বাউল সম্রাট শাহ আব্দুল করিমের ১০৫ তম জন্মবার্ষিকী আজ – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

বাউল সম্রাট শাহ আব্দুল করিমের ১০৫ তম জন্মবার্ষিকী আজ

প্রকাশিত: ৫:৫৯ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২১

বাউল সম্রাট শাহ আব্দুল করিমের ১০৫ তম জন্মবার্ষিকী আজ

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি :: বন্দে মায়া লাগাইছে, পিরিতি শিখাইছে/আগে কি সুন্দর দিন কাটাইতাম/গাড়ি চলে না/আমি কূলহারা কলঙ্কিনী/কেমনে ভুলিবো আমি বাঁচি না তারে ছাড়া/ কোন মেস্তরি নাও বানাইছে/কেন পিরিতি বাড়াইলারে বন্ধু/বসন্ত বাতাসে সইগো/আইলায় না আইলায় নারে বন্ধু/ সখী কুঞ্জ সাজাও গোসহ অসংখ্য কালজয়ী ও গণজাগরণের গানের রচয়িতা বাউল সম্রাট শাহ্ আব্দুল করিম। আজ মরমী এই সাধকের ১০৫ তম জন্মবার্ষিকী। ১৯১৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি দিরাই উপজেলার তাড়ল ইউনিয়নের ধল আশ্রম গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন শাহ আব্দুল করিম। বাবা ইব্রাহিম আলী ও মা নাইওরজান বিবি। অত্যন্ত সহজ-সরল জীবন যাপন করতেন তিনি। গানে-গানে অর্ধ শতাব্দিরও বেশি সময় লড়াই করেছেন সমাজের বিভিন্ন কুসংস্কারের বিরুদ্ধে। তিনি ভাষা আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে প্রেরণা ও গণসংগীত গেয়ে গেয়ে লাখ লাখ তরুণকে উজ্জীবিত করেছেন। পেয়েছেন একুশে পদক। আব্দুল করিম তাঁর গানের মাধ্যমে গ্রামীণ জনপদের মানুষের দুঃখ, কষ্ট, আনন্দ, বেদনার কথা তুলে ধরেছেন। যা আজ মানুষের মুখে মুখে উচ্চারিত হচ্ছে। শাহ আব্দুল করিমের ১০৫ তম জন্মদিন উপলক্ষে আজ সোমবার বিকেলে তার গ্রামের বাড়িতে মিলাদ মাহফিল, আলোচনা সভা ও গানের আয়োজন করেছেন বাউল সম্রাটের শিষ্য ও ভক্তরা। ব্যক্তি জীবনে লোভ লালসা ও পদ-পদবীর প্রতি নির্লোভ এ মানুষটি তাঁর অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ একুশে পদক, মেরিল-প্রথম আলো আজীবন সম্মাননাসহ অসংখ্য পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। জীবনের শেষ পর্যায়ে এসে এ গুণীশিল্পী নানান ধরনের বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন। অবশেষে ২০০৯ সালের ১২ সেপ্টেম্বর পাড়ি জমান পরলোকে।