চুলবুল পাণ্ডের ফেরা – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

চুলবুল পাণ্ডের ফেরা

প্রকাশিত: ৪:২০ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৯, ২০১৯

বিনোদন ডেস্কঃঃ  সালমান খান মানেই বাড়তি উত্তেজনা। আর সেটা যদি ‘দাবাং’ হয়, তাহলো তো কথাই নেই। নামেই হিট! সালমানের নতুন ছবি ‘দাবাং থ্রি’ আগামীকাল মুক্তি পাবে। এর আগে এই সিরিজের ‘দাবাং’ [২০১০] ও ‘দাবাং টু’ [২০১২] দারুণ ব্যবসাসফল। তাই তৃতীয় ছবিটি ঘিরে সবার প্রত্যাশা তুঙ্গে। আর ‘বলিউডের ভাইজান’ নিজেও নাকি তার ভক্তদের নিরাশ করবেন না। তাই তো ‘দাবাং থ্রি’তে ভরপুর বিনোদন রেখেছেন তিনি। টানটান সংলাপ, বিনোদনের মোড়কে রোমহর্ষক সব অ্যাকশন দৃশ্য। একেবারে স্বমহিমায় হাজির হয়েছেন চুলবুল পাণ্ডে ওরফে ভাইজান। বরাবরের মতো এবারও পুরোদস্তুর অ্যাকশন মুডে পাওয়া গেল সালমান খানকে। এর আগে ‘দাবাং’-এর দুটো ছবিতে পুলিশ অফিসার চুলবুল পাণ্ডের নানা কাণ্ড কারখানা দেখেছেন দর্শক। কিন্তু চুলবুল পাণ্ডের পুলিশ অফিসার হয়ে ওঠার নেপথ্যের কাহিনী এখনও অধরাই। এবারে দর্শকদের সেই আক্ষেপ মিটতে চলেছে। কারণ পরিচালক প্রভুদেবা এবার চুলবুল পাণ্ডের পুলিশ অফিসার হয়ে ওঠার কাহিনি তুলে ধরেছেন পর্দায়।এবার সালমানের বিপরীতে রয়েছেন দুই নায়িকা। ছবির ট্রেলারেই এই দুই নায়িকার সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন পরিচালক। একজন হলেন পুলিশ অফিসার চুলবুল পাণ্ডের বর্তমান।

আরেকজন তার অতীত। যার জন্য সালমান চুলবুল পাণ্ডে হয়ে উঠেছেন। সেই পাণ্ডের স্ত্রী রজ্জোর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন সোনাক্ষী সিনহা। আর এখনকার চুলবুল পাণ্ডের প্রেমিকার ভূমিকায় অভিনেতা মহেশ মঞ্জরেকরের মেয়ে সাই মঞ্জরেকর। ২১ বছরের এই অভিনেত্রী ‘দাবাং থ্রি’ দিয়েই বলিউডে আত্মপ্রকাশ করছেন। এ ছাড়াও এই ছবির একটি বিশেষ দৃশ্যে অভিনয় করেছেন প্রীতি জিনতা। সম্প্রতি সালমান খান তার টুইটারে একটি ভিডিও পোস্ট করে জানিয়েছেন প্রীতি অভিনীত চরিত্রটি সম্পর্কে। সেই ভিডিওতে প্রীতি বলছেন, তিনি এক ভারতীয় পুলিশ অফিসারের সঙ্গে দেখা করতে চান।

তার নাম চুলবুল পাণ্ডে। ভিডিওতে অভিনেত্রীকে পুলিশের পোশাকেই দেখা গিয়েছে। আর তা দেখে অনুরাগীরা ইতোমধ্যেই তাকে ‘দাবাং জিনতা’, ‘লাভলি লেডি কপ’, ‘চুলবুলি পাণ্ডে’ ইত্যাদি নামে ডাকতে শুরু করেছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রীতির এই নতুন লুক নিয়ে চলছে জোর চর্চা। ছবিতে দু’রকম লুকে দেখা মিলবে ভাইজানের। একটা যেখানে গোঁফ নেই, চুলবুল পাণ্ডে হয়ে ওঠার আগের চেহারা। আর দ্বিতীয়টি সানগ্লাস, গুণ্ডাদের সঙ্গে মারামারি, চুলবুলের পরিচিত স্টাইলে।

এবারের ছবিতে ভিলেনের ভূমিকায় অভিনয় করেছেন কন্নড় ছবির সুপারস্টার কিচ্ছা সুদীপ। তিনি ভারতীয় একাধিক সংবাদ মাধ্যমে জানিয়েছেন এই ছবির ক্লাইম্যাক্স দৃশ্যের জন্য শুটিং করতে হয়েছে ২৫ দিন। তিনি বলেন, ‘এটা আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে দীর্ঘ ক্লাইম্যাক্স দৃশ্য। সালমান খান আর আমার মধ্যে মারামারি হয়েছে। কার জিত হবে, শেষ মুহূর্তের আগ পর্যন্ত কেউ বুঝতে পারবে না।’ এ ছবির মাধ্যমে ১১ বছর পর প্রভুদেবার পরিচালনায় অভিনয় করলেন সালমান। সবশেষ তারা একসঙ্গে ব্যবসাসফল ছবি ‘ওয়ান্টেড’ [২০০৮]-এ কাজ করেছিলেন। জানা গেছে, এই ছবির ক্লাইম্যাক্সে সালমান খানকে কিচ্চা সুদীপের ৫০০ গুণ্ডার সঙ্গে একাই মোকাবিলা করতে দেখা যাবে। রোহিত শেঠির ছবির মতো এই ছবিতেও ১০০টি গাড়ি হাওয়ায় উড়বে। ‘দাবাং থ্রি’র অ্যাকশন সালমান খানের অন্যান্য ছবি থেকে একেবারেই আলাদা হতে যাচ্ছে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এই ছবির কাহিনি লিখেছেন সালমান খান নিজেই। কেবল হিন্দি নয়, তামিল, তেলুগু এবং কন্নড় ভাষায় ছবিটি মুক্তি পাবে।