পদপ্রত্যাশী সিলেট যুবদল নেতাদের বর্তমান ও সাবেক রাজনৈতিক অবস্থান – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

পদপ্রত্যাশী সিলেট যুবদল নেতাদের বর্তমান ও সাবেক রাজনৈতিক অবস্থান

প্রকাশিত: ৯:২৫ অপরাহ্ণ, জুলাই ১৭, ২০১৭

পদপ্রত্যাশী সিলেট যুবদল নেতাদের বর্তমান ও সাবেক রাজনৈতিক অবস্থান

শীঘ্রই আসছে সিলেট জেলা ও মহানগর জাতীয়তবাদী যুবদলের কমিটি। সেই কমিটিতে আলোচনা রয়েছেন পুরাতন যুবদল ও ছাত্রদল থেকে আসা নেতারা। তাদের বর্তমান ও সাবেক রাজনৈতিক অবস্থান তুলে ধরা হলো:
জেলা যুবদলের সভাপতি পদে পুরাতন যুবদলের মধ্যে:
১. সিলেট জেলা যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক সদস্য প্রাক্তন ছাত্রনেতা ইকবাল বাহার চৌধুরী,
২. জেলা বিএনপির ২য় যুগ্ম সম্পাদক, জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক, কানাইঘাট উপজেলা বিএনপির উপদেষ্ঠা ও কানাইঘাট সদর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাবেক ছাত্রনেতা মামুনুর রশিদ মামুন।
৩. জেলা যুবদলের যুগ্ম সম্পাদক সাবেক ছাত্রনেতা মো. আব্দুস শুকুর।
নতুনদের মধ্যে যুবদলের আসতে চাচ্ছেন:
৩. জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি, বর্তমান সিলেট জেলা বিএনপির সদস্য কামরুল হাসান শাহীন।
জেলা যুবদলের সাধারণ সম্পাদক পদে পুরাতন যুবদলের মধ্যে:
১. জেলা যুবদলের প্রচার সম্পাদক ও সদর দক্ষিণ যুবদলের সাবেক আহবায়ক সাবেক ছাত্রনেতা আলী আহমদ হীরা।
২. জেলা যুবদলের যোগাযোগ বিষয়ক সম্পাদক ও সদর দক্ষিণ যুবদলের যুগ্ম আহবায়ক সাবেক ছাত্রনেতা আলাউদ্দিন আলাই।
নতুনদের মধ্যে যুবদলের আসতে চাচ্ছেন:
৩. জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাফেক মাহবুব।
৪. কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি ও জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ খান জামাল।
৫. কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি ও বর্তমান জেলা বিএনপির সদস্য সিদ্দিকুর রহমান পাপলু।
৬. জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক ও বর্তমান কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মাহবুবুল হক চৌধুরী।
৭. বর্তমান কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক ও বর্তমান জেলা ছাত্রদলের সভাপতি এডভোকেট সাঈদ আহমদ।
৮. বর্তমান জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ও সদর দক্ষিণ ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি কোহিনুর আহমদ।

৯. জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি মিফতা-উল-কবির মিফতা
জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক পদে পুরাতনদের মধ্যে
১. শাহপরাণ থানা যুবদলের আহবায়ক, বর্তমান সদর উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও বর্তমান জেলা বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব।
২. সদর দক্ষিণ যুবদলের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ও ইলিয়াস মুক্তি যুব সংগ্রাম পরিষদ সদর দক্ষিনের আহবায়ক সামছুল ইসলাম টিটু।
৩. ঢাকা সূত্রাপুর থানা যুবদলের দপ্তর সম্পাদক সোনাহর আলী সুহেল।
নতুনদের মধ্যে যুবদলের আসতে চাচ্ছেন:
৪. সাবেক জেলা ছাত্রদলের প্রচার সম্পাদক ও মহানগর ছাত্রদলের যুগ্ম সম্পাদক আজিজ হোসেন আজিজ।
মহানগর যুবদলের সভাপতি পদে পুরাতনদের মধ্যে:
১. জেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক, শহর যুবদলের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক ও কেন্দ্রীয় যুবদলের সাবেক সদস্য সাবেক ছাত্রনেতা সাদিকুর রহমান সাদিক।
নতুনদের মধ্যে যুবদলের আসতে চাচ্ছেন:
২. মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি, বর্তমান মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি জিয়াউল গণি আরেফিন জিল্লুর।
৩. জেলা ছাত্রদলের সাবেক সহ-সভাপতি, বর্তমান মহানগর বিএনপির সদস্য নজিবুর রহমান নজিব।
মহানগর যুবদলের পুরাতনদের মধ্যে সাধারণ সম্পাদক পদে:
১. শহর যুবদলের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক, মহানগর তরুন দলের আহবায়ক ও বর্তমান মহানগর বিএনপির প্রচার সম্পাদক সাবেক ছাত্রনেতা শামীম মজুমদার।
২. শহর যুবদলের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক ও জেলা যুবদলের সমাজ কল্যাণ সম্পাদক সাবেক ছাত্রনেতা নাজমুল হোসেন রিপন।
৩. জেলা যুবদলের ক্রীড়া সম্পাদক সাবেক ছাত্রনেতা সুলতান আহমদ বাবু।
নতুনদের মধ্যে যুবদলের আসতে চাচ্ছেন:
৪. কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও বর্তমান মহানগর বিএনপির ক্রীড়া সম্পাদক রেজাউল করিম নাচন।
৫. মহানগর ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ও বর্তমান মহানগর বিএনপির সদস্য শাহ নেওয়াজ বক্ত তারেক।
৬. সাবেক ছাত্রনেতা আব্দুস সামাদ তুহেল
সাংগঠনিক সম্পাদক পদে পুরাতনদের মধ্যে:
১. ১০ ওয়ার্ড যুবদলের সভাপতি ও বর্তমান মহানগর বিএনপির সদস্য সাব্বির আহমদ।
২. ২৫ ওয়ার্ড যুবদলের সভাপতি সাবেক ছাত্রনেতা ইকবাল কামাল
নতুনদের মধ্যে আসতে চাচ্ছেন:
৩. মহানগর ছাত্রদলের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রকিব চৌধুরী।
৪. মহানগর ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক লিটন কুমার দাস নান্টু
৫. সাবেক ছাত্রনেতা আবু বক্কর সিদ্দিকী বাবু

কেন্দ্রীয় সূত্রে জানাযায়, যারা জেলা বা মহানগর বিএনপির কমিটিতে আছেন তারা যুবদলে স্থান পাবেন না। বিগত দিনের আন্দোলন সংগ্রামে এবং দলের র্দূদিনে আন্দোলন সংগ্রামে অংশগ্রহন করেছেন এবং হামলা, মামলা কারা নির্যাতন নীপিড়নে শিকার হচ্ছেন সেই সকল ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতা কর্মীদের সমম্বয়নে গঠিত হবে সিলেট জেলা ও মহানগর যুবদলের কমিটি।
প্রসঙ্গত, ২০০০ সালে সিলেট যুবদলের কমিটি ঘোষণা করা হয়েছিল। ৫৭ সদস্যের এ কমিটির মেয়াদ ছিল দু’বছর। আর এ কমিটি ছিল অপূর্ণাঙ্গ। কিন্তু দীর্ঘ ১৭ বছরও পূর্ণাঙ্গ রূপ পায়নি। এ নিয়ে দলের ভেতরও অস্থিরতা চলছে। পদের আশায় বসে যুবদল নেতারা দীর্ঘ দিন পরে কমিটি পাচ্ছেন। সিলেট মহানগর প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পর্যন্ত মহানগর শাখায় যুবদলের কোনো কমিটি গঠন হয়নি এই প্রথম যুবদলের কমিটি আসছে।