জিয়ার আদর্শ বুকে ধারণ করে গুম, খুন ও হত্যার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে—-ডাঃ জীবন – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

জিয়ার আদর্শ বুকে ধারণ করে গুম, খুন ও হত্যার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে—-ডাঃ জীবন

প্রকাশিত: ৬:৪৯ পূর্বাহ্ণ, মে ৩১, ২০১৬

জিয়ার আদর্শ বুকে ধারণ করে গুম, খুন ও হত্যার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে—-ডাঃ জীবন

Sylhet City BNP pic-- 30.05.16মহান স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের ৩৫তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে সিলেট মহানগর বিএনপির উদ্যোগে স্থানীয় সুলেমান হলে এক আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিল এবং শিরণী বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করে সিলেট মহানগর বিএনপি সভাপতি নাসিম হোসাইন। সিলেট মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিমের সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ডাঃ শাখাওয়াত হোসেন জীবন বলেন, স্বাধীনতা যুদ্ধের প্রারম্ভ থেকে শুরু করে পরবর্তী পর্যায়ে রাষ্ট্র গঠনে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান তার অসামান্য অবদান রেখে এদেশের মানুষের মনি কোঠায় চিরদিনের জন্য স্থান করে নিয়েছেন।’৭১ এ জাতি যখন রাজনৈতিক নেতৃত্বের সিদ্ধান্তহীনতায় দিশেহারা ঠিক তখনই চট্রগামের কালুরঘাচ বেতার কেন্দ্র থেকে সৈনিক জিয়াউর রহমান শুধু স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েই থেমে াকেন নি, রণাঙ্গণে যুদ্ধ করে স্বাধীনতার লাল সূর্য ছিনিয়ে এনেছিলেন। আবার ’৭৫ এ যখন রাজনৈতিক নেতৃত্বের ব্যর্থতায় স্বাধীনতা যখন বিপন্ন প্রায় ঠিক তখনই রাষ্ট্রের হাল ধরে জাতিকে উন্নয়নের রাস্তা দেখিয়েছিলেন, জাতির সামনে বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের দর্শন উপহার দিয়েছিলেন। আজ আবার জাতির সামনে ঘোর অমানিশা এই অবস্থায় জাতিকে কেবল মুক্তি দিতে পারে জিয়াউর রহমানের রেখে যাওয়া দর্শন।

Sylhet City BNP pic-- 30.05.16--01সভাপতির বক্তব্যে নাসিম হোসোইন বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান তলাবিহীন ঝুড়ির অপবাদ থেকে মুক্তি দিয়ে দেশকে নিয়ে গিয়েছিলেন উন্নতির সোপানে। ফিরিয়ে দিয়েছিলেন বহুদলীয় গণতন্ত্র, বাক ও ব্যক্তি স্বাধীনতা। কিন্তু দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্রকারীদের হাতে প্রাণ দিতে হয়েছে জাতির শ্রেষ্ট সন্তান মহান এই জাতীয়তাবাদী নেতাকে। কিন্তু তার দর্শন আজও আমাদের সামনে। জাতির ক্রান্তিলগ্নে তার প্রতিষ্ঠিত বিএনপিকেই আবার ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে হবে।

মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিমের উপস্থাপনায় বক্তারা বলেন, সারাদেশ আজ আওয়ামী সন্ত্রাসের করাল থাবায় বিপর্যস্ত। গুম, খুন, হত্যা, রাহাজানির বিরুদ্ধে জিয়ার আদর্শকে বুকে ধারণ করে আমাদের রুখে দাড়াতে হবে।
সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও মহানগর বিএনপির সাবেক সভাপতি এম এ হক, কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক দিলদার হোসেন সেলিম, মহানগর বিএনপির সাবেক আহবায়ক ও কেন্দ্রীয় সদস্য ডাঃ শাহরিয়ার হোসেন চৌধুরী ।
সভায় প্রধান আলোচক হিসেব বক্তব্য রাখেন, বিশিষ্ট চিকিৎসক ও বিএনপি নেতা শামীমুর রহমান।
সভায় বক্তব্য রাখেন মহানগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মিফতাহ সিদ্দিকী, জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এমরান আহমদ চৌধুরী, মহানগর বিএনপির আহবায়ক কমিটির সাবেক সদস্য আহাদুস সামাদ চৌধুরী, কাউন্সিলর সৈয়দ তৌফিকুল হাদী, এম এ রহিম, এমদাদ হোসেন চৌধুরী, মঈন উদ্দিন সুহেল, মহবুব চৌধুরী, আব্দুস সাত্তার, রেজাউল করিম আলো, মহানগর মুক্তিযোদ্ধা দলের আহবায়ক সালেহ আহমদ খসরু, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রশিদ মামুন, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক রোকসানা বেগম শাহনাজ,  শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক ইউনুস মিয়া, কৃষক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মান্নান পুতুল, ওলামা দলের সভাপতি ফয়েজ আহমদ, শামীম মজুমদার, খোকন আহমদ। ওয়ার্ড নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ১ ওয়ার্ডের নজির হোসেন, ২ ওয়ার্ডের জাকির হোসেন মজুমদার, ৩নং ওয়ার্ডের সোহেল বাছিত, ৪নং ওয়ার্ডের ফয়জুল ইসলাম সুমন, ৫নং ওয়ার্ডের আব্দুল্লাহ শফি সাহেদ, ৭নং ওয়ার্ডের লল্লিক আহমদ চৌধুরী, ৮ ওয়ার্ডের আতিকুর রহমান শাহিন, ৯ ওয়ার্ডের আমির হোসেন, ১০ ওয়ার্ডের সেলিম আহমদ মাহমুদ, ১২ ওয়ার্ডের আব্দুস সামাদ তুহেল, ১৫  ওয়ার্ডের হাবিব আহমদ চৌধুরী শিলু, ১৬নং ওয়ার্ডের আলী হায়দার মজনু,  ১৭নং  ওয়ার্ডের আব্দুল কাহির, ১৮নং ওয়ার্ডের শুয়েব আহমদ, ২০নং  ওয়ার্ডের রায়হাদ বক্স রাক্কু, ২৩ নং  ওয়ার্ডের মামুনুর রহমান, ২৪নং  ওয়ার্ডের সৈয়দ বাবুল হোসেন, ২৫নং ওয়ার্ডের কামাল হাসান জুয়েল, ২৬নং  ওয়ার্ডের আখতার রশিদ চৌধুরী, ২৭নং ওয়ার্ডের  উজ্জ্বল রঞ্জন চন্দ্র।

সভা শেষে শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের আত্মার মাগফেরাত কামনা বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া পরিচালনা করেন ওলামা দলের নোমান আহমদ আশরাফি। পরবর্তীতে নগরীর বিভিন্ন এতিমখানায় শিরণী বিতরণ করা হয়।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, যুবদল কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আব্দুল মান্নান, মুফতি বদরুন নূর সায়েক, মুফতি নেহাল উদ্দিন, আব্দুল জব্বার তুতু, মহিলা দলের মহানগর সভাপতি সামিয়া বেগম চৌধুরী, আব্দুল আজিজ, হাজী মিলাদ আহমদ, হুমায়ুন আহমদ মাসুক, ছাত্রদলের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মাহবুবুল হক চৌধুরী, মহানগর ছাত্রদল সভাপতি নুরুল আলম সিদ্দিকী খালেদ, জেলা ছাত্রদল সভাপতি সাঈদ আহমদ, দেওয়ান মাহমুদ রাজা, জাগপা সেক্রেটারী মোঃ শাহজাহান আহমদ লিটন, সভাপতি আলকাছ মিয়া,  কাউন্সিলর কুহিনূর ইয়াসমিন ঝর্ণা, মুফতি রায়হান উদ্দিন মুন্না, জেবুল হোসেন ফাহিম, নেহার রঞ্জন দাশ, নুরুল ইসলাম লিমন,  সরফরাজ আহমদ চৌধুরী, শরিফ উদ্দিন মেহেদী, আমিনুর রহমান খোকন, মখলিছ খান, কাজী মইনুল আলম, আলিম হোসেন মুখতার, আবু সুফিয়ান, সাইদুর রহমান বুদুরী, হারুনুর রশিদ রাসেল, তারেক আহমদ খান, সৈয়দ ফয়েজ আহমদ শিপু, দেলোয়ার হোসেন, আজিজুর রহমান, কাজী মেরাজ, আরাফাত চৌধুরী জাকি, শাহীন আহমদ,  মুস্তাকুর রহমান রুমন, আলতাফ হোসেন সুমন, হানুর ইসলাম ইমন, ওয়াহিদুস সামাদ পাপ্পু, আব্দুস সোবহান, আরিফুল ইসলাম হাসান, জুনেদ আহমদ চৌধুরী ফাত্তাহ, সুহেল আহমদ, মঞ্জুর হোসেন মজনু, সুমন চক্রবর্তী, আজাদ আহমদ, সুহেল আহমদ, মিনহাজুর রহমান মাহফুজ, মারুফ আহমদ টিপু, ওবায়দুর রহমান সজিব, আলী আকবর রাজন, তানিম আহমদ আপন প্রমুখ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল