বাংলাদেশীদের ব্রিটিশ ভিসা ইন্ডিয়া থেকে হলেও পাসপোর্ট থাকে বাংলাদেশে-ব্রিটিশ হাইকমিশনের কর্মকর্তা – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

বাংলাদেশীদের ব্রিটিশ ভিসা ইন্ডিয়া থেকে হলেও পাসপোর্ট থাকে বাংলাদেশে-ব্রিটিশ হাইকমিশনের কর্মকর্তা

প্রকাশিত: ১০:৪৪ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৩, ২০১৬

বাংলাদেশীদের ব্রিটিশ ভিসা ইন্ডিয়া থেকে হলেও পাসপোর্ট থাকে বাংলাদেশে-ব্রিটিশ হাইকমিশনের কর্মকর্তা

bristish২৩ অক্টোবর ২০১৬, রবিবার: যুক্তরাজ্য সফররত ঢাকাস্থ ব্রিটিশ হাইকমিশনের সিনিয়র প্রেস অফিসার ফারাহ সরোয়ারদি বলেছেন ঢাকা থেকে দিল্লীতে ব্রিটিশ ভিসা কার্যক্রম স্থানান্তর করা হলেও বাংলাদেশীদের পাসপোর্ট দিল্লীতে প্রেরন করা হয়। শুধু ভিসা প্রাপ্তি সিদ্ধান্ত দিল্লী থেকে নেয়া হয়।

তিনি শুক্রবার সন্ধ্যায় লন্ডনবাংলা প্রেসক্লাব আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় একথাগুলি বলেন। মতবিনিময় সভায় বিলেতের সাংবাদিকরা ব্রিটিশ ভিসা অফিস ঢাকা থেকে দিল্লীতে পরিবর্তন করায় প্রবাসী বাংলাদেশীদের বিভিন্ন অভিযোগ তুলে ধরেন এবং ব্রিটিশ সরকারের মনোভাব জানার চেষ্টা করেন। এসময় তিনি বলেন, আপাতত ব্রিটিশ সরকারের সিদ্ধান্তের পরিবর্তন হবে না। তবে তিনি প্রবাসীদের উদ্বেগের বিষয়টি সরকারের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে তুলে ধরবেন।

লন্ডনবাংলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক চৌধুরীর পরিচালনায় সভায় ্আরো উপস্থিত ছিলেন ক্লাবের সাবেক সভাপতি বেলাল আহমদ, সিনিয়র সাংবাদিক সৈয়দ নাহাস পাশা, নজরুল ইসলাম বাসন, লন্ডনস্থ হাই কমিশনের মিনিস্টার প্রেস নাদিম কাদির, সাংবাদিক সৈয়দ মনছুর উদ্দিন, মুস্তাক আলী বাবু, রহমত আলী, সৈয়দ জহুরুল হক, আ স ম মাসুম, জাকির হোসেন কয়েছ, আব্দুল কাইয়ুম, ইব্রাহিম খলিল, জয়নাল আবেদিন, রেজাউল করিম মৃদা প্রমুখ।

স্থানীয় সাংবাদিকদের অপর এক প্রশ্নের জবাবে ব্রিটিশ হাইকমিশনের সিনিয়র প্রেস অফিসার ফারাহ সরোয়ারদি বলেন, গুলশানে সন্ত্রাসী হামলার পরও ব্রিটিশ সরকার বাংলাদেশে তাদের নীতিতে পরিবর্তন আনেনি। সাহায্য সহযোগিতা আগের মতই অব্যাহত রয়েছে।

তবে কর্মকর্তাদের চলাফেরায় এবং যাদের সন্তান লেখা পড়া করছে তাদের ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনা হয়েছে।
তিনি বলেন, মিডিয়া সেকশন চার জায়গার মিডিয়াকে গুরুত্বসহকারে পর্যবেক্ষন করে। সেগুলির মধ্যে ঢাকা জাতীয় পত্রিকা ও সংবাদ মাধ্যম, সিলেটের পত্র পত্রিকা, যুক্তরাজ্যের মিডিয়ার খবর ও বাংলাদেশের ইংরেজী দৈনিকগুলিতে পর্যবেক্ষন করে প্রতিদিন একটি সারসংক্ষেপ জমা দিয়ে থাকে।