প্রথমদিনে সিলেট বিভাগে ১৬১সহ সহস্রাধিক আটক – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

প্রথমদিনে সিলেট বিভাগে ১৬১সহ সহস্রাধিক আটক

প্রকাশিত: ৮:৫৫ অপরাহ্ণ, জুন ১০, ২০১৬

প্রথমদিনে সিলেট বিভাগে ১৬১সহ সহস্রাধিক আটক

file (1)সিলেট বিভাগ:

সপ্তাহব্যাপী জঙ্গিবাদবিরোধী ‘সাঁড়াশি অভিযানের’ অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে সিলেট বিভাগ থেকে ১৬১ জনকে আটক করা। এদের মধ্যে সিলেট জেলা থেকে ৩০ জন, মৌলভীবাজার থেকে ৪১ জন, সুনামগঞ্জ থেকে ৪২ জন ও হবিগঞ্জ থেকে ৪৮ জনকে আটক করা হয়।
বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে ভোর পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে এদের আটক করা হয় বলে জানান সিলেট জেলা পুলিশের এএসপি( গণামাধ্যম)  সুজ্ঞান চাকমা।
এদিকে সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (গণমাধ্যম) রহমতউল্লাহ জানিয়েছেন, মেট্টোপলিটন এলাকা থেকে বৃহস্পতিবার রাতে ১০ জন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে ৭ জনকে মহানগর উত্তর ও বাকি ৩ জন আসামিকে মহানগর দক্ষিণ এলাকার বিভিন্ন স্থান থেকে আটক করা হয়। তবে এদের বিশেষ অভিযানে নয় বরং নিয়মিত অভিযানেই গ্রেফতার করা হয় বলে জানান তিনি।

সারা বাংলাদেশ:

একের পর এক গুপ্তহত্যা ঠেকাতে যৌথ অভিযানের প্রথম দিনেই সারা দেশে সহস্রাধিক ব্যক্তিকে গ্রেপ্তার করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। অভিযোগ উঠেছে, জঙ্গিবিরোধী অভিযান বলা হলেও সারা দেশ থেকে বিএনপি ও জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার করা হচ্ছে। এ ছাড়া তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী, বিভিন্ন মামলার পলাতক আসামি, মাদক ব্যবসায়ীরাও রয়েছে গ্রেপ্তারের তালিকায়। এদিকে জঙ্গি হামলা ঠেকানো অভিযানের শুরুতেই গতকাল ভোরে পাবনায় এক আশ্রমের সেবককে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। পুলিশ সদর দপ্তর সূত্র জানিয়েছে, সারা দেশের জঙ্গিবিরোধী অভিযানের তদারক করা হচ্ছে পুলিশ সদর দপ্তর থেকে। জঙ্গিদের হালনাগাদ তালিকা নিয়ে সাঁড়াশি এই অভিযান চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। তবে গতকাল প্রথম দিনের অভিযানে জাম’আতুল মুজাহিদীন বাংলাদেশ-জেএমবি ও আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) আলোচিত কোনো জঙ্গি নেতা বা মধ্যম সারির কোনো কর্মীকে গ্রেপ্তারের খবর জানাতে পারেননি পুলিশ সদর দপ্তরের কর্মকর্তারা। সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তারা বলছেন, যাদের আটক করা হয়েছে, যাচাই-বাছাইয়ের পর তাদের অনেককেই ছেড়ে দেয়া হবে। এ কারণে আটকের নির্দিষ্ট সংখ্যাও আগেই বলা সম্ভব নয়। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, ঘোষণা দিয়ে জঙ্গিবিরোধী অভিযানে নেমে প্রকৃত দুর্বৃত্তদের গ্রেপ্তার করা সম্ভব নয়। যেসব দুর্বৃত্ত গুপ্তহত্যায় জড়িত বা জঙ্গি সদস্য তারা কৌশলে আত্মগোপনে রয়েছে আগে থেকেই।
পুলিশ সূত্র জানায়, রাজধানী ঢাকাসহ সারা দেশে অভিযান চালানো হয়েছে। এর মধ্যে দিনাজপুর থেকে ১০০ জন, সাতক্ষীরায় ৩৫ জন, টাঙ্গাইলে ৬৮ জন, নাটোরে ২৭ জন, লক্ষ্মীপুরে ৩৬ জন, মাগুরায় ২৪ জন, রাজশাহীতে ৩১ জন, যশোরে ৬৮ জন, রংপুরে ৯০ জন, কুষ্টিয়ায় ৬৭ জন, ফেনীতে ২৫ জন, নড়াইলে ৪৯ জন, সিলেটের ৪ জেলায় ১৭১ জন, পঞ্চগড়ে ২৬ জন, চুয়াডাঙ্গায় ২১ জন, বরিশালে ২০ জন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ৩১ জন ও মেহেরপুরে ১০ জনসহ সহস্রাধিক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে।
স্টাফ রিপোর্টার, টাঙ্গাইল থেকে জানান, জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে গতকাল ৬৮ জনকে আটক করেছে পুলিশ। টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আসলাম খান বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, জেলার বিভিন্ন উপজেলায় অভিযান চালিয়ে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি, বিভিন্ন মামলার আসামি ও নাশকতা করতে পারে এমন সন্দেহভাজনসহ ৬৮ জনকে আটক করা হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের পরবর্তী নির্দেশনা না পাওয়া পর্যন্ত অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে তিনি জানান।
স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর থেকে জানান, জেলা সদর ও বিভিন্ন উপজেলা থেকে বিএনপি-জামায়াতের ২৫ নেতাকর্মীসহ এক শ’ জনকে আটক করেছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। দিনাজপুর জেলা পুলিশ সুপার মো. রুহুল আমিন একশ’ জন আটকের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, জঙ্গি ও সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে দেশজুড়ে সাঁড়াশি অভিযান চলছে। তালিকাভুক্ত ও মোস্ট ওয়ান্টেড জঙ্গি এবং সন্ত্রাসীদের ধরতে সপ্তাহব্যাপী চলবে এ অভিযান। তিনি জানান, এদের মধ্যে রাজনৈতিক পরিচয়ে ২৫ জন রয়েছেন। এদের বিরুদ্ধে নাশকতাসহ বিভিন্ন মামলা রয়েছে।
নাটোর প্রতিনিধি জানান, নাটোরে ২৭ জনকে আটক করেছে পুলিশ। এ ছাড়াও রাতে প্রায় ৪০টি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়। বৃহস্পতিবার রাতে জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের আটক ও মোটরসাইকেলগুলো জব্দ করা হয়। নাটোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুনশী শাহাবুদ্দিন জানান, র‌্যাব ও পুলিশের বিশেষ অভিযানের অংশ হিসেবে জেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালানো হয়।
মাগুরা প্রতিনিধি জানান, বৃহস্পতিবার রাতে  জামায়াতের  ২ নেতাকর্মীসহ বিভিন্ন মামলার ২৪ জন আটক হয়েছে। আটককৃতদের মধ্যে রয়েছে সদরের শত্রুজিতপুর ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড  জামায়াতের সভাপতি আফসার মোল্যা, শালিখা উপজেলা জামায়াতের সদস্য আবদুল খালেক। আটক অন্য ২২ জন বিভিন্ন মামলার আসামি বলে সহকারী পুলিশ সুপার সুদর্শন কুমার রায় জানান।
স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী থেকে জানিয়েছেন, রাজশাহী মহানগরীতে পুলিশ ও ডিবির বিশেষ অভিযানে ৩১ জনকে আটক করা হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২টা থেকে শুক্রবার ভোর পর্যন্ত নগরীর চার থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করা হয়। রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের (আরএমপি) মুখপাত্র রাজপাড়া জোনের সহকারী কমিশনার ইফতে খায়ের আলম এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, রাতে আরএমপির চার থানা পুলিশ ও মহানগর ডিবি পুলিশ অভিযান চালিয়ে ৩১ জনকে আটক করেছে। এরা সবাই বিভিন্ন মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত পলাতক আসামি এবং মাদকসেবী। পরে সকালেই তাদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
স্টাফ রিপোর্টার, যশোর থেকে জানান, পুলিশের সাঁড়াশি অভিযানে যশোরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে নাশকতাসহ বিভিন্ন মামলার ৬৮ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত পুলিশ এই অভিযান চালায়। এ সময় বিএনপি জামায়াতের ২৩ কর্মী-সমর্থকসহ মোট ৬৮ জনকে আটক করা হয়। যশোরের পুলিশ কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বপ্রাপ্ত এস আই ছাব্বির হোসেন জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত জেলার ৯টি থানার বিভিন্ন স্থানে অভিযান পরিচালনা করে পুলিশ। এ সময় কোতোয়ালি থানা পুলিশ ১৬ জন, চৌগাছা এলাকায় ১০ জন, শার্শায় ৭ জন, ঝিকরগাছায় ৬ জন, বেনাপোলে ৮ জন, কেশবপুরে ৭, মণিরামপুরে ৬, অভয়নগরে ৫ ও বাঘারপাড়া থানা পুলিশ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করে। গতকাল দুপুরে আদালতের মাধ্যমে তাদের জেলহাজতে পাঠানো হয়। তবে আটককৃতদের মধ্যে বিএনপি-জামায়াতের ২৩ কর্মী সমর্থক থাকলেও কোনো নেতাপর্যায়ের কাউকে আটক করেনি পুলিশ।
স্টাফ রিপোর্টার, রংপুর থেকে জানান, রংপুরে গতকাল পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৯০ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পুলিশ সুপারের নির্দেশে বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে ভোর পর্যন্ত নগরীসহ ৮ উপজেলায় অভিযান চালানো হয়। এ সময় নাশকতা, চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, ধর্ষণ, হত্যাসহ নানা অপরাধে এক জামায়াত কর্মীসহ ৯০ আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবদুল্লাহ আল ফারুক জানিয়েছেন অপ্রীতিকর ঘটনা এড়ানোসহ রমজান ও ঈদে মানুষের জানমালের নিরাপত্তা দিতে পুলিশ সতর্ক অবস্থায় রয়েছে। ওদিকে মিঠাপুকুর জায়গীরহাট বাতাসন এলাকায় যাত্রীবাহী বাসে পেট্রল বোমা হামলায় ৬ নিহতের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলার আসামি তোফাজ্জল হক এবং জামায়াত নেতা দেলাওয়ার হোসাইন সাঈদীর রায়ের দিনে নাশকতা মামলার আসামি আজিজুল হকসহ ১৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল থেকে জানান, বরিশালে পুলিশের বিশেষ অভিযানে বিভিন্ন মামলার মোট ৩৬ জন আসামিকে আটক করা হয়েছে। এর মধ্যে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশের হাতে ১৬ জন ও জেলা পুলিশের হাতে আটক হয়েছে ২০ জন। সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত এ সংখ্যা পাওয়া গেছে। রাতেই গ্রেপ্তারের সংখ্যা কয়েকগুণ বাড়তে পারে বলে জানা গেছে। পুলিশ জানায়, চলমান বিশেষ অভিযানে গৌরনদীতে একজন,  আগৈলঝাড়াতে বিভিন্ন মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত ৪ জন, মেহেন্দিগঞ্জে ৭ জন, হিজলাতে ৩ বছরের সাজাপ্রাপ্ত ১ জন আর ওয়ারেন্টভুক্ত ২ আসামি এবং বাকেরগঞ্জে এক জনকে আটক করেছে। বরিশাল পুলিশ সুপার এসএম আক্তারুজ্জামান জানান, বরিশালে ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি, মামলার আসামি, সাজাপ্রাপ্ত পালাতক আসামি, বিভিন্ন মামলার গ্রেপ্তারি পরোয়ানার আসামি ও মাদক মামলার আসামিসহ বিভিন্ন মামলার আসামিকে আটকে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
কুষ্টিয়া প্রতিনিধি জানান, কুষ্টিয়ায় ছয় জামাত-শিবির নেতাকর্মীসহ ৬৭ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার দিবাগত মধ্যরাত থেকে শুক্রবার ভোররাত পর্যন্ত পুলিশের এই বিশেষ অভিযান পরিচালিত হয়। পুলিশ জানায়, কুষ্টিয়া মডেল থানায় ১ জামায়াত কর্মীসহ ৮ জন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় থানার পাটিকাবাড়ী ইউনিয়ন জামায়াতের সভাপতি আফছার মাস্টারসহ ৮ জন, কুমারখালী থানায় ৪ জামায়াত-শিবির কর্মীসহ ২৪ জন, দৌলতপুর থানায় বিভিন্ন মামলায় ১৮ জন, মিরপুর থানায় ৫ জন ও ভেড়ামারা থানা এলাকায় ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
ফেনী প্রতিনিধি জানান, ফেনীতে পুলিশের বিশেষ অভিযানের প্রথম দিনে এক ছাত্রদল নেতাসহ ২৫ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। বৃহস্পতিবার রাত থেকে শুক্রবার সকাল পর্যন্ত জেলার ৬ থানায় এ অভিযান পরিচালিত হয়। ফেনীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এএসপি) শামছুল আলম সরকার জানান, ফেনীর সোনাগাজী মডেল থানায় ১৩ জন, ছাগলনাইয়া থানায় ৫ জন, ফেনী সদর মডেল থানায় ৪ জন ও পরশুরাম থানায় একজনসহ ২৫ জনকে গ্রেপ্তার করা রয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদর মধ্যে সাজাপ্রাপ্ত পলাকত আসামী, ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি, বিস্ফোরক মামলা, নাশকতা, ছিনতাই, মাদক মামলার আসামি রয়েছে। এছাড়া ছাগলনাইয়া উপজেলার ছাগলনাইয়া মহামায়া ইউনিয়ন ছাত্রদলের সভাপতি শেখ ফজলুল মজিদ জুটনকে (৩০) গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।
নড়াইল প্রতিনিধি জানান, নড়াইলে জামায়াতে ইসলামীর সদর উপজেলা আমীর ও এক কর্মীসহ জেলায় মোট ৪৯ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম জানান, জেলাব্যাপী  পরিচালিত অভিযানে সদরের উপজেলা জামায়াত ইসলামীর আমীর মাওলানা ওহিদুজ্জামান ও কর্মী আজিজুল ইসলামসহ ১৭ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এছাড়া লোহাগড়ায় ১৩ জন, কালিয়ায় ৮, নড়াগাতী থানায় ১১ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতদের বেশিরভাগই বিভিন্ন মামলায় ওয়ারেন্টভুক্ত পলাতক আসামি।
লক্ষ্মীপুর প্রতিনিধি জানান, লক্ষ্মীপুরে বিভিন্ন স্থানে পুলিশ সাঁড়াশি অভিযান চালিয়ে ৩৬ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত আসামিরা বিভিন্ন মামলার এজাহারভুক্ত আসামি বলে জানিয়েছেন পুলিশ। জেলার সদর, রায়পুর, রামগতি, কমলনগর, রামগঞ্জ উপজেলা ও চন্দ্রগঞ্জ থানার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে এসব আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়। পুলিশ সুপার আ স ম মাহাতাব উদ্দিন জানান, জঙ্গি ও সন্ত্রাসীদের ধরতে পুলিশের বিশেষ অভিযান চলছে। জঙ্গি ও সন্ত্রাসীদের কোনোভাবেই ছাড় দেয়া হবে না।
স্টাফ রিপোর্টার, কিশোরগঞ্জ থেকে জানান, কিশোরগঞ্জে এমরান হোসেন (৫০) ও মো. আবদুল কাহহার (৩৪) নামে জামায়াতের দুই নেতাকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশের বিশেষ অভিযানের সময় শহরের বত্রিশ এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়। তাদের মধ্যে এমরান হোসেন কিশোরগঞ্জ শহরের বত্রিশ মেলাবাজার এলাকার মৃত আবদুল হাশিমের ছেলে ও পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড জামায়াতের সভাপতি এবং মো. আবদুল কাহহার কটিয়াদী উপজেলার বনগ্রামের মৃত আবদুল হাই-এর ছেলে ও কটিয়াদী উপজেলা জামায়াতের প্রভাবশালী নেতা বলে পুলিশ জানিয়েছে। কিশোরগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মীর মোশারফ হোসেন জানান, গত ২২শে মার্চ অনুষ্ঠিত সদর উপজেলার ইউপি নির্বাচনে চৌদ্দশত ইউনিয়নে নাশকতার ঘটনায় পুলিশের দায়ের করা মামলায় এমরান হোসেন ও মো. আবদুল কাহহারকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শুক্রবার দুপুরে দুজনকেই আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি জানান, সন্ত্রাস ও জঙ্গি দমনে জেলাব্যাপী পুলিশের অভিযানে ৩৫ জনকে আটক করা হয়েছে। জেলার ৮টি থানার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদেরকে আটক করে। তাদের বিরুদ্ধে নাশকতাসহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে।
নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়ীয়া) প্রতিনিধি জানান, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর থানার পুলিশ গতকাল শুক্রবার সকালে পৌর এলাকার আদালতপাড়ায় অভিযান চালিয়ে নাশকতার মামলার আসামি উপজেলা জামায়াতের সাবেক আমির ও জেলা জামায়াতের নায়েবে আমীর শিক্ষক গোলাম ফারুক (৬০)কে গ্রেপ্তার করে। ধৃত আসামিকে শুক্রবার দুপুরে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। পুলিশ জানায়, সে নাশকতামূলক কার্যক্রমে জড়িত থাকায় তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।
আখাউড়া (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি জানান, আখাউড়ায় অভিযানে শিবির নেতা, ওয়ারেন্টভুক্ত, সাজাপ্রাপ্ত, মাদক ব্যবসায়ী, ডাকাত ও সন্দেহভাজনসহ ১০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাতে উপজেলার বিভিন্ন জায়গা থেকে অভিযান চালিয়ে শিবির সভাপতি জুবায়ের ওরফে মাহমুদ (২৪), ওয়ারেন্টভুক্ত আখাউড়া উপজেলার নয়াদিল গ্রামের ইয়াছিন মোল্লা (৩২), মোগড়ার রুবেল (২৬), রানা মিয়া (২৫), বিজয়নগর পত্তনের মাসুদ রানা (২৫), মোগড়ার ডাকাত সালাউদ্দিন (২৩) কিশোরগঞ্জের মাদক ব্যবসায়ী সবুজ (২৫) ও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কাউতলী গ্রামের সোহাগ (৩০), রুবেল (৩১), সোহাগকে (৩১) সন্দেহমূলকভাবে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আখাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোশারফ হোসেন তরফদার বলেন, গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।
কাউখালী (পিরোজপুর) সংবাদদাতা জানান, পুলিশের বিশেষ অভিযানে পিরোজপুরের কাউখালী উপজেলায় বৃহস্পতিবার রাতে দুজন আটক হয়েছে। আটককৃতদের মধ্যে রয়েছে শিয়ালকাঠী সাপলেজা জয়তুনিয়া দাখিল মাদরাসার সুপার জামায়াত নেতা এবিএম রফিকুল ইসলাম ওরফে জলিল, জোলাগাতী গ্রাম থেকে শিবিরকর্মী তুষা কে আটক করেছে বলে কাউখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর হোসেন জানান।
বগুড়া থেকে সংবাদদাতা জানান, সারা দেশে এক যোগে শুরু হওয়া জঙ্গিবিরোধী অভিযানে বগুড়া জেলায় গ্রেপ্তারকৃতদের কোনো তথ্য দিচ্ছে না পুলিশ। বগুড়ায় দায়িত্বরত গণমাধ্যমকর্মীরা বিকাল থেকে চেষ্টা করেও পুলিশের কোনো কর্মকর্তার মুখ খোলাতে পারেনি। পুলিশের মিডিয়া সেল, কন্ট্রোলরুম থেকে জানানো হয়েছে, তাদের কাছে কোনো তথ্য নেই। অভিযানের চব্বিশ ঘণ্টা পার না হওয়া পর্যন্ত কোনো তথ্য জানান যাচ্ছে না। সর্বশেষ এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (রাত ৮টা ১০) কন্ট্রোলরুমে যোগাযোগ করা হলে একই কথা জানানো হয়েছে। চব্বিশ ঘণ্টার আগে তারা কোনো তথ্য দিতে পারবে না। এদিকে ধারণা করা হচ্ছে বিশেষ অভিযানে গ্রেপ্তারকৃতদের বেশির ভাগ সাধারণ মানুষ। এদের যাচাইবাছাই শেষে আজ শনিবার সকালে জানানো হতে পারে।
বাগেরহাট প্রতিনিধি জানান, বাগেরহাটের ৯টি থানা এলাকায় পুলিশের বিশেষ অভিযানে ৭২ জনকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতদের মধ্যে কোনো জঙ্গি বা নাশকতা সৃষ্টিকারী নেই। তবে ১৪ জন নিয়মিত মামলার আসামি রয়েছেন। তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। বাগেরহাটের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার গৌতম কুমার বিশ্বাস এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল