প্রথম নারী প্রধান বিচারপতি পেল নেপাল – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

প্রথম নারী প্রধান বিচারপতি পেল নেপাল

প্রকাশিত: ৯:০০ পূর্বাহ্ণ, জুলাই ১১, ২০১৬

প্রথম নারী প্রধান বিচারপতি পেল নেপাল

22039_Shushila-Kakriনেপালের প্রধান বিচারপতির হিসেবে সংসদে সর্বসম্মতিক্রমে সুশিলা কাকরিকে নিয়োগের প্রস্তাব পাস হয়েছে। এতে করে নেপালের বিচার বিভাগের নেতৃত্বে প্রথমবারের মতো আসছেন একজন নারী। ফলে দেশটির প্রেসিডেন্ট, সংসদের স্পিকার ও সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির মতো শীর্ষ তিন পদের দায়িত্বেই থাকছেন নারীরা। বার্তা সংস্থা পিটিআইয়ের খবরে বলা হয়, ৬৪ বছর বয়সী সুশিলা কাকরি দুর্নীতির বিরুদ্ধে নিজের ‘জিরো টলারেন্স’ নীতির জন্য সুবিদিত। প্রধান বিচারপতির পদে নিয়োগের জন্য নেপালের জুডিশিয়াল কাউন্সিল তার নাম প্রস্তাব করে এ বছরের ১০ই এপ্রিল। কিছু কারিগরি কারণে দেশটির পার্লামেন্টারি হেয়ারিং স্পেশাল কমিটির (পিএইচএসসি) গঠনসংক্রান্ত বিলম্ব হওয়ায় তাকে নিয়োগের সিদ্ধান্তও বিলম্বিত হয়েছে। কাকরি হিন্দু ইউনিভার্সিটি থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। পরে তিনি আইন বিষয়ে শিক্ষাগ্রহণ করে ১৯৭৯ সালের সার্চ মাস থেকে আইন পেশায় নিয়োজিত হন। ২০০৯ সালের জানুয়ারি মাসে নেপালের সুপ্রিম কোর্টের অ্যাড-হক বিচারপতি নিযুক্ত হন কাকরি। ২০১০ সালের নভেম্বর মাস থেকে তিনি স্থায়ী বিচারপতি হিসেবে নিযুক্ত হন। এ বছরের ১৪ই এপ্রিল সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির পদ থেকে কল্যাণ শ্রেষ্ঠ অবসর গ্রহণ করলে ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতির দায়িত্ব পালন শুরু করেন কাকরি। এবারে দেশের প্রধান বিচারপতির দায়িত্ব পালন করবেন তিনি। দুর্নীতির বিরুদ্ধে সোচ্চার কাকরি নারীদের নাগরিকত্ব সন্তানকে প্রদানের মতো রায় দিয়েছিলেন। এর আগে এই সুযোগ কেবল পুরুষদের জন্যই উন্মুক্ত ছিল। কাকরিকে প্রধান বিচারপতির পদে নিয়োগের শুনানিতে পিএইচএসসিতে বক্তব্য রাখার সময় তিনি বলেন, বিচারকদের স্বল্পতার কারণে সুপ্রিম কোর্ট কঠিন পরিস্থিতির মধ্যে রয়েছে। এ জন্য তিনি পিএইচএসসিকে দ্রুত বিচাক নিয়োগের আহ্বান জানান। সুশিলা কাকরি ২০১৭ সালের ৬ই জুন পর্যন্ত তার ওপর অর্পিত নতুন দায়িত্ব পালন করবেন।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল