জনগণের ভালবাসাই শক্তি-আস্থাই প্রেরণা, ষড়যন্ত্র সফল হবে না’-মুশফিকুল ফজল আনসারী – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

জনগণের ভালবাসাই শক্তি-আস্থাই প্রেরণা, ষড়যন্ত্র সফল হবে না’-মুশফিকুল ফজল আনসারী

প্রকাশিত: ১১:১৭ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ২০, ২০১৭

জনগণের ভালবাসাই শক্তি-আস্থাই প্রেরণা, ষড়যন্ত্র সফল হবে না’-মুশফিকুল ফজল আনসারী

বাংলাদেশের মাটি ও মানুষের নেতা দেশনায়ক তারেক রহমানের আকাশচুম্বি জনপ্রিয়তাই সকল ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের কারণ। জনগণের অগাধ ভালবাসাই তাঁর শক্তি, আস্থাই প্রেরণা, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে কোনো ষড়যন্ত্রই সফল হবে না। রাষ্ট্রীয় কাঠামোতে তার নেতৃত্বের অধীর আগ্রহে বাংলাদেশের জনগণ।

রবিবার ওয়াশিংটন ডিসিতে তারেক রহমানের ৫৩তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন, জাতিসংঘের স্থায়ী সংবাদদাতা ও প্রধানমন্ত্রীর সাবেক সহকারী প্রেস সচিব, মুশফিকুল ফজল আনসারী।

গ্রেটার ওয়াশিংটন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ জে হোসেনের পরিচালনায় বর্ণাঢ্য এ জন্মদিন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল সরকারের প্রাক্তন নির্বাহী প্রকৌশলী ও ওয়াশিংটন বিএনপির সহ সভাপতি শাহাদাত সোহরাওয়ার্দী। বর্ণিল সাজে স্থানীয় সময় রাত ১২টা ১ মিনিটে কাবাব কিং রেস্টুরেন্টে কেক কেটে প্রিয় নেতার জন্মদিন উদযাপন করেন ওয়াশিংটনে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীরা।

এর আগে সংক্ষিপ্ত আলোচনায় অংশ নিয়ে জাস্ট নিউজ সম্পাদক ও হোয়াইট প্রেসকোরের সদস্য ফজল আনসারী বলেন, তারেক রহমান বাংলাদেশের রাজনীতিতে অপরিহার্য্য। তারেক রহমানের বিকল্প কেবলই তারেক রহমান। স্বাধীনতার মহান ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ও তিনবারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার সুযোগ্য উত্তরসূরী তারেক রহমান বাংলাদেশের রাজনীতি সমহিমায় উদ্ভাসিত। কারো অনুগ্রহ বা দয়ায় তিনি আজকের এ অবস্থানে আসেননি। নিজ মেধা ও যোগ্যতা এবং জনগণের অপার ভালবাসায় সিক্ত হয়ে অপরিহার্য্য রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বে উপনীত হয়েছেন তিনি।

তিনি বলেন, রাজনীতির ব্যাকরণের সবগুলি ধাপ অতিক্রম করেছেন তারেক রহমান। বগুড়া জেলা বিএনপির সদস্য হিসেবে থেকে কেন্দ্রীয় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অথবা ১৯৯১ সালের নির্বাচনে মা দলীয় চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার পাশে থেকে নির্বাচন পর্যবেক্ষণ, ২০০১ সালের জাতীয় নির্বাচন পরিচালনায় মুখ্য ভূমিকা পালন, সর্বোপরি গ্রাম থেকে থেকে গ্রামান্তরে, শহর থেকে লোকালয়ে দলীয় সাংগঠনিক ভিত্তিকে সুদৃঢ় করতে বিরামহীন পথচলা বাংলাদেশের রাজনীতিতে তাকে মহীরুহের আসনে আসীন করেছে। রাজনীতিতে তাঁর এ অবস্থান চিরন্তন ও সার্বজনীন।

মুশফিকুল ফজল আনসারী বলেন, ক্ষমতাসীনরা যুক্তিতে না পেরে শক্তি দিয়ে তারেক রহমানকে মোকাবিলা করছে। আদালতকে নির্লজ্জ ভাবে ব্যবহার করে তার বক্তব্য প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। আদালত নিষেধাজ্ঞা জারি করলেও আর বিবেক বন্দক সংবাদমাধ্যম তা গ্রাহ্য করলেও জনগণের মনে নিষেধাজ্ঞা জারি সম্ভব নয়। কেননা মনের মণিকোঠায় তারেক রহমানের আসন অনেক পাকাপোক্ত।

সভাপতির বক্তব্যে শাহাদাত সোহরাওয়ার্দী বলেন, তারেক রহমান শতায়ু হোন এবং রাজনীতি ও দেশ গঠনে ভূমিকা রাখবেন এটা আমাদের আজকের দিনের কামনা। পিতার মতো পুত্রকেও দেশের মানুষ গ্রহণ করেছে উল্লেখ করে বর্ষীয়ান এ পেশাজীবী বলেন, বাধা বিপত্তি আসবে এগুলো ঐক্যবদ্ধভাবে মোকাবিলা করতে হবে। তারেক রহমানের বিরুদ্ধে কল্পিত অনেক অভিযোগ দায়ের করলেও এর কোনটারই সত্যতা মেলেনি। জনগণের কাছে পরিষ্কার তারেক রহমান একজন সত ও দেশপ্রেমিক নেতা। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অবশ্যই নির্দলীয় সরকারের অধিনে হতে হবে বলে মত দেন তিনি।

এ জে হোসেন বলেন, কোনো ষড়যন্ত্রই তারেক রহমানের অগ্রযাত্রা ব্যাহত করতে পারবে না। সরকারি তরফ থেকে বহু চেষ্টা করা হয়েছে কিন্তু কোনো চেষ্টাই সফল হয়নি। কেননা বাংলাদেশের জনগণ তারেক রহমানের পাশে রয়েছে। তিনি বলেন, আমাদের ঐক্যবদ্ধভাবে সকল ষড়যন্ত্রকে মোকাবিলা করতে হবে। শেখ হাসিনা মুক্ত, নিরপেক্ষ সরকার ব্যবস্থা নিশ্চিত করে, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে আমাদের হারানো গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হবে।

এতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন- শামসুদ্দিন আহমেদ, দেওয়ান বিপ্লব, তুহিন ইসলাম, নেসার আহমেদ, জাহেদ আহমেদ প্রমুখ।

 

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল