কুলাউড়ায় চা শ্রমিকের চাকুরিচ্যুতির ঘটনায় বিক্ষোভ, বাগান বন্ধ ঘোষণা

প্রকাশিত: ৬:০০ অপরাহ্ণ, জুন ২৪, ২০২১

কুলাউড়ায় চা শ্রমিকের চাকুরিচ্যুতির ঘটনায় বিক্ষোভ, বাগান বন্ধ ঘোষণা

 

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুলাউড়া

মৌলভীবাজারের কুলাউড়া উপজেলার লুহাইউনি চা বাগানের এক শ্রমিককে চাকুরি থেকে অব্যাহতির ঘটনায় গত তিনদিন থেকে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

বাগানের প্রধান ফটকে অবস্থান করে বিক্ষোভ করছেন শ্রমিকরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ঘটনাস্থলে টহল অব্যাহত রেখেছে।

বৃহস্পতিবার বাগানের কার্যালয় অবরোধ করে বিক্ষোভ ও সমাবেশ চালিয়ে যাচ্ছে বাগে কর্মরত চা শ্রমিকরা। এর আগে গত ২৩ জুন বুধবার থেকে বাগান অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছে মালিকপক্ষ। ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা মালিকপক্ষের সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে এই বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।

সরেজমিন লুহাইউনি চা বাগানে গেলে বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা অভিযোগ করে বলেন, লুহাইউনি চা বাগানের শ্রমিক শ্যামল পাশী তার ক্ষেতের জমি বাগান কর্তৃৃপক্ষকে বুঝিয়ে না দেয়ায়, গত ২০ মে তাকে ভিটা থেকে উচ্ছেদ করতে সহকারি ব্যবস্থাপক নজরুল ও বাগান চৌকিদার সাধুর নেতৃত্বে কিছু শ্রমিকরা অভিযান চালায়। এসময় শ্রমিকরা ফলজ গাছ কেটে ফেলে। বাগান কর্তৃৃপক্ষ ২২ মে কোন কারণ দর্শানো ছাড়াই শ্যামল পাশীকে বাংলাদেশ লেবার অ্যাক্ট এর ২৬ (ক) ধারায় চাকুরি থেকে অব্যাহতি দেয়।

এ ঘটনায় বাগান পঞ্চায়েত গত ৯ জুন বিভাগীয় শ্রম অধিদপ্তরের উপ-পরিচালকের কাছে ঘটনার সুষ্ঠু বিচার চেয়ে লিখিত আবেদন করেছেন। গত ১৪ জুন বাগানের মহাব্যবস্থাপক বরাবরে লিখিত আবেদন করেন পঞ্চায়েতসহ বাগানের শ্রমিকরা। ৫দিনের মধ্যে প্রতিকার না পেলে কঠোর আন্দোলনের ডাক দেয়।

এদিকে, ২২ জুন ক্ষুব্ধ হয়ে শ্রমিকরা অফিসের সামনে অবস্থান নেয়। এসময় বাগানের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের অফিসে অবরুদ্ধ করে রাখেন শ্রমিকরা। দিনভর অবরুদ্ধ থাকার পর রাতে পুলিশ গিয়ে তাদের উদ্ধার করে। ২৩ জুন বুধবার সকাল থেকে বাগানের প্রধান ফটকে পুলিশ মোতায়েন করা হয় এবং বাগানের কাজ অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করে নোটিশ টানিয়ে দেয়া হয়।

বাগান পঞ্চায়েত কমিটির সভাপতি অজিত কৈরি জানান, মঙ্গলবার শ্রমিকরা শ্যামল পাশীর চাকুরিতে পুনর্বহালের দাবিতে প্রতিবাদ করে। বেলা ১২টায় প্রতিবাদ সমাবেশ শেষে শ্রমিকরা কাজে যেতে চাইলে লাইন চৌকিদার এসে জানায়, সাহেব (জিএম) বাগানের কাজ বন্ধ করেছেন। এসময় বাগান কর্তৃপক্ষ অফিসে অবস্থান করছিলেন। বাগানের (ব্রাহ্মণবাজার ইউনিয়নের) মেম্বার সত্য নারায়নের নেতৃত্বে ১৩ জনের একটি প্রতিনিধি দল জিএম মাহবুব আলীর সাথে দেখা করেন।

তিনি তাদের জানান, বাগান মালিকের নির্দেশে কাজ বন্ধ করা হয়েছে।

বুধবার ২৩ জুন শ্রমিকরা চাকুরিচ্যুত শ্যামল পাশীর চাকুরি পুনর্বহালসহ ১৩ দফা দাবি বাস্তবায়নের জন্য বাগান মন্ডপে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে। এসময় শ্রমিকদের সাথে একাত্মতা পোষণ করেন লংলা ভ্যালী ক্লাবের সভাপতি শহীদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক সঞ্জু গোস্বামী, সহ-সভাপতি জেসমিন আক্তার।

এব্যাপারে বাগানের জিএম মাহবুব আলী প্রথমে জেলা পুলিশ সুপারের অফিসে এবং পরে জেলা প্রশাসকের অফিসে রয়েছেন বলে জানান।

চলমান অচলবস্থা প্রসঙ্গে তিনি জানান, একজন শ্রমিক তিনি খুব ভালো। কিন্তু তাকে চাকুরি থেকে অব্যাহতি দেয়ার ক্ষমতা আমাকে দেয়া হয়েছে। আইনও আছে। আমি সেই আইনে উনাকে চাকুরিচ্যুত করি। আর যেসব দাবি দাওয়ার কথা বলা হয়েছে সব ভুঁয়া।

টহলে দায়িত্বরত কুলাউড়া থানার এসআই হাবিবুর রহমান জানান, বুধবার ২৩ জুন সকাল ৮টা থেকে তারা শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত রয়েছেন। শ্রমিকরা শান্তিপূর্র্ণভাবে তাদের কর্মসূচি পালন করছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল