নবীজি (সা.)-এর শুভাগমন – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

নবীজি (সা.)-এর শুভাগমন

প্রকাশিত: ১২:৩৭ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২০, ২০২০

নবীজি (সা.)-এর শুভাগমন

মুফতি মুহাম্মদ এহছানুল হক মুজাদ্দেদী

 

‘ত্রিভুবনের প্রিয় মোহাম্মদ এলোরে দুনিয়ায়, আয়রে সাগর আকাশ বাতাস দেখবি যদি আয়।’ (কাজী নজরুল ইসলাম)। পৃথিবী যখন অন্ধকারাচ্ছন্ন ছিল তখনই এ পৃথিবীতে ৫৭০ খ্রিস্টাব্দের ১২ রবিউল আউয়াল সোমবার সুবহে সাদিকের সময় এ ধরার বুকে তাশরিফ এনেছেন আমাদের প্রিয় নবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)। তাঁর আগমন দিনের খুশিই হলো ঈদে মিলাদুন্নবী। আল্লাহ বলেন, ‘নিশ্চয়ই আল্লাহর পক্ষ থেকে বিশ্ববাসীর কাছে একটি নুর ও সুস্পষ্ট গ্রন্থ কোরআন এসেছে।’ সুরা মায়েদা, আয়াত ১৫। রসুল (সা.) বলেন, ‘আমি আল্লাহর কাছে নবীদের শেষ নবী হিসেবে লিখিত হয়েছিলাম, যখন আদম (আ.) মাটি-পানিতে ছিলেন। আমি তোমাদের আমার প্রথম অবস্থানের সংবাদ দিচ্ছি, আমি ইবরাহিম (আ.)-এর দোয়া, ঈসা (আ.)-এর ভবিষ্যদ্বাণীর ফসল এবং আমার মায়ের স্বপ্ন, যা তিনি আমাকে প্রসবকালীন দেখেছিলেন। নিশ্চয়ই (আমার আগমনের সময়) তখন তাঁর জন্য একটি নুর প্রকাশিত হয়েছিল, যা দ্বারা তিনি তাঁর চোখে শামদেশের প্রাসাদগুলোও দেখেছিলেন।’ মিশকাত।

রসুল (সা.)-এর শুভাগমন সম্পর্কে আল্লাহ বলেন, ‘হে নবী! আপনি বলুন, তোমরা আল্লাহর করুণা ও দয়াপ্রাপ্ত হয়ে আনন্দ প্রকাশ কর।’ সুরা ইউনুস, আয়াত ৫৬। হজরত ইবনে আব্বাস (রা.)-এর মতে, ‘এখানে ফজল ও রহমত অর্থ রসুল (সা.)-এর আগমন।’ তাফসিরে রুহুল মাআনি। নবীজি (সা.)-এর আগমনে ইবলিশ ছাড়া সবাই খুশি। বিশ্ববাসী আমরাও খুশি। ‘রসুল (সা.) প্রতি সোমবার রোজা পালনের মাধ্যমে মিলাদুন্নবী উদ্যাপন করতেন।’ মুসলিম। রসুল (সা.)-এর সময় মিলাদুন্নবী উদ্যাপিত হয়েছে। সাহাবায়ে কিরামও মিলাদুন্নবী করেছেন। সৃষ্টিজগতের রহমত প্রিয়নবী হজরত মুহাম্মদ (সা.)-সহ সব নবী-রসুল মাসুম (নিষ্পাপ)। রসুল (সা.)-এর সৌজন্যে আল্লাহ বলেছেন, ‘আমি আপনার অসিলায় আপনার (উম্মতের) আগের পরের সব গুনাহ মাফ করে দিয়েছি।’ সুরা ফাতাহ, আয়াত ২। রসুল (সা.) শরিয়তের, হেদায়াতের মূল উৎস। তাঁকে ভালোবাসা, আনুগত্য করা মহান আল্লাহর নির্দেশ। করোনাভাইরাসের এ মহামারীতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে রবিউল আউয়াল, রসুল (সা.)-এর আগমনের মাসে আল্লাহর কাছে আমরা দোয়া করি ‘হে আল্লাহ! কোরআন ও সুন্নাহর পথে তুমি আমাদের চালিত কর। রসুলের দেখানো পথ, সাহাবায়ে কিরামের পথে আমাদের চালাও।’
তাই আসুন, আল কোরআন তিলাওয়াত, নফল রোজা, দরুদ-সালাম, দান-সদকা, রসুল (সা.)-এর জীবনী, আদর্শ আলোচনার মাধ্যমে আমরা মিলাদুন্নবী (সা.) উদ্যাপন করি। পৃথিবীর সব মুমিন মুসলমান রসুল (সা.)-এর দেখানো শান্তির পথে পরিচালিত হোক, রসুল (সা.)-এর আগমনের এই মাসে মহান আল্লাহর কাছে এই দোয়া করি। আল্লাহ সবাইকে কবুল করুন।

লেখক : খতিব, মণিপুর বাইতুল আশরাফ (মাইকওয়ালা) জামে মসজিদ, মিরপুর, ঢাকা।
সুত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন