গুলি থামলেও কাটেনি আতঙ্ক, সচল হয়নি জীবন শিববাড়ি-পাঠানপাড়া এলাকবাসীর – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

গুলি থামলেও কাটেনি আতঙ্ক, সচল হয়নি জীবন শিববাড়ি-পাঠানপাড়া এলাকবাসীর

প্রকাশিত: ১:৪১ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩০, ২০১৭

গুলি থামলেও কাটেনি আতঙ্ক, সচল হয়নি জীবন শিববাড়ি-পাঠানপাড়া এলাকবাসীর

নিজস্ব প্রতিবেদক:: ছয়দিন ধরে গ্যাসসংযোগ নেই, বিদ্যুৎও সবসময় থাকে না। অনেক সড়ক দিয়ে যান চলাচল নিষিদ্ধ। হেঁটে চলায়ও রয়েছে নিষেধাজ্ঞা। আশপাশের অনেকটা এলাকাজুড়ে দোকানপাট সব বন্ধ। গত পাঁচদিন ধরে এই হচ্ছে সিলেটের দক্ষিণ সুরমার বৃহত্তর শিববাড়ি-পাঠানপাড়া এলাকার অবস্থা।

মঙ্গলবার সেনাবাহিনী ‘অপরাশেন টোয়াইলাইট’ নামের জঙ্গিবিরোধী এ অভিযানের সমাপ্তি ঘোষণা করে। ফলে বুধবার আতিয়া মহল এলাকা থেকে ভেসে আসেনি কোনো গুলি-বোমার বিকট শব্দ। তবে বিস্ফােরণ থামলেও এখন আতঙ্ক কাটেনি এই এলাকবাসীর। ফিরেনি প্রাণচাঞ্চল্য। এখনো এখানকার জনজীবনে স্থবিরতা বিরাজ করছে।

পাঠানপাড়া, পৈত্যপাড়া, খানবাড়ি, জৈনপুর, আচার্যপাড়া, কৃষাণপুর, ফকিরপাড়া, গালিমপুর, চান্দাই, নুরপুর, শিববাড়ি- এই কয়েকটি পাড়া নিয়ে বৃহত্তর শিববাড়ি-পাঠানপাড়া এলাকা। গত শুক্রবার থেকে দেশজুড়েই আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে ছিলো এই এলাকা।

জঙ্গিবিরোধী এই অভিযানের ফলে গত ছয়দিন ধরে এ এলাকাগুলোর মানুষের জীবন পুরোটাই থমকে আছে। সবচেয়ে সমস্যা দেখা দিয়েছে গ্যাস সংযোগ বন্ধ থাকায়। অনেকের ঘরে আবার খাবার সঙ্কট দেখা দিয়েছে।

খানবাড়ি এলাকার বাসিন্দা সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র আজম খান। তিনি বলেন, সবচেয়ে বেশি সমস্যা হচ্ছে গ্যাস না থাকায়। ছয়দিন ধরে বাড়ির উঠানে উনুন বানিয়ে রান্নাবান্না করা হচ্ছে,  কেউ কেউ কেরোসিনের স্টোভে রান্না করছেন। এই কদিন তো গুলি-বোমার শব্দে তো বাচ্চাকাচ্চারা ভয়ে সারাদিন ঘরে গুটিসুটি মেরে থাকতো। বুধবার থেকে এসব থামলেও আতঙ্ক কাটেনি।

আজম খান জানান, অভিযান চলাকালে এলাকা ছেড়ে অনেকে স্বজনদের বাড়িতে আশ্রয় নিয়েছে।

আজম খান বলেন, কষ্ট হলেও আমরা চাই আমাদের এলাকা এবং দেশ থেকে জঙ্গি নির্মূল হোক। জঙ্গি আস্তানার অপবাদ থেকে মুক্তি চায় এলাকার সব মানুষ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল