জাকারিয়ার পদত্যাগ! আসছে আরো দুই শতাধিক ! এডভোকেট সাঈদের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

জাকারিয়ার পদত্যাগ! আসছে আরো দুই শতাধিক ! এডভোকেট সাঈদের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ

প্রকাশিত: ১:০২ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৬

জাকারিয়ার পদত্যাগ! আসছে আরো দুই শতাধিক ! এডভোকেট সাঈদের বিরুদ্ধে যত অভিযোগ

zaaaaaaaaaaaa২০ সেপ্টেম্বর ২০১৬. মঙ্গলবার: সোমবার দিবাগত রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রদল থেকে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তির মধ্যে দিয়ে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি তালিকা প্রকাশ করা হয়। তালিকা প্রকাশের পর থেকে সিলেট ছাত্রদলের মধ্যে দেখা দিয়েছে চরম হতাশা ও উত্তেজনা। প্রায় ২ শতাধিক নেতা কর্মী পদত্যাগের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। যারা পদত্যাগ করতে পারেন এমন কয়েকজনের নাম আমরা প্রকাশ করেছি।

সিলেট মহানগর ছাত্রদল এই সকল নেতা পদত্যাগ করতে পারেন: সহ-সভাপতি লোকমান আহমদ, যুগ্ম সম্পাদক শিহাব খান, মানবাধিকার সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজান (গহরপুর), সদস্যরা হলেন:- নাজমুল আহমদ, মুক্তার আহমেদ মুক্তা, আবু মুতাকাব্বির সাকি, সুমন আহমদ, আবু হাসনাত শিমু, ইমরুল হাসান হিমেল, মাহাবুবুল আলম সৌরভ, নাজিম উদ্দিন, নাহিদ আহমদ মন্টি, নাহিরান আহমদ চৌধুরী রকি, নাজমুল ইসলাম, রাহেল আহমদ, সুহেল রানা।

সিলেট জেলা ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি থেকে পদত্যাগ করতে পারেন সহ-সভাপতি নজরুল ইসলাম, যুগ্ম সম্পাদক আবুল হাশিম জাকারিয়া, দিলওয়ার হোসেন নাদিম, দিদার ইবনে তাহের লস্কর, পরিবেশ ও জলবায়ু বিষয়ক সম্পাদক আলী আকবর রাজন। সদস্যরা হলেন: মুহিবুর রহমান শিপলু, আলী আহসান হাবীব, রাইসুল ইসলাম সনি, ইবনে জাহান তানভীর, জইন উদ্দিন জনি, জাবেদ হোসেন, মহিউর রহমান শিমুল, জাবের আহমদ, আব্দুল্লাহ আল মামুন, নাহিয়ান সাকিব চৌধুরী (রকী)সহ আরো অনেক দলীয় ফোরামে আলোচনার পর কেন্দ্রীয় সংসদ ছাত্রদলের কাছে পদত্যাক জমা দেওয়া প্রস্তুতিতে রয়েছেন।

ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে পদত্যাগ করলেন আব্দুল হাসিম জাকারিয়া
সিলেট জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদ থেকে আমি মো. আব্দুল হাসিম জাকারিয়া সদ্য ঘোষিত সিলেট জেলা ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি থেকে স্বেচ্ছায় পদত্যাক করিলাম। আমি দীর্ঘ দিন থেকে মদন মোহন কলেজ শাখা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসছিলাম। দায়িত্ব পালন কালে আমি সরকারী দলের বিভিন্ন হুমকি, ধামকি ও পুলিশি হয়রানি এবং মিথ্যা মামল স্বীকার হয়েছিলাম। শহীদ জিয়ার আদর্শে গড়া ছাত্রদলের রাজনীতি আমি ছাড়ি নাই। কিন্তু সদ্য ঘোষিত জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের পূর্ণাঙ্গ কমিটি দেখে আমি হতাশ ও মর্মাহত হয়েছি। কমিটিতে ত্যাগী ও মাঠ পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মূল্যায়ন না করে সিনিয়র-জুনিয়রটি না মেনে যে কমিটি দেওয়া হয়েছে তার সাথে আমি দ্বিমত পোষন করে স্বেচ্ছায় পদ ত্যাগ করিলাম। আমি শহীদ জিয়ার আদর্শের সৈনিক হিসেবে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল কেন্দ্রীয় সংসদের সভাপতি ও সম্পাদকের প্রতি বিনীত আহবান অবিলম্ভে সিলেট জেলা ও মহানগর ছাত্রদলের কমিটি ভেঙ্গে ত্যাগী, মাঠপর্যায় ও নিয়মীত ছাত্রদের দিয়ে নতুন কমিটি ঘোষনা করার আহবান জানাচ্ছি।

এই বিষয়ে তুণমুল ছাত্রদলের সাথে আলোপ কালে তারা জানান, ছাত্রদলের নেতা কর্মীদের পরিশ্রম আর ত্যাগ নিয়ে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি এডভোকেট সাঈদ আহমদ তামশা করছেন। সাঈদ নিজে এই কমিটি দিয়ে কয়েকশত টাকার মালিক হয়েছেন। নিজে গাড়ি শো রুম করেছেন উপশহরে, পরিবার নিয়ে বিদেশী ভ্রমন, বাসা ভাড়া সহ তার এখন ছাত্রদলের নতুন পদপ্রাপ্তরা বহন করছেন এবং কেউ আবার গাড়ি দিয়েছেন উপহার। তার এক মাত্র পেশা ছিল আইন পেশা হঠাৎ করে জেলা ছাত্রদলের সভাপতি হয়ে রাতারাতি কোটি টাকার মালিক হয়েছেন সাঈদ। সাঈদ নিজেকে আইনজীবি পরিচয় দিতে চান না। তিনি এখন ছাত্রদলের নেতা হয়ে তাকতে চান। তার পেশা এখন পদবিক্রয়। টাকা দিয়ে প্রবাসী, ছিনতাইকারীদের কমিটিতে স্থান দিয়েছেন।

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল