বাহুবলের পাহাড়লগ্নে নেই প্রাইমারী বিদ্যালয় – দৈনিক সিলেটের দিনকাল

বাহুবলের পাহাড়লগ্নে নেই প্রাইমারী বিদ্যালয়

প্রকাশিত: ৯:১২ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২০

বাহুবলের পাহাড়লগ্নে নেই প্রাইমারী বিদ্যালয়
  • লাভের পাল্লায় প্রাইভেট স্কুল, অধিক খরচে হতাশায় অভিভাবকেরা

বাহুবল প্রতিনিধি:
বাহুবলের পাহাড় সন্নিকটে প্রাইমারী স্কুল না থাকায় শিশু শিক্ষার্থীরা পড়ালেখায় অমনোযোগী হয়ে পড়েছে। যোগাযোগ দুরত্ব আর নিরাপদ ভাবনায় উদ্ধিগ্ন অভিভাবকগন অধিক খরচে কোমলমতি শিশুদের কে প্রাইভেট স্কুলে পড়াতে হয়েছে। ইহাতে হাতেগুনা সামর্থবানদের পক্ষে সম্ভব হলেও বেশির ভাগ সামর্থহীন ব্যক্তির পক্ষেই অসম্ভবতা আসছে। ফলে শিশুরা প্রাইমারী শিক্ষাগ্রহনে পিছিয়ে পড়ে নানান কাজকে বেচে নিতে হয়েছে। এলাকাবাসী জানান, বাহুবল উপজেলার ২নং পুটিজুরী ইউনিয়নে ভবানীপুর গ্রাম। ২০হাজার ভোটারের গ্রামটিকে দু’ভাগে বিভক্ত করে উত্তর, দক্ষিণ হিসেবে আলাদা করা হয়েছে।

জনসংখ্যায় এগিয়ে এক গ্রামেই একটি ওয়ার্ড ঘোষনা করা হয়। ওই গ্রামটি পাহাড় সংলগ্নস্থলে। তাছাড়া রুপাইছড়া রাবার বাগান নামে একটি শিল্প প্রতিষ্টান রয়েছে। ওই প্রতিষ্ঠানে বহু র্বে একটি স্কুলের যাত্রা বেলায় বাগানে চাকুরীজীবী সন্তানদের সাথে গ্রামের শিশুরাও সেখানে পড়তে যেত। সেটিও কয়েক বছর আগে বন্ধ হয়ে যায়। বিপরীতে কিলো-দেড় কিলোমিটার দুরবর্তী এলাকায় যেয়ে পড়ালেখা করা স্থান থাকলেও নিরাপদহীন দাবী করে সাংবাদিক হাফেজ ছালেহ আহমেদ জানান, আসা যাওয়া কালে হুমকি প্রত্যক্ষে আদরের শিশুদের বিদ্যালয়ে পাঠাতে অভিভাবকগণকে হতাশায় পড়তে হয়।

এমতাবস্থায় কেজি স্কুলের দিকে এগোতে গিয়ে অধিক খরচ বহন করতে বাধ্যতায় আসে। সরকারের শিক্ষাখাতে প্রশংসনিয় কার্যে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে মেম্বার সফিকুল ইসলাম জানান, জনসংখ্যা, যোগাযোগ ও খরচ বিবেচনায় এলাকায় সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় চালু খুবই জরুরী। একটি বিদ্যালয় চালুতে ঝড়েপড়া শিশুদের ভাগ্যরূপ পাল্টাতে পারে।

সাবেক মেম্বার ইসমাইল হোসেন, মুরব্বী আবুল হোসেন ও আব্দুল মনাফসহ অনেকেই এলাকায় একটি প্রাইমারী স্কুল প্রতিষ্টার অপরিহার্যতা দেখিয়ে বলেছেন, দীর্ঘকাল যাবত এলাকার মানুষেরা নানান ভাবে উন্নয়নে পিছিয়ে পড়েছে। অন্যান্যদের মাঝে বিদ্যালয়টিই জরুরী। ভবিষ্যৎ প্রজন্ম আলোর মুখপাত্র শিক্ষা। কিন্তু, সুনজরের অভাবে শিশুরা অনায়াশে বিপথে চলছে।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ

ফেসবুকে সিলেটের দিনকাল