প্রশাসনের কাছে নিরপেক্ষ আচরণ প্রত্যাশা সিলেট বিএনপি’র – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

প্রশাসনের কাছে নিরপেক্ষ আচরণ প্রত্যাশা সিলেট বিএনপি’র

প্রকাশিত: ৫:১৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ৪, ২০১৮

প্রশাসনের কাছে নিরপেক্ষ আচরণ প্রত্যাশা সিলেট বিএনপি’র

প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী হিসেবে প্রশাসনকে নিরপেক্ষ দায়িত্ব পালনের আহ্বান

খালেদা জিয়ার সিলেট সফরকালে প্রশাসনের কাছে নিরপেক্ষ আচরণ প্রত্যাশা করেছেন সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপি নেতৃবৃন্দ। প্রশাসনকে উদ্দেশ্য করে নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘দলীয় চেয়ারপার্সনের সফরকালে আমরা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীসহ সকলের সহযোগিতা চাই। ’ তারা বলেন, ‘আমরা শান্তিতে বিশ্বাসী। দলীয় চেয়ারপার্সনের সফরকালে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখতে তারা সব মহলের প্রতি আহ্বান জানান।

বিএনপি চেয়ারপার্সন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া সোমবার সড়ক পথে সিলেট আসবেন। বেলা তিনটায় সিলেট পৌঁছবেন তিনি। এরপর বেলা ৪টায় তিনি হযরত শাহজালাল(র.) এবং বেলা সাড়ে ৪টায় হযরত শাহপরান(র.) এর মাজার জিয়ারত করবেন। তিনি সার্কিট হাউসে রাতযাপন করে পরদিন সকালে ঢাকার উদ্দেশ্যে সিলেট ত্যাগ করবেন।

সংবাদ সম্মেলনে নেতৃবৃন্দ অভিযোগ করেন, দলের চেয়ারপার্সনের সিলেট সফর উপলক্ষে তাদের মাইকযোগে প্রচারণা চালাতে প্রশাসনের পক্ষ থেকে বারণ করা হয়েছে। দলের নেতা-কর্মীদের বাসা-বাড়িতে তল্লাশীরও অভিযোগ আনেন তারা। খালেদা জিয়ার আগমণ উপলক্ষ্যে সিলেটের মানুষের মধ্যে জাগরণ সৃষ্টি হয়েছে। সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার আগমণ সফল করতে পুলিশ প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সহযোগিতা প্রার্থনা করছি। নেতৃবৃন্দ পুলিশ প্রশাসনকে তাদের সমস্ত দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করে প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী হিসেবে নিরপেক্ষ দায়িত্ব পালন করার জন্য অনুরোধ জানান। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার সিলেট আগমণ উপলক্ষ্যে প্রশাসন সহ সকলের সহযোগিতা কামনা করেছেন সিলেট জেলা ও মহানগর বিএনপির নেতৃবৃন্দ। রোববার দুপুরে নগরীর একটি হোটেলে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এই সহযোগিতা কামনা করেন তারা। সংবাদ সম্মেলনে  বলেন,  খালেদা জিয়ার সিলেট আগমণকে কেন্দ্র করে দলীয় নেতাকর্মী ও সিলেটের সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা বিরাজ করছে। তার এই সফর সিলেট বিভাগের বিএনপির ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনকে আরো সুসংগঠিত করবে বলে আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি। তিনি বলেন, বাংলাদেশ এক স্বৈরাচারী সরকারের কবলে নিপতিত। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার আগমণী বার্তা জনসাধারণকে জানানোর উদ্দেশ্যে মাইকিং করতে গেলে বাধা দেয় পুলিশ প্রশাসন। তাছাড়া বিএনপির নেতাকর্মীদের বাসায় বাসায় পুলিশী তল্লাশীর মাধ্যমে স্বাভাবিক কার্যক্রম পরিচালনায় বাধাগ্রস্থ করারও চেষ্টা করা হচ্ছে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক দিলদার হোসেন সেলিম, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী, জেলা বিএনপির সভাপতি আবুল কাহের চৌধুরী শামীম, সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ, মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসেইন, সাধারণ সম্পাদক বদরুজ্জামান সেলিম, সাবেক সংসদ সদস্য শফি আহমদ চৌধুরী, বিএনপি নেতা হেলাল খান, রেজাউল হাসান কয়েস লোদী, আজমল বখত চৌধুরী সাদেক, যুবদল নেতা আব্দুল মন্নান, কামরুল হুদা জায়গীরদার, ইসতিয়াক সিদ্দিকী, ফরহাদ চৌধুরী শামীম, এড. হাবিবুর রহমান হাবিব, মিফতা সিদ্দিকী, আব্দুল আহাদ খান জামাল, শাহজামান নুরুল হুদা, মাহবুবুর রব চৌধুরী ফয়ছল, এমদাদ হোসেন, সাঈদ আহমদ, সৈয়দ মইনুদ্দিন সুহেল, কামরুল হাসান শাহিন, মাহবুব চৌধুরী প্রমুখ।