ঝিঙ্গাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে এ্যাসাইনমেন্ট ও মুল্যায়ণকে পূজি করে অতিরিক্ত ফি আদায় – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

ঝিঙ্গাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে এ্যাসাইনমেন্ট ও মুল্যায়ণকে পূজি করে অতিরিক্ত ফি আদায়

প্রকাশিত: ৪:৩৯ অপরাহ্ণ, নভেম্বর ১৫, ২০২০

ঝিঙ্গাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে এ্যাসাইনমেন্ট ও মুল্যায়ণকে পূজি করে অতিরিক্ত ফি আদায়

দুর্গাপুরের শিক্ষার্থীদের হাতে ফি ফেরত দেওয়া হবে

আমিনুল ইসলাম কানাইঘাটঃ
সিলেটের কানাইঘাট উপজেলার ঝিঙ্গাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে এ্যাসাইনমেন্ট ও মুল্যায়ণকে পূজি করে প্রতিটি শ্রেণীর প্রত্যেক শিক্ষার্থীর কাছ থেকে অতিরিক্ত ফি আদায় করা হচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে। গতকাল রবিবার নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী জানান গত ১৮ মার্চ থেকে সারা দেশের ন্যায় ঝিঙ্গাবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ বন্ধ ছিল। কিন্তু কোন ধরনের ক্লাশ না হওয়া সত্বেও এখন প্রতিটি মাসের বেতন সহ এ্যাসাইনমেন্টে ও মুল্যায়ণের ফি তাদের পরিশোধ করতে হচ্ছে। এদিকে বিদ্যালয় কিংবা কলেজ বন্ধের মধ্যে বেতন কিংবা প্রাতিষ্ঠানিক অন্যান্য ফি আদায়ে সরকারী চুড়ান্ত নির্দেশনা নেই। কিন্তু ঝিঙ্গাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে মাসিক বেতন আদায়ের পাশাপাশি রশিদ বিহীন শুধু এ্যাসাইনমেন্ট ও মুল্যায়ণের ফি বাবত ৩’শ করে টাকা আদায় করা হচ্ছে। কয়েকজন অভিভাবক জানিয়েছেন প্রায় জোরপূর্বক ভাবে শিক্ষার্থীদের কাছ থেকে বেতন সহ এ্যাসাইনমেন্ট ও মুল্যায়ণকে পূজি করে লক্ষাধিক টাকা তারা হাতিয়ে নিচ্ছে। এতে প্রবাসী অর্ধ্যুশিত এ এলাকার মধ্যবিত্ত পরিবারের অনেক শিক্ষার্থী এত টাকা এক সাথে পরিশোধ করতে রিতিমত হিমশিম খাচ্ছেন। এবং প্রতিষ্ঠানের এমন সিদ্ধান্তে অভিভাবকরা সন্তানদের পড়া লেখার অনিচ্ছয়তার আশংকায় উৎকণ্ঠায় ভোগছেন। এদিকে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তর (মাউশি) থেকে এ সংক্রান্ত কিছু নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। এতে এসব নির্দেশনায় বলা হয়েছে, শিক্ষার্থীদের স্বাস্থ্যঝুঁকির কথা বিবেচনা করে সরকার প্রথাগত ভাবে বার্ষিক পরীক্ষা না নেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে অ্যাসাইনমেন্টের মাধ্যমে তাদের অর্জিত শিখনফল মূল্যায়ন করা হবে। পুনর্বিন্যাসকৃত পাঠ্যসূচির ভিত্তিতে কোনো সপ্তাহে শিক্ষার্থীর কী মূল্যায়ন করা হবে, সেটা বিবেচনায় নিয়ে নির্ধারিত কাজ প্রণয়ন করা হয়েছে। সপ্তাহের শুরুতে ওই সপ্তাহের জন্য নির্ধারিত অ্যাসাইনমেন্টগুলো দিয়ে দেওয়া হবে। সপ্তাহ শেষে শিক্ষার্থীরা তাদের অ্যাসাইনমেন্ট শেষ করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে জমা দিয়ে নতুন কাজ বুঝে নেবে। অ্যাসাইনমেন্ট অভিভাবক বা অন্য কারও মাধ্যমে বা অনলাইনে জমা দেওয়া যাবে। নির্দেশনা অনুযায়ী, নির্ধারিত বিষয়গুলোর প্রস্তাবিত অ্যাসাইনমেন্ট জমা নেওয়া, মূল্যায়ন করা, পরীক্ষকের মন্তব্যসহ শিক্ষার্থীদের তা দেখানো এবং প্রতিষ্ঠানে সেটি সংরক্ষণ করার কাজ আগামী ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে সম্পন্ন করতে হবে। এ ছাড়াও শিক্ষা অধিদপ্তর জানিয়েছে, গত ১৬ মার্চ পর্যন্ত মাধ্যমিকের ক্লাস হওয়ার পর কোভিড-১৯ মহামারির কারণে ১৮ মার্চ থেকে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শ্রেণী কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। তাই চলতি বছরের শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যসূচি সংক্ষিপ্ত করে পুনর্বিন্যাস করা হয়েছে বলে নির্দেশনায় জানানো হয়েছে। এসব নির্দেশনার কোথাও কোন ধরনের ফি আদায়ের কথা বলা হয়নি। কিন্তু ঝিঙ্গাবাড়ি উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজে এ্যাসাইনমেন্ট ও মুল্যায়ণকে পুজি করে প্রতিটি মাসের বেতন ও এ্যাসাইনমেন্টকে পরীক্ষার রূপ দিয়ে কৌশলে ফি আদায় করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে ঝিঙ্গাবাড়ী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুস ছালামের সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি প্রতিষ্টানের নানা খাতের কথা উল্লেখ করে বলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক এ্যাসাইনমেন্টের কাগজপত্র বাবত সামান্য ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। এদিকে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা তারিকুল ইসলাম জানান এ্যাসাইনমেন্ট ও মুল্যায়ণের নামে কোন ধরনের ফি আদায় করা যাবে না। কারন যেহেতু পরীক্ষা হচ্ছে না সেহেতু পরীক্ষা ফি আদায় করা সম্পুর্ণ অবৈধ। প্রমাণ পেলেই যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। অপরদিকে দুর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের বেশ কিছু শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন তাদের কাছ থেকে মাসিক বেতনের পাশাপাশি এ্যাসাইনমেন্ট ও মুল্যায়ণের ফি আদায় করা হয়েছে। এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বরাবরে একটি অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে। এ বিষয়ে দুর্গাপুর উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের অধ্যক্ষ নুর মোহাম্মদ জানান আমরা শুধু মাত্র বেতন আদায় করেছি। যদি ভুলে ফি আদায় করা হয় তাহলে তা যথাযথ ভাবে শিক্ষার্থীদের হাতে ফেরত দেওয়া হবে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল