চিকিৎসার জন্য ভারতে নেওয়া হচ্ছে এহসানকে – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

চিকিৎসার জন্য ভারতে নেওয়া হচ্ছে এহসানকে

প্রকাশিত: ৩:২২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৮

চিকিৎসার জন্য ভারতে নেওয়া হচ্ছে এহসানকে

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ মুসলিম (এসএম) হলের শিক্ষার্থী এহসান রফিক আলোর দিকে তাকাতে পারছেন না। অন্ধকার কক্ষে সারাক্ষণ শুয়ে দিন কাটাচ্ছেন। এখনো ব্যথা সমস্ত শরীরে। চিকিৎসার জন্য তাঁকে ভারতে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে পরিবার।

৬ ফেব্রুয়ারি রাতে এসএম হলে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের নির্যাতনের শিকার হন এহসান। রাত দুইটা থেকে পরদিন বেলা আড়াইটা পর্যন্ত এহসানকে তিন দফা পেটানো হয়। এতে তাঁর কপাল ও নাক ফেটে রক্ত বের হয়। ওই রাতে ছাত্রলীগের হল শাখার সভাপতি তাহসান আহমেদের কক্ষে তাঁকে আটকে রাখা হয়।

ঢাকায় কয়েক দফা চিকিৎসা শেষে এহসানকে গ্রামের বাড়িতে নিয়ে গেছে পরিবার। ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলার নরেন্দ্রপুর গ্রামে গিয়ে গত বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কথা হয় এহসানের সঙ্গে। তিনি নিজ কক্ষের আলো নিভিয়ে অন্ধকারে শুয়ে আছেন। কথা বলতে গেলে জানান, দিনের বেলায়ও ঘর অন্ধকার রেখে শুয়ে থাকেন। আলোতে তাকানো সম্ভব হচ্ছে না। ব্যথায় মাথা উঁচু করে বসতেও পারছেন না।

এহসানের বাবা রফিকুল ইসলাম প্রথম আলোকে বলেন, দ্রুত চিকিৎসার জন্য তাঁকে ভারতে নেওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। বুধবার পাসপোর্টের আবেদন করেছেন। ছেলের ঢাকায় চিকিৎসা, বর্তমানে বাড়িতে রেখে চিকিৎসা এবং ভারতেও চিকিৎসার খরচ তাঁকেই বহন করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের এ বিষয়ে কোনো উদ্যোগ না থাকায় তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।