কেন্দ্র দখল না হলে ৩০ হাজার ভোটে জিততো বিএনপি : নোমান – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

কেন্দ্র দখল না হলে ৩০ হাজার ভোটে জিততো বিএনপি : নোমান

প্রকাশিত: ৬:২৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩১, ২০১৭

কেন্দ্র দখল না হলে ৩০ হাজার ভোটে জিততো বিএনপি : নোমান

নিজস্ব প্রতিবেদক: জাল ভোট, কেন্দ্র দখল, এজেন্ট বের করে দেয়াসহ বেশকিছু অনিয়ম হওয়ার পরও কৌশলী ভূমিকার কারণে কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী বিজয়ী হয়েছে বলে মনে করেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান। তিনি বলেন, যদি কেন্দ্র দখল না হতো, বিএনপির ভোটাররা ঠিক মতো ভোট দিতে পারতো, তাহলে ৩০ হাজার ভোটের ব্যবধানে আমরা জিততাম। সিলা মারা হয়েছে, ভোট কেন্দ্র দখল হয়েছে বিধায় ১১ হাজার ভোটের ব্যবধানে জিতেছি।

আজ শুক্রবার দুপুরে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় স্বাধীনতা হলে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে ‘মহান মুক্তিযুদ্ধ ও শহীদ জিয়া’ শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে ‘জাতীয় গণতান্ত্রিক আন্দোলন’।

কুসিক নির্বাচনে ভোট গ্রহণের দিনে বৃহস্পতিবার বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু ও দলটির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ অভিযোগ করেন- নির্বাচনে কারচুপি, সন্ত্রাস, কেন্দ্র দখল ও নৌকার পক্ষে জোর করে সিল মারা হচ্ছে। কিন্তু দিন শেষে নির্বাচনের ফল বিএনপির পক্ষে যায়। এরই প্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগ থেকে প্রশ্ন ওঠে বিএনপি নেতাদের অভিযোগের গ্রহণযোগ্যতা নিয়ে। ক্ষমতাসীনদের পক্ষ থেকে বলা হয়, নৌকার পক্ষে সিল মারলে বিএনপি জিতলো কিভাবে?

এ প্রসঙ্গে আব্দুল্লাহ আল নোমান বলেন, রিজভী ও সাক্কু নির্দিষ্ট একটি/দুটি কেন্দ্রের কথা বলেছেন। যার সত্যতাও আছে। কিন্তু সব জায়গার কথা তারা বলেননি। বিএনপির এ নেতা বলেন, সিল মারার পরও জেতা যায়। অনেক কৌশল অনেক সময় অনেকভাবে নিতে হয়। নৌকা মার্কা বুকে নিয়ে ধানের শীষে ভোট দেয়া আমাদের দেশে অনেক আগে থেকেই প্রচলিত আছে।

তিনি বলেন, বিএনপির ভোটাররা জানে, নৌকা প্রতীক বুকে লাগিয়ে কেন্দ্রে গেলে কেউ তাদের বের করে দেবে না। আওয়ামী লীগ ক্যাডাররা বাধা দিতে এলেও পুলিশ তাদের রক্ষা করবে। তাই বিএনপির ভোটাররা নৌকা মার্কা বুকে নিয়ে ধানের শীষে ভোট দিয়েছে।

জাতীয় গণতান্ত্রিক আন্দোলনের সভাপতি এম জাহাঙ্গীর আলমের সভাপতিত্বে সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তৃতা দেন বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মুহাম্মদ রহমতুল্লাহ, সাবিরা নাজমুল প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মঞ্জুর হোসেন ঈসা।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল