট্রেনের ভিতরে পরিচালক ও বগির এ্যাটেনডেন্টরা তা তদারকি করবেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল