নবীগঞ্জে দুলাভাই কর্তিত শালী ধর্ষণের ঘটনায় কি ন্যায় বিচার পাবে ধর্ষিতার পরিবার

প্রকাশিত: ৪:৫৪ অপরাহ্ণ, জুন ৭, ২০২০

নবীগঞ্জে দুলাভাই কর্তিত শালী ধর্ষণের ঘটনায় কি ন্যায় বিচার পাবে ধর্ষিতার পরিবার
নিজস্ব প্রতিবেদক:
কম্পিউটার প্রশিক্ষণের প্রলোভন দেখিয়ে লন্ডন প্রবাসী আবুল হোসেন(৫৫) নামের এক বিয়ে পাগলা ব্যক্তি বিরুদ্ধে আপন শালীকে ধর্ষণের গুরুতর  অভিযোগ পাওয়া গেছে।এ বিষয়ে নবীগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের হয়েছে। মামলা নং (১২/২১-০৫-২০২০ইং)।ধর্ষিতার এ মামলার পর ধর্ষক আবুল হোসেনকে  গ্রেফতার করা হয়েছে।বর্তমানে ধর্ষক আবুল হোসেন কারা বন্দী রয়েছে বলে জানা গেছে।
কিন্তু আবুল হোসেনের আত্বীয় স্বজন ও ভাড়াটিয়া লোকজন পক্ষ থেকে ধর্ষিতার পরিবারকে বিভিন্নভাবে হুমকি ধামকি দিচ্ছে। এবং ধর্ষিতার কিছু বিবস্ত্র ভিডিও  চিত্র সামাজিক মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়ায় হুমকিও দিচ্ছে তারা। এমতাবস্থায় ধর্ষিতার পরিবার আতঙ্কে রয়েছেন বলে জানিয়েছেন। যা অত্যন্ত দুঃখজনক এবং লজ্জাজনক  বিষয়।ইতিমধ্যে আবুল হোসেনের আত্বীয় স্বজন পক্ষ থেকে ডিআইজি অব সিলেট রেঞ্জ বরাবর একটি স্মারকলিপি প্রধান করা হয়েছে। এবং ধর্ষিতা ও তার মায়ের বিরুদ্ধে মালামাল চুরির মিথ্যা  অভিযোগ ভিক্তিতে মোগলা বাজার থানায় একটি মামালা দায়ের করা হয়েছে। মামালা নং (১৪/১৮-০৫-২০২০ইং)।
এই অবস্থায় ধর্ষিতার পরিবার এবং সচেতন নাগরিকদের   একটাই প্রশ্ন জেগেছে  এই ধর্ষণের সঠিক বিচার কি পাবে তারা?
উল্লেখ্য, ২৪ এপ্রিল দুপুর ১২ টায় আবুল হোসেনের  নির্জন বাড়িতে আপন শালীকে একা পেয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে সে। ধর্ষণের ভিডিও চিত্র মোবাইল ফোনে ধারণ করে দুলাভাই আবুল হোসেন।ভিডিও চিত্র সামাজিক মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়ার হুমকি দেওয়ায় করণে প্রথমে মামলা দিতে ভয় পেলেও পরবর্তীতে ধর্ষিতার মা আরিছা বেগম (২১মে) নবীগঞ্জ থানায় আবুল হোসেনকে আসামী করে ধর্ষণের মামলা দায়ের করেন। এ মামলার প্রেক্ষিতে( ২৩মে)  নবীগঞ্জ থানা পুলিশ আবুল হোসেনকে গ্রেফতার করে।
এছাড়াও ঐ প্রবাসীর বিরুদ্ধে রয়েছে এলাকাবাসীর বিভিন্ন অভিযোগ।এক সময় সে ছিল দাউদপুর ইউনিয়ন প্রবাসী ট্রাস্টের সভাপতি।কিন্তু এখন সে ঐ ট্রাস্টের কিছুই নয়।এমনটা দাবি করেছেন ঐ ট্রাস্টের সদস্যরা। এছাড়া ট্রাস্টের  নাম ভাঙ্গিয়ে বিভিন্ন ধরনের অপরাধ মুল্যেক কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে সে বলেও জানিয়েছেন তারা।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল