জাতিসংঘের প্রেসব্রিফিং এ স্টিফেন ডোজারিক: সাংবাদিক নির্যাতন, ব্লগার হত্যা ও মৃত্যুদন্ডে জাতিসংঘ উদ্বিগ্ন – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

জাতিসংঘের প্রেসব্রিফিং এ স্টিফেন ডোজারিক: সাংবাদিক নির্যাতন, ব্লগার হত্যা ও মৃত্যুদন্ডে জাতিসংঘ উদ্বিগ্ন

প্রকাশিত: ১:৫৯ অপরাহ্ণ, মে ১৪, ২০১৬

জাতিসংঘের প্রেসব্রিফিং এ স্টিফেন ডোজারিক: সাংবাদিক নির্যাতন, ব্লগার হত্যা ও মৃত্যুদন্ডে জাতিসংঘ উদ্বিগ্ন

stif deberনিউইয়র্ক থেকে এনা: সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে একের পর এক ব্লগার হত্যা, সাংবাদিক নির্যাতন, মানবাধিকার লংঘন এবং যুদ্ধাপরাধের বিচারের নামে মৃত্যুদন্ড কার্যকর ইস্যুতে আবারো উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। জাতিসংঘের সদর দপ্তরের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে বাংলাদেশ ইস্যুতে বিশ্বসংস্থার উদ্বেগসহ নানা দৃষ্টিভঙ্গি তুলে ধরেন মহাসচিব বান কি মুনের মুখপাত্র স্টিফেন ডোজারিক। এসময়ে বাংলাদেশী সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নেরও জবাব দেন তিনি। এছাড়াও বাংলাদেশ থেকে তুরস্কের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহারের বিষয়টি দু’দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয় বলেও দাবি করেন স্টিফেন ডোজারিক।
গত ১৩ মে শুক্রবার (নিউইয়র্ক সময়) দুপুরে জাতিসংঘের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে অংশ নেন মহাসচিব বান কি মুনের মুখপাত্র স্টিফেন ডোজারিক। এসময়ে বিশ্বের সমসাময়িক ঘটনার সাথে উঠে আসে বাংলাদেশ প্রসঙ্গ। সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে ব্লগার জুলহাজ মান্নান হত্যা, সাংবাদিক শফিক রেহমান, শওকত মাহমুদসহ গণমাধ্যমের স্বাধীনতা, মৃত্যুদন্ড, জাতিসংঘ শান্তি রক্ষী মিশনের বাংলাদেশের সৈনিক এবং মানবাধিকার বিষয়ে জাতিসংঘের অবস্থান জানতে চান বাংলাদেশ এবং বিদেশী সাংবাদিকরা।
বাংলাদেশ ইস্যুতে সম্প্রতি নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত একটি সম্পাদকীয়ের উদ্ধৃতি দিয়ে বাংলাদেশের গণতন্ত্র ও বিচারহীনতা প্রসঙ্গে সাংবাদিক মুশফিক ফজল আরসারি জাতিসংঘের অবস্থান জানতে চাইলে ডোজারিক বলেন, বাংলাদেশের চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতা, মুক্তমনা তথা ব্লগার হত্যাকান্ড, বিচারবহির্ভূত হত্যাকান্ডসহ গণমাধ্যমের জেষ্ঠ্য সাংবাদিকদের নির্যাতনকে সমর্থন করছি না আমরা। এ বিষয়ে জাতিসংঘ মহাসচিবের উদ্বেগের কথা জানিয়ে পরিস্থিতির দ্রুত উন্নতি হবে বলে আশা করেন। এছাড়াও মৃত্যুদন্ডের নামে বিচারিক হত্যাকান্ড বন্ধে আন্তর্জাতিক নীতি মেনে চলবে বাংলাদেশ এমনটিও জানান তিনি।
এসময়ে জাতিসংঘের সদস্য রাষ্ট্র হিসেবে শান্তি মিশনে বাংলাদেশের অবস্থান থাকাবস্থায়, পার্বত্য অঞ্চলে সেনাবাহিনী কর্তৃক নারী ও শিশু নির্যাতনসহ মানবাধিকার লংঘনের অভিযোগ তোলেন আমেরিকান এক সাংবাদিক। তার প্রশ্নের জবাবে ডোজারিক বলেন, বিষয়টি তাদের জানা নেই, তবে খতিয়ে দেখা হবে।
এছাড়াও জামায়াতের আমীর মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির দন্ড কার্যকর ইস্যুতে তুরস্কের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহারকে দুই দেশের অভ্যন্তরীণ ও দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক বলে মত দেন তিনি। একই সাথে বাংলাদেশের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় গণমাধ্যমের অবাধ স্বাধীনতার বিষয়টিকে গুরুত্ব দিতে সরকার কার্যকর পদক্ষেপ নেবে বলেও আশা জাতিসংঘের।