গোয়ানঘাট থানা আলোক সজ্জিতো, বিজয় দিবসের বিভিন্ন কর্মসূচি – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

গোয়ানঘাট থানা আলোক সজ্জিতো, বিজয় দিবসের বিভিন্ন কর্মসূচি

প্রকাশিত: ৫:৫০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৫, ২০২০

গোয়ানঘাট থানা আলোক সজ্জিতো, বিজয় দিবসের বিভিন্ন কর্মসূচি

 

গোয়াইনঘাট প্রতিনিধিঃ
প্রতি বছর বিনম্র শ্রদ্ধায় জাতি স্মরণ করে মহান বিজয় দিবস। ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিশ্ব মানচিত্রে জন্ম নেয় স্বাধীন বাংলাদেশ। ৪৮তম বিজয় দিবস পূর্ণ হচ্ছে এবার। আর এ উপলক্ষে লাল সবুজ নীল আলোয় সেজেছে গোয়াইনঘাট থানা সহ পুরো দেশ। প্রকৃতিতে শীতের উপস্থিতি, দেশজুড়ে নির্বাচনি আমেজ অন্য দিকে বিজয়ের আনন্দ যেন কোটি বাঙালির হৃদয়কে আপ্লুত করে যাচ্ছে।

গতকাল সোমবার সন্ধ্যার পর রঙ-বেরঙের আলোকচ্ছটায় ঝলমলিয়ে ওঠেছে পুরো গোয়াইনঘাট থানা। রক্তের লাল আর শ্যামল সবুজ বর্ণের আলোকসজ্জা যেন এক উজ্জ্বল পতাকা। আলোকিত থানা দেখে মুগ্ধ উপজেলাবাসী। সন্ধ্যার পর থেকে এমন দৃশ্য দেখা গেছে।
১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বিশ্ব মানচিত্রে জন্ম নেয় স্বাধীন বাংলাদেশ। ৪৮তম বিজয় দিবস পূর্ণ হচ্ছে এবার। গোয়াইনঘাট থানা এলাকায় দেখা গেছে, ধর্ম-বর্ণ, ধনী-গরিব সবাই মিশে একাকার হয়ে গেছে।
সামনে ঘুরে ঘুরে বর্ণিল আলোকসজ্জা দেখে বেড়াচ্ছেন অনেকেই। আবার কেউ কেউ তুলছেন সেলফি। এ যেনো অন্যরকম পুলক। মনকাড়া এমন আলোকসজ্জায় মুগ্ধ সবাই। এ আলোকসজ্জা দেখে মুগ্ধ কর্মব্যস্ত মানুষও। অনেকে ঘুরে ঘুরে দেখছেনে আবার অনেকে সুন্দর এ দৃশ্য ক্যামেরায় ধারণ করছেন।

এদিকে, মহান বিজয় উপলক্ষে সরকারি, বেসরকারি ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের পক্ষ থেকে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।গোয়াইনঘাট উপজেলায় কর্মসূচির মধ্য রয়েছে, সূর্যোদয়ের ক্ষণে ৩১ বার তোপধ্বনির মাধ্যমে দিবসের শুভ সূচনা। বীর শহীদদের স্মৃতির উদ্দেশ্যে পুষ্পস্তবক অর্পণ।
সকাল ৮টায় আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকা উত্তোলন। সকাল দশটায় জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে মুক্তিযোদ্ধাদের চেতনা ধারণ ও ডিজিটাল প্রযুক্তির সর্বোত্তম ব্যবহারের মাধ্যমে জাতীয় সমৃদ্ধি অর্জন শীর্ষক আলোচনা সভা।
সকাল ১১ টায় ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিতব্য চিত্রাঙ্কন ও রচনা লিখন প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ।
বাদ জোহর শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত ও যোদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের সুস্বাস্থ্য কামনা, জাতির শান্তি অগ্রগতি কামনায় সকল মসজিদ, মন্দির ও অন্যান্য উপাসনালয়ে বিশেষ মোনাজাত।
দুপুর ১ঃ৩০ টায় হাসপাতলে উন্নতমানের খাবার পরিবেশন। বর্নিত সকল কর্মসূচি স্বাস্থ্যবিধি মেনে যথাসময়ে চলবে।