দিরাইয়ে বরাদ্দকৃত ঘর বাতিলের ভয় দেখিয়ে ইউপি সদস্যের ঘুষ গ্রহণ – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

দিরাইয়ে বরাদ্দকৃত ঘর বাতিলের ভয় দেখিয়ে ইউপি সদস্যের ঘুষ গ্রহণ

প্রকাশিত: ৯:৩৭ অপরাহ্ণ, মে ২১, ২০২০

দিরাইয়ে বরাদ্দকৃত ঘর বাতিলের ভয় দেখিয়ে ইউপি সদস্যের ঘুষ গ্রহণ
দিরাই প্রতিনিধি 
সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে বরাদ্দকৃত ঘর বাতিলের ভয় দেখিয়ে প্রতিবন্ধী ব্যক্তির কাছ থেকে ১৮ হাজার ৫০০ টাকা ঘুষ নিয়েছেন এক ইউপি সদস্য। উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের এই সদস্যের বিরুদ্ধে রয়েছে এলাকাবাসীর বিস্তর অভিযোগ। সর্বশেষ, করোনাকালে প্রধানমন্ত্রীর মানবিক উদ্যোগ আড়াই হাজার টাকা সহায়তা তালিকায় ইউপি সদস্য তার নিজের নাম জুড়ে দেয়ার পাশাপাশি তার আরও তিন সহোদর উজ্জল ইসলাম, ইবাদুল ইসলাম, এমরান হোসেনকে অর্ন্তভুক্ত করেছেন। উপযোগী পরিবার বাদ দিয়ে নিজের আতœীয়-স্বজন, ধনাঢ্য সমর্থকদের তালিকাভুক্ত করেছেন বলে জানিয়েছেন ইউনিয়ন পরিষদের বিশ^স্থ্য সূত্র ও ওয়ার্ডের একাধিক ব্যক্তি।
সরকারি ঘর পেতে কোন টাকা লাগে না, বিষয়টি জানার পর ভুক্তভোগী প্রতিবন্ধী ব্যক্তির ভাতিজা আলফাজ উদ্দিন প্রতিকার চেয়ে ইউএনও বরাবর অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগে সূত্রে জানা যায়, জমি আছে ঘর নাই, এমন পরিবারের জন্য সরকারের টিআর কাবিটা কর্মসূচির আওতায় রাজানগর ইউনিয়ন পরিষদ থেকে দুর্যোগ সহনীয় ঘর বরাদ্দ পান ইউনিয়নের আনোয়ারপুর গ্রামের বুদ্ধি প্রতিবন্ধী মকবুল হোসেন। ঘরটি পাবার পর সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য শাহজাহান ওই বুদ্ধি প্রতিবন্ধীর ভাতিজা আলফাছ উদ্দিনকে বলেন, ঘর পেতে ২০ হাজার টাকা দিতে হবে অন্যথায় বরাদ্দ বাতিল হয়ে যাবে। আলফাজ উদ্দিন বলেন, মেম্বার আমাকে বলেছিল অফিসে ১০ হাজার টাকা ও ঘরের মালামাল পরিবহনের জন্য আরও ৮ হাজার ৫০০ টাকা তাকে দিতে হবে, নইলে ঘরের বরাদ্দ বাতিল হয়ে যাবে। আমি আমার চাচা জসিম উদ্দিনের কাছ থেকে দেনা করে তাকে এই টাকা দেই। পরে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ও উপজেলা ত্রাণ অফিসে যোগাযোগে করে জানতে পারি ঘরের জন্য কোন টাকা পয়সা লাগে না। মেম্বার আমাদের মিথ্যা বলে টাকা নিয়ে আত্মসাত করেছে। রাজানগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৌম্য চৌধুরী বলেন, গ্রামের লোকজনের অনুরোধ ও আমরা যাচাইবাছাই করে অসহায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তির প্রয়োজন অনুধাবণ করে ইউনিয়ন পরিষদ থেকে তাকে ঘরটি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। পরবর্তীতে ওই অসহায় পরিবার জানায়, ইউপি সদস্য তাদের কাছ থেকে টাকা নিয়েছে। এমনটি হয়ে থাকলে সেটা খুবই খারাপ হয়েছে, তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের আহবান জানান তিনি। অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সফি উল্লাহ বলেন, বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখা হচ্ছে, তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।##
দিরাইয়ে ঘুষ না দেয়ায় সহায়তা তালিকা থেকে নাম কেটে দিলেন ইউপি সদস্য
দিরাই (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি : ঘুষ না দেয়ায় প্রধানমন্ত্রীর মানবিক সহায়তা তালিকা থেকে ৯ ব্যক্তির নাম বাদ দিয়েছেন সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের সদস্য লেবু মিয়া। এবিষয়ে ওই ৯ জন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরে অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগে তারা উল্লেখ করেন, করোনা সংকটে প্রধানমন্ত্রীর প্রণোদনা প্যাকেজে নাম অর্ন্তভুক্তির জন্য তাদের কাছ থেকে জাতীয় পরিচয়পত্রের কপি ও মোবাইল নাম্বার নেন ইউপি সদস্য। পরে তালিকায় নাম চুড়ান্ত করতে তাদের কাছে জনপ্রতি ১ হাজার টাকা করে ঘুষ দাবী করেন তিনি। কর্মহীন মানুষগুলো টাকা দিতে ব্যর্থ হলে তাদের নাম বাদ দিয়ে দেন ইউপি সদস্য। অভিযোগে আরও উল্লেখ করা তালিকায় ইউপি সদস্য লেবু মিয়ার স্ত্রী, পরিবারের লোক ও আত্মীয়স্বজনের নাম রয়েছে, তালিকার অন্তত ১০ টি নামের পাশে ইউপি সদস্য ও তার পরিবারের লোকদের মোবাইল নাম্বার সংযুক্ত করা হয়েছে। আতœীয় স্বজন, পরিবারের লোকদের তালিকায় অর্ন্তভুক্ত করার ফলে প্রায় শতাধিক উপযোগী পরিবার সহায়তা বঞ্চিত হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। অভিযোগকারীদের একজন একমল খান বলেন, টাকা নিয়ে তালিকা করেছে মেম্বার। আমাদের আইডি কার্ড ও মোবাইল নাম্বার নিলেও তার দাবীকৃত টাকা দিতে না পারায় আমাদের নামগুলো কেটে দিছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. সফি উল্লাহ বলেন, ঈদের ছুটির পর এসব অভিযোগের তদন্ত করা হবে, অনিয়মের সাথে জড়িতদের কোন ছাড় দেওয়া হবে না।
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল