থেমে গেছে উদ্ধার অভিযান ও আন্দোলন ! ইলিয়াস আলী নিখোঁজের চার বছর : – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

থেমে গেছে উদ্ধার অভিযান ও আন্দোলন ! ইলিয়াস আলী নিখোঁজের চার বছর :

প্রকাশিত: ৭:৪১ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৬, ২০১৬

থেমে গেছে উদ্ধার অভিযান ও আন্দোলন ! ইলিয়াস আলী নিখোঁজের চার বছর :

bnp copy২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল রাতে রাজধানীর বনানী থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়েছিলেন বিএনপির তৎকালীন সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি এম ইলিয়াস আলী। আজ তাঁর নিঁখোজের চার বছর পূর্ণ হলো। চার বছরও কোনো খোঁজ মিলেনিা ইলিয়াস আলীর।

বিএনপি ও ইলিয়াস পরিবারের দাবি, সরকার ইলিয়াস আিলীকে গুম করে রেখেছে। ইলিয়াস এখনো বেঁচে আছেন এমনটিও বিশ্বাস তাঁর পরিবার ও অনুসারীদের। তবে সরকারের পক্ষ থেকে ইলিয়াস আলীর নিখোঁজের ব্যাপারে কিছুই জানা নেই বলে দাবি করা হচ্ছে।

নিখোঁজের পর প্রথম কিছুদিন ইলিয়াস আলী উদ্ধারে দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালালেও কয়েক মাস পরই থেমে যায় সব অভিযান। ইলিয়াস আলী খোঁজে এখন আর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো তৎপরতা নেই।

এদিকে, ইলিয়াসকে অনেকটা বাতিলের খাতায় ফেলে দিয়েছে তাঁর দল বিএনপিও। নিখোঁজের পর দীর্ঘদিন পর্যন্ত ইলিয়াস আলী বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা সভাপতির দায়িত্বে ছিলেন। অনুপস্থিত জেনেও ইলিয়াসের পদে কোনো পরবর্তন আনা হয়নি।

তবে সর্বশেষ কাউন্সিলে ইলিয়াসের বদলে ডা. সাখাওয়াত হোসেন জীবনকে সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক করে বিএনপি। এরআগেই সিলেট জেলা সভাপতির পদ থেকেও সরানো হয় ইলিয়াস আলীকে। ফলে বিএনপি নেতারাই এখন প্রায় ভুলে যাচ্ছেন রহস্যজনকভাবে নিঁখোজ এই নেতাকে।


ইলিয়াসের সন্ধান দাবিতে বিএনপির পক্ষ থেকেও নেই তেমন কোনো আন্দোলন। বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে ইলিয়াস আলী এখন অনেকটাই ‘পুরনো ইস্যু’। সম্প্রতি সিলেট বিএনপির পক্ষ থেকে ইলিয়াস আলীর সন্ধান দাবিতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। এছাড়া ইলিয়াস মুক্ত সংগ্রাম পরিষদও এ দাবিতে বিভিন্ন সময় নানা কর্মসূচী পালন করে। তবে এসব কর্মসূচী আগের মতো আর তেমন জোরালো নয়।

ইলিয়াসের পরিবারর দাবি, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কোনো সংস্থার সদস্যরা ইলিয়াস ও তার চালককে গাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গেছে।

জানা গেছে, ঘটনার দিন রাত পৌনে ১২টা পর্যন্ত যুবদলের কয়েকজন নেতার সঙ্গে রূপসী বাংলা হোটেলে ছিলেন ইলিয়াস। এরপর গাড়ি নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে চালক আনসার আলীসহ হঠাৎ করেই নিঁখোজ হয়ে পড়েন তিনি।

এ ঘটনায় বনানী থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছিলেন ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসীনা রুশদীর লুনা। তবে তাঁর নিঁখোজের কোনো ক্লু এখন পর্যন্ত উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।

ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসীনা রুশদীর লুনা বলেন, আমি বিশ্বাস করি ইলিয়াস আলী বেঁচে আছেন। সরকারই তাকে লুকিয়ে রেখেছে। তাই সরকারের কাছে ইলিয়াস আলীকে ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানাই।