দৈনিক সিলেটের দিনকাল প্রকাশ : কানাইঘাটে এলজিইডি’র রাস্তার পাশ সহ উজার বনাঞ্চল-৩ সদস্যের কমিটি গঠন – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

দৈনিক সিলেটের দিনকাল প্রকাশ : কানাইঘাটে এলজিইডি’র রাস্তার পাশ সহ উজার বনাঞ্চল-৩ সদস্যের কমিটি গঠন

প্রকাশিত: ৮:৩৭ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ২৫, ২০২০

দৈনিক সিলেটের দিনকাল প্রকাশ : কানাইঘাটে এলজিইডি’র রাস্তার পাশ সহ উজার বনাঞ্চল-৩ সদস্যের কমিটি গঠন

কানাইঘাট প্রতিনিধিঃ
সিলেটের কানাইঘাটে এলজিইডির রাস্তার পাশ সহ বনাঞ্চল উজারের সংবাদ দৈনিক সিলেটের দিনকাল পত্রিকায় প্রকাশের পর ৩ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়েছে। জানা যায় সিলেটের সহকারী বন সংরক্ষণ কর্মকর্তা ও রেঞ্জার কর্মকর্তাকে দিয়ে ৩ সদস্যের একটি তদন্ত দল গঠন করা হয়েছে। উল্লেখ্য গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী এডভোকেট শ ম রেজাউল করিমের নাম ভাঙ্গিয়ে বেপরোয়া হয়ে উঠেছেন কানাইঘাট উপজেলা বিট কর্মকর্তা সুরেশ চন্দ্র। কথায় কথায় মন্ত্রীর নাম ব্যবহার করে নানা অনৈতিক কর্মকান্ডে তিনি জড়িয়ে পড়েছেন। উৎকোষ ছাড়া যেন তিনি কিছুই বুঝেন না এমনটাই অভিযোগ ভুক্তভোগীদের। গাছ কাটার করাতকল থেকে শুরু করে তার অনুকুলের সর্বত্র স্থানে তাকে উৎকোষ দিতে হয়। এছাড়াও উপজেলা বিট কর্মকর্তা সুরেশ চন্দ্র তার বিশ^ত্ব লোকদের দিয়ে প্রায় প্রতিদিনই এলজিইডি’র রাস্তার পাশের বড় বড় গাছগুলো কেটে নিচ্ছেন। বিশেষ করে উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপি’র সুরইঘাট গড়াখাই রাস্তার দু’পাশের অসংখ্য গাছ কেটে নেওয়া হয়েছে। গাছের মুড়োগুলো এখনো তার সাক্ষ্য বহন করছে। কোন কোন মুড়ো বালু দিয়ে ঢেকে দেওয়া হয়েছে। এ সময় স্থানীয় এলাকাবাসীর পক্ষে আব্দুল হাসিম ও আব্দুর রশিদ জানান তারা দেখেছেন গত রবিবার বন-কর্মকর্তার লোক নামে পরিচিত নিজাম উদ্দিন তার দলবল নিয়ে বড় বড় এই গাছগুলো কাটছে। অনেক শিশু কিশোর জানিয়েছেন গাছগুলো কেটে সুরইঘাটের দিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এভাবে প্রায় প্রতিদিন দু-চারটি করে দামী বেলজিয়ামের গাছগুলো কেটে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে। এদিকে উপজেলার লক্ষীপ্রসাদ পুর্ব ইউপি’র ঢেওয়াটিলা ও সেগুন বাগান সহ তার আশপাশের হাজার হাজার একর জুড়ে বাগানগুলো উজার করে দেওয়া হয়েছে। নানা অজুহাতে বনকর্মকর্তা তা ধ্বংশ করে ফেলেছেন। স্থানীয়রা জানিয়েছেন কয়েক লক্ষ টাকার গাছ সহ ঐসব টিলা থেকে কোটি টাকার পাথর উত্তোলন করে গত মৌসুমে বিক্রি করেছেন। ঐ এলাকার বন কর্মকর্তার লোক নামে পরিচিত ঢেওয়াটিলার শানু মিয়ার পুত্র দেলোয়ার হোসেন ও সরফ উদ্দিন নামের আরেকজন সহ একটি দলকে দিয়ে আধিপত্য বিস্তার করে চলছে। তারা ঢেওয়াটিলার মানিক নামের একজন ও উজান বারাপৈতের আনিছ সহ বহু লোকের বসত বাড়ি দখল করে নিয়েছেন।