কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মুখ সড়কের বেহাল দশা, জনদুর্ভোগ চরমে – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মুখ সড়কের বেহাল দশা, জনদুর্ভোগ চরমে

প্রকাশিত: ১০:৪৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৬, ২০১৯

কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মুখ সড়কের বেহাল দশা, জনদুর্ভোগ চরমে

ইমরানা আক্তার ইমা
সংস্কারের অভাবে বেহাল সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রবেশমুখ রাস্তাটি। এমসি কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় দীর্ঘ ১ কিলোমিটার রাস্তাটির চরম বেহাল দশা। গোটা রাস্তায় পিচের আস্তরণ উঠে অংসখ্য খানাখন্দ তৈরি হয়েছে। বর্ষা মৌসুমে এ রাস্তার গর্তে পানি জমে প্রায় ডোবায় পরিণত হয়। যাতায়াত করাই দুষ্কর হয়ে পড়ে।
নগরীর গুরুত্বপূর্ণ টিলাগড় এমসি কলেজ সম্মুখ রাস্তাটি কৃষ্টি বিশ্ববিদ্যালয়, পশু হাসপাতাল, পর্যটন স্পট জাফলং, বোবার তল পর্যন্ত সংযুক্ত রয়েছে। প্রতিদিন এই রাস্তা দিয়ে কমবেশি ৫০ হাজারেরও বেশি মানুষ যাতায়াত করেন। চলে অসংখ্য ট্রাক, বাস ও মিনিবাস।
দীর্ঘদিন থেকে সংস্কার না হওয়ায় টিলাগড় এমসি কলেজ সম্মুখ সড়কের অবস্থা এখন নাজুক হয়ে পড়েছে। ভাঙ্গা সড়কে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করতে হচ্ছে যাত্রীদের। বিশেষ করে স্কুল-কলেজসহ বিশ্ববিদ্যালয় পড়–য়া শিক্ষার্থীদের। বেহাল সড়ক দিয়ে যাতায়াতে প্রতিনিয়ত দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে যাত্রীদের।
গত ১০ নভেম্বর সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে যাওয়ার সময় রিক্সা থেকে পরে কোমর ও মেরুদ- সংযোগ স্থলে ব্যাথা পায় জা এখনো ভালো হয় নি।
স্থানীয় পুলিশ সূত্রমতে, কলেজের প্রবেশপথে জেব্রা ক্রসিং থাকা সত্ত্বো প্রতিমাসে ৮ থেকে ১০ টি দুর্ঘটনা ঘটে। এমসি কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, যে জেব্রা ক্রসিং দিয়ে কেউ পারাপার করে না। তন্মধ্যে আম্বরখানা থেকে আসা এবং টিলাগড় থেকে যাওয়া গাড়ির এতোই চড়াচড়ি যে একজন মানুষ রাস্থা পার হতে হলে প্রায় ৫-১০ মিনিট লেগে যায়। কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ কাজ হলে তাড়াহুড়া করে রাস্তা পার হতে গিয়ে যাত্রীর প্রাণহানির ঘটনাও ঘটছে।
নগরীর গুরুত্বপূর্ণ এলাকা টিলাগড়। এখানে অনেক বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানসহ দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের অবস্থান রয়েছে। সবকিছুতেই আধুনিকতার স্পর্শ রয়েছে। যেমন শিক্ষা ব্যবস্থা তেমনি শিল্প বাণিজ্য। রয়েছে উচ্চ শিক্ষালয়, দ্বিতীয় বৃহত্তম পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় এবং সিলেট ইঞ্জিনিয়ারিং কলেজ। প্রতিদিন এই রাস্তায় বিপুল পরিমাণ মানুষ যাতায়াত করে থাকে। কেউ পায়ে হেঁটে কেউ মোটরযোগে কেউ রিক্সায় কেউবা গাড়িতে। কলেজে যাবার সময় শিক্ষার্থীদের ভোগান্তির শেষ নেই বলে জানিয়েছেন এখানকার শিক্ষার্থী। শিক্ষার্থীরা জানান, ‘আমাদের কলেজের অনেক উন্নয়ন হয়েছে কিন্তু মেইন রোড পর্যন্ত রাস্তার কোন কাজ বিগত বছরের বাজেটে হয়েছে বা বর্তমানের বাজেটে আসছে বলে মনে হয় না। বাজেটের মধ্যে রাস্তার কাজের জন্য কোনো টাকা উল্লেখ নাই বলেও আমরা জেনেছি।’
শিক্ষার্থীদের দাবি, এমসি কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের প্রবেশ পথ অর্থাৎ মেইন রোড থেকে কলেজে আসা যাওয়ার পথে অনেক দুর্যোগের মুখোমুখি হতে হয়। এজন্য রাস্তাটি আশু সংস্কার করে জনদুর্ভোগ থেকে লাঘব করা হোক।