নগরীতে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় আসামী হলেন যারা – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

নগরীতে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় আসামী হলেন যারা

প্রকাশিত: ৫:৪৪ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৯

নগরীতে ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় আসামী হলেন যারা

নিজস্ব প্রতিবেদক

গত বৃহস্পতিবার বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন খারিজ হওয়ার পর নগরীতে সিলেট বিএনপি, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবদল ও ছাত্রদলসহ অঙ্গসহযোগি সংগঠনি বিক্ষোভ মিছিল বের করে। বিক্ষোভ কর্মসূচিতে ককটেল বিস্ফোরত হলে পুলিশ ধাওয়া দিয়ে এই তিনজনকে আটক করে। আটককৃতরা হলেন বিশ্বনাথের টেংরা গ্রামের আজম আলীর ছেলে রাসেল আহমদ, দক্ষিণ সুরমার খরারিয়া গ্রামের চাঁন মিয়ার পুত্র আলী বাহার ও ইলেট্রিক সাপ্লাই’র দিপকেন্দু দাশ গুপ্তার ছেলে দেবাশীষ দাশ গুপ্ত। এই ঘটনায় এসএমপির কোতোয়ালী থানার এসআই অঞ্জন কুমার দাশ বাদি হয়ে বৃহস্পতিবার রাত একটি মামলা দায়ের করেন। মামলায় এই তিনজন ছাড়াও আরো আসামী হয়েছে ছদরুল ইসলাম লোকমান, আলী আহমদ, নুরুল আলম সিদ্দিকী, কামরুল হুদা জায়গীদার, ফাহিমুর রহমান মৌসুম, ওলিউর রহমান, সাইদুর রহমান বুদুরী, শামীম আহমদ, নজিবুর রহমান, আফসর খান, এমরান আহমদ, মিফতাহ সিদ্দিক, আবুল কাহের শামীম, জুবের আহমদ, মাহবুবুর রব ফয়সল, আব্দুল আহাদ খান জামাল, জাহেদ, কাইয়ুম চৌধুরী, ফজলে রাব্বী আহসান, মাহবুবুল হক চৌধুরী, কালা জামাল, সুহেল ইবনে রাজা, আবুল কাশেম, আলতাফ হোসেন সুমন, তোফায়েল আহমদ, সিদ্দিকুর রহমান পাপলু, কয়েছ আহমদ, সাইদুল ইসলাম, সুদীপ জ্যোতি এষ, লিটন আহমদ, মাহবুবুল আলম সৌরভ, মকসুদ আহমদ, আলতাফ হোসেন টিটু, আশরাফ উদ্দিন রুবেল ও অলি চৌধুরীর নাম উল্লেখ করে ২০ থেকে ২৫ জনকে অজ্ঞাত রেখে মামলা দায়ের করা হয়। যাহার নং-
সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (মিডিয়া) জেদান আল মুসা জানান, বিএনপির মিছিল থেকে হাতবোমার বিস্ফোরণ ও নাশকতার ঘটনায় পুলিশ বাদি হয়ে মামলা করেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •