ছাত্রলীগ কর্মী হত্যার ঘটনায় ৩জনের যাবজ্জীবন, অন্য আসামীদের ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

ছাত্রলীগ কর্মী হত্যার ঘটনায় ৩জনের যাবজ্জীবন, অন্য আসামীদের ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড

প্রকাশিত: ৬:১৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৯, ২০১৬

ছাত্রলীগ কর্মী হত্যার ঘটনায় ৩জনের যাবজ্জীবন, অন্য আসামীদের ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড

জকিগঞ্জ প্রতিনিধি : জকিগঞ্জে শাহগলিতে বিএনপি’র হামলায় নিহত ছাত্রলীগ কর্মী আলতা হোসেন (২২) হত্যার ঘটনায় ৩জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫০হাজার অর্থদন্ড অনাদায়ে ৬মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড এবং ৩২৬ ধারায় ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ৫০হাজার অর্থদন্ড অনাদায়ে ৬ মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। এছাড়াও এ ঘটনার সাথে জড়িত অপর ৭জন আসামীকে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও ১০হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে ২মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়। গতকাল সোমবার অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ আদালতে এ রায় দেন বিচারক ফারজানা সুলতানা।

যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামীরা হলো- জকিগঞ্জ উপজেলার নিজগ্রামের মোহাম্মদ আব্দুর রহিমের পুত্র সোহেল আহমদ (৩৬), একই উপজেলার পরচক গ্রামের আব্দুল খালিকের পুত্র মুহিদ মিয়া (৩৫), গণিপুর গ্রামের রফিক উদ্দিনের পুত্র কামরুল ইসলাম (৩০)।

দণ্ডপ্রাপ্ত অপর আসামীরা হলো- জকিগঞ্জ উপজেলার শরীফগঞ্জ গ্রামের মৃত রফিক উদ্দিনের পুত্র আমির উদ্দিন (৪৫), পরচক গ্রামের আনোয়ার আলীর পুত্র জাকারিয়া আহমদ (২৫), বারগাত্তা গ্রামের রিয়াজ উদ্দিনের পুত্র সুনাম আহমদ (৩০), নিজগ্রামের আব্দুল আহাদের পুত্র কামিল আহমদ (৩০),পরচক গ্রামের আব্দুর রহিমের পুত্র মিজানুর রহমান (২৬), হাসিতলা গ্রামের তাজউদ্দিনের পুত্র জাহেদ আহমদ (৩৪), নিজগ্রামের মৃত চুনু মিয়ার পুত্র আনোয়ার হোসেন (৩২)।

উল্লেখ্য, বিগত ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১১ সালে বিকাল ৩টার দিকে উপজেলার শাহগলি বাজারে বিএনপি’র নেতাকর্মীরা তাদেত পূর্বঘোষীত কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে সভা ও বিক্ষোভ মিছিলের আয়োজন করে। এসময় সভা শেষে শাহগলি বাজারে সিলেট- জকিগঞ্জ রোডে বিএনপি নেতাকর্মীরা বেশ কয়েকটি গাড়ি ও দোকানপাট ভাংচুর করে। এসময় তারা পিস্তল, দা,লোহার রড, হকিস্টিক সহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে বাজারে থাকা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গ সংগঠনের ৮/১০ জন নেতাকর্মীদের উপর হামলা চালায়। এ সময় গুরুতর আহত অবস্থায় শাহগলি ইউনিয়ন শাখার সহ-সভাপতি জমির হোসেনের পুত্র ছাত্রলীগ কর্মী আলতা হোসেনকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। এ ঘটনায় জমির হোসেন ১০জনকে আসামী করে জকিগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। পরে তার অভিযোগের প্রেক্ষিতে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মামলা এফ,আই,আর করেন। নিম্ন আদালত মামলাটি (দায়রা মামলা নং -১৭৭/২০১২ইংরেজি) বিচারের জন্য প্রস্তুত করে মহানগর দায়রা জজ আদালতে প্রেরণ করা হয়।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল