দেশে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

দেশে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ৬:২২ অপরাহ্ণ, জুন ২০, ২০২১

দেশে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না: প্রধানমন্ত্রী

শ্রীমঙ্গল প্রতিনিধি :
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, ক্ষমতায় থেকে নিজে খাবো, নিজে খাবো, এটা নয়। ক্ষমতা আমার কাছে মানুষকে শান্তিতে রাখা। কীভাবে মানুষকে ভালো রাখা যায় এটা হলো বড়। বাংলাদেশে একজন মানুষও গৃহহীন থাকবে না। কোথাও কেউ গৃহহীন থাকলে আমাদের জানাবেন। আমার লক্ষ্য একটাই, বঙ্গবন্ধুর সৃষ্ট বাংলাদেশে কোনও মানুষ যেন ভূমিহারা, গৃহ হারা না থাকে। তবেই আমার বাবার আত্মা শান্তি পাবে।

করোনা ভাইরাসের প্রভাব শেষ হচ্ছে না। টিকা নিয়ে আসছি। আরও আনবো। স্বাস্থ্য সুরক্ষাবিধি মেনে চলতে হবে। হাত ধোয়া, মাস্ক পরা ও সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা দরকার। নিজে ভালো থাকবেন, অন্যকে ভালো থাকতে সহযোগিতা করবেন।

রবিবার সকাল ১১ টায় মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ১৫৮ পরিবারকে ‘স্বপ্নের নীড়’ উপহার দেওয়ার সময় গণভবন থেকে ভিডিওকনফারেন্সে সরাসরি যুক্ত হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এসব কথা বলেন।

এরমধ্যে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গল উপজেলার কলাপুর ইউনিয়নের মাজডিহি এলাকার পাহাড়ের চুড়ায় ১৫৮ পরিবারকে বুঝিয়ে দেওয়া হলো তাদের স্বপ্নের নীড়।

এখানে পর্যায় ক্রমে ৩০০ পরিবারকে দেওয়া হবে প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ উপহার। এর আগে আশ্রয়ণ-১ প্রকল্পেরআওতায় দেওয়া হয় আরো তিনশত পরিবারকে জমিসহ সেমিপাকা ঘর।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, গৃহহীন, ভূমিহীন, অসহায় দরিদ্র পরিবারের ঘর পাওয়া দুঃখী মানুষের মুখের হাসিই আমার কাছে সব চেয়ে বড়। ঘর পাওয়া মানুষ গুলো যে আনন্দ পেয়েছে, এর চেয়ে বড় পাওয়া আর কিছু নেই। আমাদের লক্ষ্য সমাজের একদম নিচুস্তরের পড়ে থাকা লোকদের টেনে তোলা, তাদের মূলসমাজের সঙ্গে অন্তর্ভুক্তি করা। অর্থনীতিনীতি মালায় আমাদের প্রথম কাজ হচ্ছে একেবারে গ্রাম পর্যায়ে তৃণমূল মানুষের কাছে সুবিধা পৌঁছে দেওয়া। এই মানুষ গুলোর জীবন মান উন্নত করতেই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

শেখ হাসিনা বলেন, পুরো বাংলাদেশ আমি ঘুরেছি। গ্রামে-গঞ্জে-মাঠে ঘাটে গিয়েছি। আওয়ামী লীগ মানুষের অধিকার নিয়ে কাজ করে। জাতির পিতা মানুষের মৌলিক অধিকার প্রতিষ্ঠায় গুরুত্ব দিয়েছেন। তার পদাঙ্ক অনুসরণ করেই আমরা এগিয়ে যাচ্ছি। আমরা এপর্যন্ত ৪ লাখ ৪২ হাজার ৬০৮ পরিবারকে গৃহ নির্মাণ করে দিয়েছি।
এরমধ্যে জলবায়ু উদ্বাস্তু পুনর্বাসন কক্সবাজারে রয়েছে বিশেষ আশ্রয়ণ প্রকল্প ও আশ্রয়ণ-২ প্রকল্প। এছাড়াও আমাদের সচিবরা তাদের নিজস্ব অর্থায়নে ১৬০টি পরিবারকে ঘর করে দিয়েছেন। আমাদের পুলিশসহ বিভিন্ন বাহিনী ও বিভিন্ন সংস্থা এ কাজে এগিয়ে এসেছেন।

শ্রীমঙ্গল উপজেলার নির্বাহী অফিসার মো. নজরুল ইসলাম সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন- মৌলভীবাজার-৪ আসনের সংসদ সদস্য ও সাবেক চীফ হুইপ উপাধ্যক্ষ ড. আব্দুস শহীদ এমপি, বিভাগীয় কমিশনার খলিলুর রহমান, মৌলভীবাজার-হবিগঞ্জ সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য সৈয়দা জোহরা আলাউদ্দিন, মৌলভীবাজার জেলা প্রশাসক মীর নাহিদ আহসান প্রমুখ।