ছবি ও ভিডিও’তে ফ্লোরিডার সন্ত্রাসী হামলা – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

ছবি ও ভিডিও’তে ফ্লোরিডার সন্ত্রাসী হামলা

প্রকাশিত: ৫:৪৬ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০১৮

ছবি ও ভিডিও’তে ফ্লোরিডার সন্ত্রাসী হামলা

যুক্তরাষ্ট্রে ২০১২ সালে এমন ভয়াবহ অভিজ্ঞতা হয়েছিল কানেকটিকাট রাজ্যের বাসিন্দাদের। সেবার স্কুলের এক ছাত্র গুলি চালিয়ে একাই নিজের মা’সহ ২৭ জনকে হত্যা করে। যাদের মধ্যে ২০ শিক্ষার্থীও ছিল। ওবামা সরকারের আমলে সেবার দাবি উঠেছিল আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণ আইন আরও কঠোর করার। ডেমোক্রেট দলীয় ওবামা নিজেও ছিলেন আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ন্ত্রণের পক্ষে। এজন্যে দেশের নাগরিকের একটি বড় অংশের আপত্তির মুখেও ক্ষমতায় থাকাকালে তিনি সংগ্রাম করেছিলেন। তবে তিনি ব্যর্থ হয়েছিলেন, যার ফল তাই এখনও ভুগছে দেশটির জনগণ।মাঝে দেশটির বিভিন্ন স্থানে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটলেও ফ্লোরিডার ঘটনা টনক নড়িয়েছে রাজ্যের প্রশাসনের। ভালোবাসার দিনে নিকোলাস ক্রুজ নামের ১৯ বছর বয়সী এক সাবেক ছাত্র পার্কল্যান্ডের হাই স্কুল ক্যাম্পাসে যে তাণ্ডব চালিয়েছে, তাতে হতবাক নিরাপত্তা বাহিনীও।শুধুমাত্র প্রতিহিংসার বশে সে একাই কেড়ে নিয়েছে ১৭ জনের প্রাণ। এখনও বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে লড়ছেন।

পুলিশের বরাত দিয়ে মার্কিন সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, স্কুল থেকে বের করে দেয়ার প্রতিশোধ হিসেবে এমন হামলা চালায় নিকোলাস।ব্রোয়ার্ড কাউন্ট্রি শেরিফ স্কট ইসরায়েল সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, স্কুল ভবনে প্রবেশের আগে ক্রুজ ৩ জনকে গুলি করে হত্যা করে। এরপর ভবনে ঢুকে প্রাণ কেড়ে নেয় আরও ১২ জনের। এছাড়া হামলাকারীর গুলিতে আহতদের মধ্যে দু’জন হাসপাতালে নেয়ার পরে মারা যান।একে সর্বনাশা ঘটনা ছাড়া আর কোনো বিশেষণেই প্রকাশ করতে পারছেন না শেরিফ ইসরায়েল।

ঘটনার পর টুইটার বার্তায় এভাবেই নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন তিনি।এদিকে, স্কুলের ভেতরে শিক্ষক ও শিক্ষার্থী যারা ছিলেন তাদের এমন অভিজ্ঞতা সারাটা জীবনই বয়ে বেড়াতে হবে। ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যেও যারা সাহস করে মোবাইলে ছবি ও ভিডিও ধারণ করেছেন, সেসব দৃশ্যই বলে দেয় কি অবস্থা অতিবাহিত করেছে ভেতরে থাকা মানুষগুলো।বুধবার স্থানীয় সময় দুপুর আড়াইটার দিকে মারজোরি স্টোনম্যান ডগলাস হাই স্কুলের ক্লাস যখন প্রায় শেষ, ঠিক তখনই গুলি ভর্তি বন্দুক নিয়ে হাজির নিকোলাস! এক প্রত্যক্ষদর্শীর দাবি, স্কুলে প্রবেশ করেই নাকি হামলাকারী ফায়ার এলার্ম বাজিয়ে দেয়। উদ্দেশ্য ছিল, এতে স্কুলের মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি হবে।