গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদ, রামপাল অভিমুখে লংর্মাচ ও জনসভা করবে ২০দলীয় জোট – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদ, রামপাল অভিমুখে লংর্মাচ ও জনসভা করবে ২০দলীয় জোট

প্রকাশিত: ৬:২০ পূর্বাহ্ণ, আগস্ট ২২, ২০১৬

গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদ, রামপাল অভিমুখে লংর্মাচ ও জনসভা করবে ২০দলীয় জোট

KHaleda-Zia-696x431-1-696x431বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের শীর্ষ পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণের প্রতিবাদে জনসভা ও রামপাল অভিমুখে লংমার্চ করার সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া হজ্জ থেকে দেশে ফেরার পর জোটের নেতাদের সঙ্গে দ্বিতীয় দফায় আরেকটি বৈঠক করবেন। এরপর সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে এই কর্মসূচি ঘোষণা করবেন বলে বৈঠক সুত্রে এমনটা জানা গেছে।

রোববার রাত ৮ টা ৪৫ মিনিটে চেয়ারপারসনের গুলশান রাজনৈতিক কার্যালয়ে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হয়। দুর্যোগপুর্ণ আবহাওয়ার মধ্যে জোটের র্শীষনেতারা নির্দিষ্ট সময়ের আগেই একে একে হাজির হন বৈঠকস্থলে। জোট নেতা খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে বৈঠকটি দুই ঘন্টা ধরে চলে।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বৈঠক প্রসঙ্গে জোটের এক শীর্ষ নেতা জানান, রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ ও গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে ২০ দলীয় জোট সম্মিলিতভাবে কর্মসূচি ঘোষণা করবে।

আলোচনার শুরুতে বিএনপি চেয়ারপারসন রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণে সরকারি সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে কি করা যায়, এই বিষয়ে জোটের কাছে পরামর্শ চাইলে নেতারা বলেন, জনসভা ও রামপাল অভিমুখে লংমার্চ করা যেতে পারে। তবে কি কর্মসূচি দেওয়া হবে সেই বিষয়টি নির্ধারণের দায়িত্ব আমরা জোট নেত্রীর ওপর ছেড়ে দিয়েছি।

এছাড়া খালেদা জিয়ার হজ্জে যাওয়ার বিষয়েও আলোচনা হয়েছে। জোট নিয়ে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য খালেদা জিয়াকে আশ্বস্ত করেন নেতারা। তাার বলেন, ২০ দলীয় জোট আছে এবং জোট অটুট থাকবে।

এছাড়া গ্যাসের মূল্য বৃদ্ধির প্রতিবাদে কর্মসূচি, জঙ্গিবাদ রুখতে জাতীয় ঐক্য নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়েছে। আর জাতীয় ঐক্যে বিষয়ে বৈঠেক জোট নেতারা বলেন, জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন। তাই এই ঐক্য হবে বড় পরিসরে এবং খুব শিগগির।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পাটির সভাপতি কর্ণেল অলি আহামদ, জামায়াতের কর্মপরিষদ সদস্য মাওলানা আব্দুল হালিম, বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার আন্দালিব রহমান পার্থ, বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহম্মদ ইবরাহিম, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, বাংলাদেশ ন্যাপের চেয়ারম্যান জেবেল রহমান গাণি, এনপিপির চেয়ারম্যান ড. ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরান, বাংলাদেশের সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক কমরেড সাঈদ আহমেদ।