দুদকের মামলায় সিটি ব্যাংকের কর্মকর্তা মো. গিয়াস উদ্দিন নির্দোষ প্রমাণিত – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

দুদকের মামলায় সিটি ব্যাংকের কর্মকর্তা মো. গিয়াস উদ্দিন নির্দোষ প্রমাণিত

প্রকাশিত: ২:২০ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ২৬, ২০১৬

দুদকের মামলায় সিটি ব্যাংকের কর্মকর্তা মো. গিয়াস উদ্দিন নির্দোষ প্রমাণিত

707২৬ অক্টোবর ২০১৬, বুধবার: দুদকের একটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে গ্রেফতারকৃত সিটি ব্যাংক লিমিটেড জিন্দাবাজার শাখার সাবেক ক্যাশ ইনচার্জ ও বর্তমানে বন্দরবাজার শাখার ক্যাশ ইনচার্জ মো. গিয়াস উদ্দিন সম্পূর্ণ নির্দোষ প্রমানীত হয়েছেন। নির্দোষ প্রমানীত হওয়ায় তাঁকে ২৫ অক্টোবর মঙ্গলবার সিলেটের বিজ্ঞ আদালত তাঁর জামিনের আদেশ প্রদান করেন।

উল্লেখ্য, দুদকের অভিযোগের ভিত্তিতে সিটি ব্যাংক লিমিটেড জিন্দাবাজার শাখার সাবেক ক্যাশ ইনচার্জ ও বর্তমানে বন্দরবাজার শাখার ক্যাশ ইনচার্জ মো. গিয়াস উদ্দিনকে ব্যাংকে কর্মরত অবস্থায় গত ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১৬ইং তারিখে দুদক কর্মকর্তারা তাঁকে গ্রেফতার করে নগরীর বাগবাড়ীস্থ দুদক কার্যালয়ে নিয়ে যায়। পরের দিন একই তারিখে গ্রেফতারকৃত আরো ২জন অভিযুক্ত আসামী (সাবেক সিটি ব্যাংক কর্মকর্তা)সহ মোাট তিনজন অভিযুক্ত আসামীকে ১৯৪৭ সালের দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।
এরপর ২৮দিন কারাভোগের পর গত ২৫ অক্টোবর ২০১৬ইং রোজ মঙ্গলবার সিলেট মহানগর দায়রা জজ আদালত সিলেট থেকে তিনি জামিনের আদেশ পান।
এই মামলায় মো. গিয়াস উদ্দিনের বিরুদ্ধে সুস্পষ্ট কোন অভিযোগ ছিল না। যেমন বাংলাদেশ ব্যাংকের বিশেষ তদন্ত প্রতিবেদন, সিটি ব্যাংকের অডিট রিপোর্ট ও তদন্ত প্রতিবেদনেও মো. গিয়াস উদ্দিনের কোন সংশ্লিষ্টতা পাওয়া যায়নি। এমনকি তাঁর বিরুদ্ধে গ্রাহক সৈয়দ আখলাক মিয়ারও কোন সুস্পষ্ট অভিযোগ ছিলো না। এছাড়াও প্রধান আসামী তৎকালীন শাখা ব্যবস্থাপক মো. মুজিবুর রহমান সিটি ব্যাংকের কাছে তাঁর লিখিত অঙ্গিকার নামায় এবং ২৮ সেম্পেম্বর গ্রেফতারের পর ১৬৪ ধারার জবানবন্দীতেও তিনি সকল অপরাধ গ্রাহক সৈয়দ আখলাক মিয়ার মৌখিক সম্মতিতে তিনি নিজেই করিয়েছেন মর্মে সকল দোষ স্বীকার করে নিয়েছেন। তাই সকল নথি ও তথ্য উদঘাটনের পর বিজ্ঞ আদালত মো. গিয়াস উদ্দিনকে নির্দোষ প্রমানীত করে জেল হাজত থেকে জামিনের নির্দেশ প্রদান করেন।