নগরীর অবৈধ মাছ বাজার আকবরের হাজার হাজার টাকা বাণিজ্য ! – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

নগরীর অবৈধ মাছ বাজার আকবরের হাজার হাজার টাকা বাণিজ্য !

প্রকাশিত: ৮:১৫ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ১৪, ২০২০

নগরীর অবৈধ মাছ বাজার আকবরের হাজার হাজার টাকা বাণিজ্য !

নিজস্ব প্রতিবেদক :: সিলেট নগরীর বন্দর বাজার এলাকায় রাস্তা দখল করে গড়ে উঠেছে অবৈধ মাছ বাজার। এই অবৈধ মাছ বাজারের বিরুদ্ধে নগরীর লালবাজার মৎস্যব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লিমিটেডের নেতারা আন্দোলন করেও কোন লাভ হচ্ছে না। বহাল তবিয়তে রয়েছে নগরীর এই অবৈধ মাছ বাজার। এই বাজারের দায়ে সর্বদাই রাস্তায় তীব্র যানযট লেগে থাকে। তবুও রহস্যজনক কারণে এদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না প্রশাসন ও সিটি কর্পোরেশন। এরই পিছনে এসআই আকবরের নেতৃত্ব ছিলো। প্রতিদিন আকবরকে মোটা অংকের টাকা দিয়ে মাছ বাজার পরিচালনা করতেন রুমন-সুমন। জানা গেছে, নগরীর কাজিরবাজার মৎস্য আড়তে পাইকারী মাছ বিক্রির নিয়ম থাকলেও তারা সেটা না মেনে খুচরা মাছ বিক্রয় করছেন। যে কারণে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছেন নগরীর লালবাজারসহ অন্যান্য বাজারের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা। তাদের অভিযোগ কাজিরবাজারের পরিত্যাক্ত মাছ ব্যস্ততম নগরীর বিভিন্নস্থানে অবাধে বিক্রি করা হচ্ছে। নগরীর তালতলা ও জেলা পরিষদের সামনে আকবরের শেল্টার নিয়ে দুই ভাই রুমন ও সুমনের নেতৃত্বে গড়ে উঠেছে এই অবৈধ মাছ বাজারটি। কিন্তু কোন অবস্তাতেই এই মাছ বাজারের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়নি আকবর। রুমন-সুমন প্রতিদিন এই অবৈধ মাছ বাজারের ব্যবসায়ীদের নিকট থেকে দৈনিক জনপ্রতি ৩শ টাকা করে আদায় করছেন। তালতলা ও জেলা পরিষদের সামনে দৈনিক শতাধীক মাছের দোকান বসানো হয়। এই দোকানগুলো থেকে দৈনিক হাজার হাজার টাকা আদায় করেন রুমন-সুমন। এই টাকার ভাগ দৈনিক বিভিন্ন হর্কাস নেতা ও আকবরকে দিতেন। সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চোধুরী মাঝে-মধ্যে অভিযান দিতেন। কিন্তু আকবরের কারণেই তিনি বার বার অভিযানে ব্যর্থ হন। রুমন-সুমনের এই মাছ বাজারের কাদা পানিতে সারাদিন মাছির ভনভন ও দুর্ঘন্ধে রাস্তা দিয়ে হাটতে কষ্ট হচ্ছে জনসাধারণের। অনেক সময় পথচারীরা রাস্তার ময়লা পানিতে শরীরের কাপড় নষ্ট ও মোটরসাইকেল আরোহীরা দূর্ঘটনা কবলে পড়েন। অনেকে প্রশাসনের নিকট অভিযোগও করেন। মাঝে মধ্যে সিসিক মেয়র আরিফুল হক চোধুরী অভিযান দিলে দৌড়ে পালান মাছ ব্যবসায়ীরা। মেয়র যাওয়ার সাথে সাথে রুমন-সুমন মাছ ব্যবসায়ীদের নিয়ে ফের রাস্তায় অবস্তান করেন। এসবের পিছনে জড়িত ছিলেন আকবর। যার ফলে মেয়রের অভিযানের আগেই খবর চলে যায় রুমন-সুমনের কাছে। সর্বদাই অভিযানে ব্যর্থ হচ্ছেন মেয়র আরিফ।নগরীর রাস্তায় অবৈধ মাছ বাজার বসানো ও চাঁদাবাজির বিষয়ে রুমনের কাছে জানতে চাইলে তিনি সিলেটের দিনকালকে বলেন, আমি কিছু জানিনা আমার ভাই সুমন জানেন।

 

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল