ক্ষমতায় গেলে তারা জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়: আনু মুহাম্মদ – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

ক্ষমতায় গেলে তারা জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়: আনু মুহাম্মদ

প্রকাশিত: ১:০৭ অপরাহ্ণ, আগস্ট ২৬, ২০১৬

ক্ষমতায় গেলে তারা জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়: আনু মুহাম্মদ

file-12-4২৬ আগ্রস্ট ২০১৬, শুক্রবার : যে দলই যখন বিরোধী দল থাকে তখন তারা জনগণের পক্ষে অবস্থান নেয়। আর ক্ষমতায় গেলে তারা জনগণের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়। তাই আমরা কোনো দলের ওপর ভরসা করি না। আমরা ভরসা করি জনগণের ওপর।’

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে শুক্রবার ‘ফুলবাড়ী গণঅভ্যুত্থান’ দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক সমাবেশে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ এসব কথা বলেন।

এ সময় তিনি রামপাল ইস্যুতে খালেদা জিয়ার সমর্থনের কথাও উল্লেখ করেন। অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, বর্তমান সরকার রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্রের নামে সুন্দরবনকে ধ্বংস করার চেষ্টা করছে। রামপাল এবং বাঁশখালীর প্রকল্প সফল হলে তারা ফুলবাড়ীর ওপর হাত দেবে। তাই কোনোভাবেই রামপাল-বাঁশখালীর নীল নকশা সফল হতে দেওয়া যাবে না।

২০০৬ সালে ফুলবাড়ী গণঅভ্যুত্থান না হলে এতদিন সুন্দরবন ধ্বংস হয়ে যেত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

২৬ আগস্ট দিনাজপুরের ফুলবাড়ী ট্রাজেডি দিবস। জাতীয় সম্পদ রক্ষা, এশিয়া এনার্জিকে ফুলবাড়ী থেকে প্রত্যাহার এবং উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা উত্তোলণের প্রতিবাদে এদিন এক সমাবেশের আয়োজন করা হয়। ২০০৬ সালের এই দিনে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ বিদ্যুৎ-বন্দর জাতীয় রক্ষা কমিটির ডাকে সমাবেশে যোগ দিতে যাওয়ার সময় পথে পুলিশ ও তৎকালীন বিডিআর (বর্তমানে বিজিবি) বাহিনীর গুলিতে প্রাণ হারান তিনজন। এ ঘটনায় আহত হন আড়াই শতাধিক মানুষ।

দিনটি স্মরণে ও শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ফুলবাড়ীবাসী প্রতি বছর ২৬ আগস্ট দিবসটি পালন করে আসছেন।

দিবসটি উপলক্ষে ফুলবাড়ীর নিমতলা মোড়ে এক সমাবেশে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ বলেন, ৬ দফা দাবি একদশকেও পূরণ করা হয়নি। মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার, দালালদের দৌরাত্ব ও ৬ দফা দাবি পূরণ না হলে আগামীতে নতুন কর্মসূচির মাধ্যমে দাবি আদায় করা হবে।

নতুন ঘোষিত কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে, ৩০ সেপ্টেম্বরের মধ্যে দাবি পূরণ না হলে ২৫ অক্টোবর নির্বাহী অফিসারের কার্যালয় ঘেরাও, ২১ নভেম্বর জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ঘেরাও এবং ২১ ডিসেম্বর অর্ধদিবস হরতাল পালন।

শুক্রবারের সমাবেশ শেষে ফুলবাড়ী রক্ষা আন্দোলনের নেতাকর্মী ও ফুলবাড়ীবাসীর ব্যানারে সম্মিলিত পেশাজীবী পরিষদ এক শোক র‌্যালি ও শহীদদের স্মৃতিসৌধে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন জ্বালানি বিশেষজ্ঞ প্রকৌশলী বিডি রহমতুল্লাহ, জাতীয় গণফ্রন্টের সমন্বয়ক কমরেড টিপু বিশ্বাস, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকী ও গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু।