খাদ্য কর্মকর্তারা ধান না নিলে চাকরি রাখবো না: খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার

প্রকাশিত: ১০:৩৯ অপরাহ্ণ, মে ১৫, ২০২২

খাদ্য কর্মকর্তারা ধান না নিলে চাকরি রাখবো না: খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার

খাদ্য কর্মকর্তারা ধান না নিলে চাকরি রাখবো না: খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার
সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, বোরো ধানের যে ক্ষতি হয়েছে তা সারা বাংলাদেশের হিসাবে ভালো করে ১ শতাংশও হবে না। তবে আমরা সুনামগঞ্জে যে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করে দিয়ে সেই হিসাবে কৃষকরা গুদামে ধান দেবেন। তবে আমাদের কৃষক ভাইদের প্রতি অনুরোধ ধানগুলো শুকিয়ে ১৪% আর্দ্রতার মধ্যে নিয়ে এসে ধান দেবেন। যারা কৃষক তালিকায় আছেন তাদের কাছ থেকে খাদ্য কর্মকর্তারা ধান সংগ্রহ করবেন; যদি কেউ ধান না নেয় তাহলে আমাকে জানাবেন আমি তার চাকরি রাখবো না।

রোববার বিকেল ৫ টা সুনামগঞ্জ জেলা প্রশাসন কার্যালয়ে বোরো ধান ও চাল সংগ্রহ বিষয়ে মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি চাল মিল মালিকদের উদ্দেশ্যে বলেন, চাল আপনারা বলেছেন বরাদ্দ বাড়াতে সেটা আমরা মাথায় রাখবো, আপনাদের প্রতি অনুরোধ বাজারে চালের ঘাটতি তৈরি করবেন না। কিছুদিন আগেও চালের দাম বাড়াতে একটা অপচেষ্টা করা হয়েছিল কিন্তু তারা পারে নাই। তাই আপনাদের বলে দিতে চাই চাল আমাদের কাছে অনেক মজুদ আছে, তারপরও যারা চাল মজুদ করে বাড়াতে চাইবেন তাদের বলে দিই সামনে নির্বাচন সরকার কোনভাবেই চালের দাম আর বাড়তে দেবে না।

মন্ত্রী সাধন চন্দ্র আরও বলেন, সুনামগঞ্জের ধান শুকানো জায়গা নেই বলেছেন আমি এখানে ৮-১০ টি ধান শুকানোর পেডি সাইলো নির্মাণ করে দেওয়া হবে যেখানে কৃষকরা ধান নিয়ে আসবেন, আমরা সেটিকে ১ ঘণ্টার মধ্যে ১৪ শতাংশ আর্দ্রতায় নিয়ে আসবো যাতে কৃষকদের গুদামে ধান দিতে সমস্যা না হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার কৃষি বান্ধব সরকার, কৃষকের উপকার হবে এমন কাজ আমরা আরও হাতে নিব, সুনামগঞ্জে গুদাম সংকট বলা হয়েছে এটিও আমরা বিবেচনাধীন রাখলাম।

জেলা প্রশাসক জাহাঙ্গীর হোসেনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন, খাদ্য সচিব নাজমানারা খাতুন, সুনামগঞ্জ -৫ আসনের সংসদ সদস্য মুহিবুর রহমান মানিক, সুনামগঞ্জ -১ আসনের সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান প্রমুখ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল