জকিগঞ্জে প্রবাসীর স্ত্রী তাহমিনার উপর নির্যাতন – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

জকিগঞ্জে প্রবাসীর স্ত্রী তাহমিনার উপর নির্যাতন

প্রকাশিত: ৩:৪৭ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২, ২০১৬

জকিগঞ্জে প্রবাসীর স্ত্রী তাহমিনার উপর নির্যাতন

unnamed২ অক্টোবর ২০১৬, রবিবার: জকিগঞ্জে প্রবাসীর স্ত্রী উপর স্বামীর পরিবার কর্তৃক পৈশাচিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।  শ্বশুর-শ্বাশুড়ী, স্বামীর বড় ভাই ও তাদের স্ত্রীদের নির্যাতনে বর্তমানে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছেন জকিগঞ্জের বুরানপুরচক গ্রামের আকাল মিয়ার পুত্র কুয়েত প্রবাসী ফয়ছল আহমদের স্ত্রী তাহমিনা বেগম (১৮)। বর্তমানে তিনি সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৪র্থ তলা ৩নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন আছেন বলে জানান নির্যাতিতার ভাই নাজিম উদ্দিন।
নাজিম উদ্দিন বলেন, আমার জামাতা ফয়ছল আহমদ বিদেশ যাওয়ার পর দীর্ঘ ৪বছর যাবত আমার বোনের উপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করে আসছেন তাহার পরিবারের সদস্যরা। সামান্য ত্র“টি বিচ্যুতি হলেও তার উপর চলে নির্যাতনের স্টীম রোলার। নির্যাতনে শিকার হয়ে তাহমিনা স্বামীকে বারবার নির্যাতনের কথা বললেও এবিষয়ে কর্ণপাত করেননি প্রবাসী স্বামী ফয়ছল আহমদ। উল্টো স্ত্রীকে ধমকানো শুরু করেন তার মা-বাবা সহ পরিবারকে নিয়ে এসব নির্যাতনের কথা বলার জন্য। এমনকি অনেক দিন ফোনে গালি গালাজও করছেন বলে জানান নির্যাতিতার ভাই নাজিম উদ্দিন।
জানা যায়, ঘটনার দিন শনিবার হঠাৎ তাহমিনার পেটে ব্যাথা দেখা দেয়। এসময় তার স্বামীর পরিবার প্রয়োজনীয় চিকিৎসা না নিয়ে তাকে ৩/৪ বছর আগের পুরাতন ঔষধ জোরপূর্বক খাওয়ায়। ঔষধ খাওয়ার পার তার পেটের ব্যাথা বৃদ্ধি পেলে তার ভাই নাজিম আহমদকে খবর দেওয়া হয়। নাজিম আহমদ খবর পেয়ে বোনের বাড়িতে গিয়ে তাকে উদ্ধার করে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন।
আজ ২ অক্টোবর রোববার স্বামীর বাড়ির লোকজন নাজিমকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি দেখিয়ে তাহমিনাকে অসুস্থ অবস্থায় বাড়িতে নিয়ে যেতে চাইলে নাজিম উদ্দিন মেডিকেলের প্রশাসনিক বিভাগের সহযোগিতা চান। বর্তমানে তিনি প্র্রশাসনিক বিভাগের বিশেষ তদারকীতে অসুস্থ বোন তাহমিনার চিকিৎসা প্রদান করছেন।
প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছিল বলে জানা যায়।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল