জগন্নাথপুরে সড়ক ও জনপথ বিভাগের সড়কটির বেহালদশায় নাকাল পৌরবাসী – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

জগন্নাথপুরে সড়ক ও জনপথ বিভাগের সড়কটির বেহালদশায় নাকাল পৌরবাসী

প্রকাশিত: ৩:০৭ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৭, ২০১৬

জগন্নাথপুরে সড়ক ও জনপথ বিভাগের সড়কটির বেহালদশায় নাকাল পৌরবাসী

jagannathpur-pic-16-07-2016.doc-1মো: আব্দুল হাই, জগন্নাথপুর থেকে :: সড়ক ও জনপথ বিভাগের ১কিলোমিটার এলাকা জুড়ে সড়কটির বেহালদশায় নাকাল জগন্নাথপুর পৌরবাসী। জনসাধারনের যাতায়াতের পাশাপাশি ব্যবসায়ীরা প্রতিনিয়ত চরম দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। সড়কটির পীচ উঠে গিয়ে খানা খন্দকের পাশাপাশি বিশাল গর্তের সৃষ্টি হওয়ায় যাতায়াতে অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। শহরের আলখানা স্লুইচ গেইট থেকে শুরু করে হবিবনগর এলাকা পর্যন্ত প্রায় ১কিলোমিটার জুড়ে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়া সড়কটির মুক্তিযোদ্ধা মোড়, পৌর পয়েন্ট ও মাছের আড়ত এলাকায় সৃষ্টি হয়েছে বিশাল বিশাল গর্ত। সামান্য বৃষ্টিতেই গর্তগুলোতে পানি জমে খালে পরিণত হয়েছে। ফলে এর আশ-পাশ এলাকার মার্কেট বিপনী বিতানগুলোতে ক্রেতাদের যাতায়াতে ভোগান্তির ফলে ব্যবসা প্রতিষ্টান গুলোতে দেখা দিয়েছে স্থবিরতা। এছাড়াও এসব গর্তগুলোতে প্রতিনিয়ত রিক্্রা, ইজিবাইক, অটোরিক্্রা, মোটর সাইকেলসহ ছোট বড় সকল প্রকার যানবাহন বিকল হওয়ার পাশাপাশি দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে। প্রাকৃতিক দৃশ্য আর সৌন্দর্যের অপরূপ পৌর শহরটির প্রান কেন্দ্রে সড়ক ও জনপথ বিভাগের ১কিলোমিটার সড়কের নাজুক পরিস্থিতির কারনে জনসাধারনের অসন্তোষ আর তীব্র সমালোচনার শিকার হচ্ছেন মেয়র, কাউন্সিলরসহ পৌর প্রশাসন। এদিকে সড়কটির দু-পাশের ফুটপাত হকারদের দখলে থাকায় এবং বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্টানের মালামাল লোড আনলোড করতে ট্রাকসহ বিভিন্ন যানবাহন ঘন্টার পর ঘন্টা দাড় করিয়ে রাখার ফলে সড়কটি সরু হওয়ায় ফলে তীব্র যানজটেরও সৃষ্টি হয়। পাগলা-জগন্নাথপুর-রানীগঞ্জ-আউশকান্দি ভায়া ঢাকা আঞ্চলিক মহা সড়কটি জগন্নাথপুর পৌর শহরের উপর দিয়ে বহমান হওয়ায় সড়কটির মেরামতের দায়িত্ব সড়ক ও জনপথ বিভাগের। অবিলম্বে সড়কটির পুন: সংস্কার কাজ সম্পন্ন করনে সংশ্লিষ্ট বিভাগের প্রতি জোর দাবী জানিয়েছেন ভুক্তভোগী জনসাধারন। সড়কটির নাজুক দশার বিষয়ে মেয়র আলহাজ্ব আব্দুল মনাফ জানান, সড়কটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের হওয়ায় সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তার সাথে যোগাযোগ করা হয়েছে। শীঘ্রই কাজ শুরু হবে। পৌর শহরের ক্ষতিগ্রস্থ প্রধান সড়কটি পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডে অবস্থিত হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্থ এলাকার ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্যানেল মেয়র-২ সুহেল আহমদ জানান, শহরের প্রবেশ মূখের সড়কটি সড়ক ও জনপথ বিভাগের হওয়ায় প্রতিনিয়ত আমাকে জনরুশের শিকার হতে হচ্ছে। সড়কটির ক্ষতিগ্রস্থ এলাকায় এটি কোন বিভাগের সড়ক শহরের কোথায় কোন সাইনবোর্ড দেয়া না থাকায় ভুক্তভোগী জনসাধারন সংস্কার কাজের জন্য পৌরসভাকে দায়ী করছেন। তিনি জানান, ইতোমধ্যে সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী বরাবরে মৌখিক এবং লিখিতভাবে সড়কটি পুন: সংস্কারের অনুরোধ জানানো হয়েছে। তবে শীঘ্রই পুন: সংস্কার কাজের ব্যবস্থা নেয়া হবে। সড়কটির নাজুক দশার বিষয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগের সুনামগঞ্জের নির্বাহী প্রকৌশলী আনোয়ারুল আমীন জানান, ইতোমধ্যে সড়কটির পৌর পয়েন্ট এলাকায় ইট সলিংয়ের কাজ করা হয়েছে। বাকি অংশগুলো শীঘ্রই সংস্কার কাজ সম্পন্ন করা হবে। তিনি এ ক্ষেত্রে সড়কটির জলাবদ্ধতা নিরসনে সড়কের পাশে পৌরসভা কর্তৃক নির্মিত ড্রেইনটি ময়লা আবর্জনা স্তুুপে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় পানি নিস্কাশনে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হয়েছে। সড়কটির দু-পাশে পলিথিন ব্যাগ, পানির বোতলসহ ময়লা আবর্জনার স্তুুপ পরিছন্নতার বিষয়ে পৌরসভার মেয়রকে অনুরোধ জানানো হয়েছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল