বালাগঞ্জ-তাজপুর সড়ক সংস্কারের অভাবে খানাখন্দ, দুর্ভোগে লক্ষাধিক মানুষ

প্রকাশিত: ৯:৩১ পূর্বাহ্ণ, জুন ১২, ২০১৬

বালাগঞ্জ-তাজপুর সড়ক সংস্কারের অভাবে খানাখন্দ, দুর্ভোগে লক্ষাধিক মানুষ

1_26730সিলেটের বালাগঞ্জ-তাজপুর সড়কের অন্তত ৩০টি স্থানে ছোট-বড় অসংখ্য খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। দুই-আড়াই বছর ধরে সড়কটি এ অবস্থায় থাকলেও সংস্কারে নেওয়া হয়নি কোনো উদ্যোগ। এতে ভোগান্তি পোহাচ্ছেন বালাগঞ্জ ও ওসমানীনগর উপজেলার লক্ষাধিক বাসিন্দা।
দুই বছর ধরে বালাগঞ্জ-তাজপুর সড়ক সংস্কার না হওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বালাগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী জাহিদুল ইসলাম বলেন, ‘দরপত্র আহ্বানের মাধ্যমে ঠিকাদার নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।’
সরেজমিনে দেখা গেছে, বালাগঞ্জ উপজেলা সদরের সঙ্গে জেলা শহরের সংযোগ স্থাপন করেছে বালাগঞ্জ-তাজপুর সড়ক। এর দৈর্ঘ্য ১৪ কিলোমিটার। এর মধ্যে সড়কের ওসমানীনগর উপজেলার উসমানপুর এবং বালাগঞ্জ উপজেলার আদিত্যপুর, ময়নাবাজার, আবদুল্লাপুর, বোয়ালজুড়, রাজাপুর, কবুলপুর অংশে বেশি ভাঙাচোরা থাকায় যান চলাচলে সমস্যা তৈরি হচ্ছে। এর বাইরে সড়কের আরও অন্তত ২৩টি অংশে রয়েছে অসংখ্য খানাখন্দ।
বালাগঞ্জ উপজেলার গোপকানু গ্রামের বাসিন্দা কৃষক আমির আহমদ ও শিক্ষার্থী হাবিবুর রহমান বলেন, সড়ক ভাঙাচোরা হওয়ায় জেলা শহরে যেতে উপজেলাবাসী দুর্ভোগে পড়েন। সড়কের ছোট-বড় গর্তে যানবাহনের চাকা পড়ে ঝাঁকুনি লাগে। বিশেষ করে বয়স্ক ও অসুস্থ ব্যক্তিদের এই সড়কে চলাচলে চরম সমস্যায় পড়তে হয়।
গত ২৮ মে বেলা দুইটার দিকে তাজপুর মোড়ে কথা হয় সিএনজিচালিত অটোরিকশাচালক ইসমাইল মিয়া ও ফারুক আহমদের সঙ্গে। তাঁরা জানান, সড়কে খানাখন্দ থাকায় প্রায়ই যানবাহন বিকল হয়ে যায়। এ ছাড়া খানাখন্দের কারণে যান চালাতেও হয় সাবধানতার সঙ্গে। একটু অসাবধান হলেই ঘটে দুর্ঘটনা।
বালাগঞ্জের উপজেলা প্রকৌশলী জাহিদুল ইসলাম জানান, কিছুদিন আগে উপজেলার আরও দুটি সড়কের সঙ্গে একত্রে বালাগঞ্জ-তাজপুর সড়ক সংস্কারের দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। এই তিনটি সড়ক সংস্কারে প্রকল্প ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় সাত কোটি টাকা। শিগগিরই এই সড়কে সংস্কারকাজ শুরু হবে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল