চা-শ্রমিকদের বিক্ষোভ ব্যবস্থাপক অবরুদ্ধ – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

চা-শ্রমিকদের বিক্ষোভ ব্যবস্থাপক অবরুদ্ধ

প্রকাশিত: ৫:৫৭ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১৯, ২০১৬

চা-শ্রমিকদের বিক্ষোভ ব্যবস্থাপক অবরুদ্ধ

166f7ec869f51aa872eb7878c1a59d01-103_IMG_6809মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলার ধামাই চা-বাগানের শ্রমিকেরা বিভিন্ন দাবিতে গতকাল সোমবার বিক্ষোভ করেছেন। এ সময় তাঁরা বাগানের ব্যবস্থাপকের বাংলোর ফটকে তালা ঝুলিয়ে তাঁকে অবরুদ্ধ করে রাখেন।শ্রমিকদের সূত্রে জানা গেছে, ধামাই বাগানটি নিউ ধামাই টি কোম্পানির মালিকানাধীন। বাগানে ১ হাজার ৭ জন স্থায়ী শ্রমিক ও ২৪ জন কর্মচারী রয়েছেন। ২০১৪ সাল থেকে গত মাস পর্যন্ত শ্রমিক ও কর্মচারীদের ভবিষ্য তহবিলে (প্রভিডেন্ড ফান্ড) টাকা জমা হয়নি। চা-শ্রমিকদের সংগঠন বাংলাদেশ চা-শ্রমিক ইউনিয়নের সঙ্গে চা-বাগানের মালিকপক্ষের সংগঠন বাংলাদেশীয় চা-সংসদের সম্পাদিত সর্বশেষ চুক্তি অনুযায়ী (১ জানুয়ারি ২০১৫ সালে কার্যকর), সাপ্তাহিক ছুটির দিনে শ্রমিকদের এক দিনের সমপরিমাণ মজুরি (৮৫ টাকা) পাওয়ার কথা। কিন্তু গত বছর থেকে ধামাই চা-বাগানের শ্রমিকেরা তা পাচ্ছেন না। নতুন চুক্তি অনুযায়ী, শ্রমিকদের মজুরি ৬৯ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৮৫ টাকা করা হয়। শ্রমিকেরা বর্ধিত মজুরির বকেয়া টাকা পাচ্ছেন না। শ্রমিকদের ১৮ সপ্তাহের রেশন বকেয়া। শতাধিক অস্থায়ী শ্রমিকের ১৮ সপ্তাহের মজুরি বকেয়া রয়েছে। শ্রমিকদের বাড়িঘর দীর্ঘদিন ধরে মেরামত করা হচ্ছে না। বাগানে চিকিৎসক ও ওষুধ নেই।প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, সকাল নয়টার দিকে ৪০০-৫০০ শ্রমিক বাগানের কারখানার ভেতরে জড়ো হন। এ সময় বিভিন্ন দাবিতে তাঁরা বিক্ষোভ করেন। একপর্যায়ে শ্রমিকেরা বাগানের ব্যবস্থাপকের বাংলোর ফটকে তালা ঝুলিয়ে দেন। বিকেল পর্যন্ত বাংলোয় তালা ঝোলানো ছিল।
মুঠোফোনে জানতে চাইলে বাগানের ব্যবস্থাপক গোপাল শিকদার অবরুদ্ধ অবস্থায় সন্ধ্যা ছয়টায় মুঠোফোনে প্রথম আলোকে বলেন, কোম্পানির প্রধান কার্যালয় থেকে আর্থিক সহযোগিতা না পাওয়ায় শ্রমিকদের দাবি মেটানো সম্ভব হয়নি। এ ছাড়া কোম্পানি তাঁকে চাকরিচ্যুত করেছে। এ ব্যাপারে কোম্পানির প্রধান কার্যালয় থেকে পাঠানো চিঠি গতকাল (সোমবার) তাঁর কাছে পৌঁছেছে।এ ব্যাপারে জানতে মুঠোফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও কোম্পানির ঢাকার প্রধান কার্যালয়ের ব্যবস্থাপক (অর্থ) ইকবাল হোসেনের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল