পন্তের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে মান রক্ষা ভারতের – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

পন্তের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে মান রক্ষা ভারতের

প্রকাশিত: ৪:৫৯ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ১১, ২০২১

পন্তের দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে মান রক্ষা ভারতের

স্পোর্টস ডেস্ক

বোর্ডার-গাভাস্কার ট্রফির তৃতীয় টেস্টের পঞ্চম দিনের আগে পাল্লা ভারী ছিল স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার দিকে। প্রশ্ন ছিল ভারত কি পারবে ম্যাচ বাঁচাতে?

পঞ্চম দিনে মাঠে নামার আগে ম্যাচ জিততে ৮ উইকেট পতন ঘটাতে হতো অসি বোলারদের। ভারতের পক্ষে তেমন কোনো চাপ ছিল না। উইকেট বাঁচিয়ে খেলে হার এড়ানোর পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নেমেছিলেন ভারতের ব্যাটসম্যানরা।

দিনশেষে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে পেরেছেন ভারতীয় ব্যাটসম্যানরা। কমিন্স-হ্যাজেলহুডদের আগুন ঝরা বোলিংকে রুখে দিতে পেরেছেন তারা।

ধৈর্যের চূড়ান্ত পরীক্ষা দিয়েছেন চেতেশ্বর পূজারা, হানুমা বিহারি, রবিচন্দ্রন অশ্বিনরা। চতুর্থ ইনিংসে পুরো ১৩১ ওভার খেলে ড্রয়ের সন্তুষ্টি নিয়ে মাঠ ছেড়েছেন সফরকারীরা।

উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান ঋষভ পন্তের ঝড়ো ইনিংসের সুবাদে এ ড্রয়ের স্বাদ পেয়েছে ভারত। এমনটি বলতে পারেন অনেকেই। কেউবা এই ড্রয়ের জন্য বিহারি-অশ্বিনের হার না মানা জুটির কথা বলবেন।

উল্লেখ্য, ম্যাচের প্রথম ইনিংসে ৩৩৮ রান করে অস্ট্রেলিয়া। জবাবে ভারত অলআউট হয় ২৪৪ রানে। ফলে স্বাগতিকরা ৯৪ রানের লিড পেয়ে যান। নিজেদের দ্বিতীয় ইনিংসে ৬ উইকেটে ৩১২ রানে ইনিংস ঘোষণা করে অস্ট্রেলিয়া। ফলে ভারতের সামনে জয়ের জন্য লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৩২ ওভারে ৪০৯ রান।

আর আজ (পঞ্চম দিনে) ১৩১ ওভার খেলে ৫ উইকেটে ৩৩৪ রান করতে সক্ষম হয় ভারত। ফলে অমীমাংসিতভাবে ড্র হয় সিডনি টেস্ট।

রোববার ৩৪ ওভারে ২ উইকেটে ৯৮ রান নিয়ে চতুর্থ দিনের খেলা শেষ করেছিল ভারত। আজ শেষ দিনে দ্বিতীয় ওভারেই সাজঘরে ফিরে যান অধিনায়ক অজিঙ্কা রাহানে। এতে চাপে পড়ে ভারত। হানুমা বিহারির আগে ঋষভ পন্তকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় ভারত। এর মূল্যায়নও দেন ভারতের উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান। চেতেশ্বর পূজারার সঙ্গে চতুর্থ উইকেটে দেড়শ রানের জুটি গড়েন পন্ত। ওয়ানডে মেজাজে খেলে মাত্র ১১৮ বলে ৯৭ রান করেন তিনি। অসি বোলারদের তুলোধোনা করা পন্তের ইনিংসের পর ৩ উইকেটে দলীয় সংগ্রহ ২৫০ রানে পৌঁছে যায়।

সেঞ্চুরি থেকে মাত্র ৩ রান দূরে থাকতে নাথান লিয়নের শিকারে পরিণত হন ঋষভ। ঋষভের চলে যাওয়ার পর বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি পূজারাও। ইনিংসের ৮৯তম ওভারে জশ হ্যাজলউডের বলে বোল্ড হয়ে যান তিনি। আউটের আগে ২০৫ বলে ১২ চারের মারে ৭৭ রানের ইনিংস খেলেন তিনি।

পূজারার আউটের পর ভারতের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৮৮.২ ওভারে ৫ উইকেটে ২৭২ রান। ড্র নিশ্চিত করতে টেল-এন্ডারদের নিয়ে আরও ৪৩.৪ ওভার খেলতে হতো ব্যাটসম্যান হানুমা বিহারির। রবিচন্দ্র অশ্বিনকে নিয়ে কাজটা দুর্দান্তভাবে সারেন বিহারি।

দুজনে অবিশ্বাস্য জুটি টেস্টের কঠিনতম শেষ সেশনটি বিনা বিপদেই পার করে। অসি পেসারদের একের পর এক বাউন্সার। ব্যাটসম্যানের সামনে ছাতার মতো ফিল্ডিং । আপিলের পর আপিল। অধিনায়ক টিম পেইনের সব পরিকল্পনাই নস্যাৎ করে দিলেন বিহারি ও অশ্বিন। বিহারি-অশ্বিন জুটি ৪৩.১ ওভারে ৬২ রান জমা করে। বিহারি ১৬১ বলে ২৩ ও অশ্বিন ১২৮ বলে ৩৯ রানে অপরাজিত ছিলেন।

যার বদৌলতে ইনিংসের ১৩১তম ওভার শেষে (শেষ ওভারের আগেই) ড্র মেনে নেন অসি অধিনায়ক।

অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে টেস্ট ড্র করার পথে ম্যাচের চতুর্থ ইনিংসে এটি দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ। ১৯৯১ সালে অ্যাডিলেডে ম্যচের শেষ ইনিংসে ৩৩৫ রান নিয়ে ড্র করেছিল ইংল্যান্ড।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া: ৩৩৮ ও ৩১২/৬ ডিক্লেয়ার্ড।

ভারত: ২৪৪ ও ৩৩৪/৫।

ফল: ম্যাচ ড্র।